পূর্ববর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর নিয়োগ যদি পরবর্তী প্রার্থীর পরে ঘটিয়া থাকে অর্থাৎ পরবর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর নিয়োগ যদি পূর্ববর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর পূর্বে উপরে ধারণাগত জ্যেষ্ঠতা পাইবেন। এই ক্ষেত্রে নিয়োগের বা যোগদানের তারিখের ভিত্তিতে নয়, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির তারিখের ভিত্তিতে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করিতে হয়। আত্মীকৃত কর্মচারীর প্রথম পদে যোগদান কাল হতে জ্যেষ্ঠতা।

জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণে সাধারণ নীতিমালা অনুসৃত হয় তা নিম্নরূপ:

সরকারী কর্মকমিশনের মাধ্যমে সরাসরি নিযুক্ত কর্মকর্তা/কর্মচারীর ক্ষেত্রে:

(১) পূর্বের উন্মুক্ত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সরকারী কর্ম কমিশন কর্তৃক বাছাইকৃত কর্মকর্তাগণ, পরবর্তী উন্মুক্ত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাছাইকৃত কর্মকর্তাগণের চাইতে জ্যেষ্ঠতর হইবেন।

(২) সরকারী কর্ম কমিশন কর্তৃক প্রকাশ্য বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যদি দুই বা ততোধিক প্রার্থী সুপারিশকৃত হইয়া থাকেন তাহা হইলে তাহাদের পারস্পারিক জ্যেষ্ঠতা কর্ম কমিশন কর্তৃক স্থিরকৃত মেধা অনুযায়ী নির্ধারিত হইবে।

(৩) সরকারী কর্ম কমিশন কর্তৃক প্রকাশ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যদি একজন মাত্র প্রার্থী কর্ম কমিশনের সুপারিশের তারিখ অথবা তাহার পদে যোগদানের তারিখের মধ্যে যাহা পরে হইবে সেখান হইতে গণনা করা হইবে।

(ক) যদি কোন ব্যক্তি এই পদে এডহক ভিত্তিতে ইতিমধ্যে অধিষ্ঠিত হইয়া থাকেন তাহা হইলে তাহার জ্যেষ্ঠতা সরকারী কর্মকমিশনের সুপারিশের তারিখ হইতে গণনা করা হইবে।

(খ) যদি কোন ব্যক্তি একই পদে এডহক ভিত্তিতে ইতিমধ্যে অধিষ্ঠিত না হইয়া থাকেন তাহা হইলে তাহার জ্যেষ্ঠতা সরকারী কর্ম কমিশন কর্তৃক সুপারিশকৃত হইয়া তাহার পদে যোগদানের তারিখ হইতে গণনা করা হইবে। সরকারী কর্মচারী (মুক্তিযোদ্ধাদের জ্যেষ্ঠতা) বিধিমালা-১৯৭৯

ব্যাখ্যা:

এই নীতিমালা জারীর সময়ে ১ম, ২য় ও ৩য় শ্রেণীর পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থী বাছাইয়ের দায়িত্ব ছিল কর্মকমিশনের। যাহার কারণে এই নীতিমালায় শুধু কর্ম কমিশনের বিষয় উল্লেখিত হইয়াছে। কিন্তু বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের বিষয় উল্লেখিত হইয়াছে। কিন্তু বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভি কমিশন অধ্যাদেশ, ১৯৭৭ এর ৫ ধারা এবং বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (কনসালটেশন) রেগুলেশন, ১৯৭৯ এর ৪নং অনুচ্ছেদের মাধ্যমে নন গেজেটেড পদসমূহকে কর্ম কমিশনের আওতা বর্হিভূত করা হইয়াছে। ফলে বর্তমানে নন গেজেটেড পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থী বাছাই কর্ম কমিশনের পরিবর্তে সংশ্লিষ্ট বাছাই কমিটি করিলেও তাহাদের জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণের ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠতার সাধারণ নীতিমালা অনুসরণীয় হইবে। নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী (জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি) বিধিমালা । কর্মচারীদেরকে বদলীযোগে নিয়োগ বা বদলী সংক্রান্ত নীতিমালা।

পূর্ববর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর নিয়োগ যদি পরবর্তী প্রার্থীর পরে ঘটিয়া থাকে অর্থাৎ পরবর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর নিয়োগ যদি পূর্ববর্তী বিজ্ঞপ্তির প্রার্থীর পূর্বে উপরে ধারণাগত জ্যেষ্ঠতা পাইবেন। এই ক্ষেত্রে নিয়োগের বা যোগদানের তারিখের ভিত্তিতে নয়, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির তারিখের ভিত্তিতে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করিতে হইবে।

এই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে একাধিক ব্যক্তিকে নিয়োগের জন্য বাছাই করা হইলে, নিয়োগ/বাছাই কমিটি কর্তৃক প্রস্তুতকৃত মেধা তালিকার ভিত্তিতে তাহাদের পারস্পারিক জ্যেষ্ঠতা নির্ধারিত হইবে।

এডহকভিত্তিক নিয়োজিত কর্মচারীর জ্যেষ্ঠতা সংক্রান্ত ৩নং অনুচ্ছেদে যে বিধান রহিয়াছে, তাহা কার্যকর নাই। কারণ এডহকভিত্তিক নিযুক্ত কর্মচারী নিয়মিতকরণ বিধিমালা ১৯৯৪ নং এডহকভিত্তিক নিযুক্ত (জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ) বিধিমালা, ১৯৯০ জারীর ফলে এডহক ভিত্তিক নিযুক্ত কর্মচারীদের জ্যেষ্ঠতা এই দুই বিধিমালার আওতায়ই নির্ধারিত হইবে। জ্যেষ্ঠতার সাধারণ নীতিমালা জারী সংক্রান্ত ৩১/১২/১৯৭০ খ্র: তারিখের স্মারকের ২নং অনুচ্ছেদের মর্মানুসারে এডহক কর্মচারীদের জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণের ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠতার সাধারণ নীতিমালা প্রযোজ্য না হইয়া উল্লিখিত বিধিমালা দুইটির বিধান প্রযোজ্য হইবে।

একই সময়ে একজন মাত্র নিয়োগ করা হইলে পদে যোগদানের তারিখ হইতে উক্ত পদে জ্যেষ্ঠতা গণনা করা হইবে।

আরও বিস্তারিত জানতে জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি বিধিমালা PDF সংগ্রহ করুন: ডাউনলোড

নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী (জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি) বিধিমালা ২০১১

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3008 posts and counting. See all posts by admin