কম সময় ও দূরত্বে ভ্রমণের ক্ষেত্রে স্বল্প ব্যয়ে ভ্রমনের পথভাড়া ধরিতে হইবে ।

বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস  বিধি-৩২

পথভাড়া ভাতা নির্ধারণের উদ্দেশ্যে দুইটি স্থানের মধ্যে ভ্রমণের জন্য প্রচলিত দুই বা ততোধিক পথে মধ্যে যাহা দূরত্বের দিক হইতে স্বল্পতম অথবা ব্যয়ের দিক হইতে অপেক্ষাকৃত কম ব্যয় বহুল এবং সেই সংগে স্বল্পতম, উক্ত পথটি ধরা হইবে।

তবে শর্ত থাকে যে, যে ক্ষেত্রে বিকল্প রেলপথ রহিয়াছে এবং সময় ও ব্যয়ের দিক হইতেও উহাদের মধ্যে ব্যবধান বেশী নয়, সেই ক্ষেত্রে প্রকৃত পক্ষে যে পথে ভ্রমণ করিয়াছে, উক্ত পথের ভিত্তিতেই পথভাড়া নির্ণয় করিতে হইবে।

আরও শর্ত থাকে যে, জনস্বার্থজনিত বিশেষ কারণে স্বল্পতম দূরত্বের বা স্বল্পতম ব্যয়ের পথ ব্যতী, অন্য পথে প্রকৃত পক্ষে ভ্রমণ করিলে, বিভাগীয় প্রধান উক্ত কারণ লিপিবদ্ধ করত: প্রকৃত পক্ষে ভ্রমণকৃত পথে পথভাড়া ভাতা নির্ধারণের অনুমতি প্রদান করিতে পারিবেন।

বিশ্লেষণ:

  • যে পথে দ্রুত ও স্বল্প ব্যয়ে পৌছানো যাবে সেই ব্যয় বা পথভাড়া ধরা হবে।
  • রেলপথ বা অন্য বাহনের ভ্রমণ ব্যয় যদি নিকটতম হয় তবে প্রকৃত যাত্রার যান বা ব্যয়কে ধরা যাবে।
  • বিশেষ কারণে অধিক ব্যয়ের পথভাড়া গ্রহণ করা যাবে লিখিত মন্তব্য যুক্ত করে।

পরিশেষে, পরামর্শ হলো আপনি উক্ত তথ্যগুলো জানুন এবং অপরকে জানান। আরও কোন তথ্য জানার থাকলে ইমেইল করুন: alaminmia.tangail@gmail.com এ।

admin

আমার ব্লগের কোন কন্টেন্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বা জানাতে ইমেইল করতে পারেন admin@bdservicerules.info ঠিকানায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.