এজি অফিস যে সূত্রগুলো ব্যবহার করে জিপিএফ মুনাফা নির্ণয় করে।

প্রতি বছরই জিপিএফ স্লীপ হিসাবরক্ষণ অফিস হতে জুলাই বা আগস্ট মাসের শেষের দিকে সংগ্রহ করতে হয়। সংগৃহীত জিপিএফ স্লীপের হিসাবটি ঠিক আছে কিনা তা কোন অভিজ্ঞ লোক দিয়ে নিরীক্ষা করাতে হয়। আর কারও কাছে গিয়ে সঠিকতা যাচাই করতে হবে না। আসুন জেনে নিই এজি অফিস কি সূত্র ব্যবহার করে জিপিএফ স্লিপের হিসাব করে। 

প্রথমেই দেখবো যদি ফেরৎযোগ্য অগ্রিম গ্রহণ করে না থাকে

উদাহরণ-১।

ধরি কামাল নামে একজন সরকারি কর্মচারির হিসাব নম্বর রেডিও/৮৭, উক্ত ব্যক্তির ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের পূর্বের অর্থ বছর ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে জের ছিল ২,৮৮,১৩৮/-। উক্ত জেরটি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে এসে প্রারম্ভিক জের হিসাব দেখানো হবে। 

#প্রারম্ভিক জের ২,৮৮,১৩৮/-

#বৎসরে প্রতি মাসে সমহারে ৪,০০০/- করে কর্তন করে ৪৮,০০০/- টাকা জমা করেছেন।

#বৎসরে সুদ হবে ২,৮৮,১৩৮ টাকার ১৩% অর্থাৎ ৩৭,৪৫৭ টাকা। ক্রমান্বয়ে প্রতি মাসে জমাকৃত ৪৮,০০০ টাকাকে ১৩ দিয়ে ২বার গুণন করে ২৪০০ দ্বারা ভাগ দিয়ে মুনাফা নির্ণয় করতে হবে যা ৩৩৮০ টাকা। মোট মুনাফা দাঁড়াবে ৪০,৮৩৭ টাকা।

# বৎসরে প্রত্যাহার -নাই।

জের হবে: ৩,৭৬,৯৭৫ টাকা মাত্র।

আসুন এজি অফিসের স্বাক্ষরিত একটি জিপিএফ স্লীপের নমুনা কপি দেখে নিই: ডাউনলোড

উপরোক্ত আলোচনা হতে জানতে পারলাম যে, সরল সুদ ১৩% হারে ২,৮৮,১৩৮*১৩% = ৩৭৪৫৭ টাকা এবং ক্রমবর্ধমান মুনাফার বের করতে ৪৮,০০০*১৩*১৩/২৪০০ = ৩৩৮০ টাকা মাত্র।

উদাহরণ -০২।

রহিমের পূর্বের স্থিতি পূর্বের স্থিতি ৪৯,৯৭৮ টাকা, মাসিক কর্তন ১৫০০ টাকা। অগ্রিম উত্তোলন করেন নাই। বছরান্তে তার হিসাব।

চলতি বছরের সুদ = (১৫০০*৭৮*১৩)/১২০০ = ১২৬৭.৫০ টাকা এবং পূর্বের স্থিতির সুদ = ৪৯,৯৭৮*১৩% = ৬,৪৯৭.১৪ টাকা।

বছরান্তে মোট সুদ ৭,৭৬৪.৬৪ টাকা, পূর্বের স্থিতি ৪৯,৯৭৮ টাকা, বৎসরে জমা ১৫০০*১২ = ১৮০০০ টাকা। জের ৭৫,৭৪২.৬৪ টাকা। ছক নিম্নরূপ।

প্রারম্ভিক জের বৎসরের জমা বৎসরের সুদ বৎসরের প্রত্যাহার জের
৪৯,৯৭৮.০০ ১৮,০০০.০০ ৭,৭৪২.৬৪ ৭৫,৭৪২.৬৪

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.