যে আদেশ বলে উচ্চতর গ্রেড নেয়া যেতে পারে।

বাংলাদেশ কন্ট্রোলার এন্ড অডিটর জেনারেল এর কার্যালয়, কাকরাইল, ঢাকার ১৩/০৯/২০১৭ তারিখের সিএজি/পদ্ধতি-১/বেতন নির্ধারণ/মতামত/৫৪৫/১০৪ নম্বর পত্র অনুসরণ করে স্বয়ংক্রিয় উচ্চতর গ্রেড প্রদান করা হয়েছে।

 

জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ এর ৭(১ হতে ৪) অনুচ্ছেদ অনুসারে অডিটর পদে গৃহীত ১০ (দশ) বৎসরের উচ্চতর গ্রেড সুবিধার প্রাপ্যতার বিষয়ে বিভিন্ন সুত্রালোকে আলোচনা করে মামলা চলমান থাকা সত্বেও উচ্চতর গ্রেড প্রদান করা হয়।

 

জনাব আমজাদ হোসেন, এসএএস অধীক্ষক (দ:দা:) এবং জনাব মুহাম্মদ রুহুল আমিন, এসএএস অধিক্ষক (চ:দা:) ডিফেন্স ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্ট ২০০৪ সালে অডিটর পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে ৮ বছর পূর্তিতে ২০১২ সালে ১ম টাইম স্কেল এবং পরবর্তীতে জাতীয় বেতন স্কেল/২০১৫ এর ৭(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী একই পদে ১০ বছর পূর্তিতে উচ্চতর গ্রেড হিসেবে ৯ম গ্রেড প্রাপ্ত হয়েছেন। উচ্চতর গ্রেড প্রাপ্যতা সম্পর্কিত অনুচ্ছেদ ৭(১-৪) এর ব্যাখ্যা প্রদান করে অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ২১/০৯/২০১৬ খ্রি: তারিখে পরিপত্র নং ০৭.০০.০০০০.১৬১.০০.০০২.১৬(অংশ-১).২৩২ জারী হলে সে অনুসারে তাদের উচ্চতর গ্রেডের সুবিধা প্রাপ্তির বিষয়টি প্রশ্ন বিদ্ধ হয়ে যায়। এ অবস্থা থেকে পরিত্রানের লক্ষ্যে উল্লিখিত কর্মকর্তাদ্বয় সমেত আরও অনেক কর্মকর্তা/কর্মচারী কর্তৃক সুপ্রিম কোর্টের হাইকোট ডিভিশনে একটি রীট মামলা দায়ের করা হলে রীটের শুনানী অন্তে তাদের পক্ষে রুল জারী করা হয় এবং শেষ পর্যন্ত তাদের উচ্চতর গ্রেড প্রদান করা হয়।

 

বিস্তারিত জানতে এ সংক্রান্ত আদেশ বা পত্রটি পড়ে নিতে পারেন: ডাউনলোড

 

আরও দেখুন:

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।