বাংলাদেশ সরকার সারা দেশের বিভিন্ন জেলায় নির্বাচনকালীন দায়িত্ব পালনের জন্য এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে – দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৩

নির্বাচনের দিন কি ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবে?–আগামী ০৭ জানুয়ারি, ২০২৪ তারিখ রবিবার দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত নির্বাচন উপলক্ষে আচরণ বিধি প্রতিপালন নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি নির্বাচনী এলাকার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ প্রতিরোধ এবং মোবাইল কোর্ট ও স্ট্রাইকিং ফোর্স বিশেষ করে বিজিব, কোস্টগার্ড ও সশস্ত্র বাহিনীর টিমকে দিক-নির্দেশনা প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডারের নিম্ন ছকে বর্ণিত কর্মকর্তাগণকে The Code of Criminal Procedure 1898 amended as The Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 2009 এর ১০(৫) ধারা অনুযায়ী এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগপূর্বক জেলা/অধিক্ষেত্রে আগামী ০৫ জানুয়ারি, ২০২৪ হতে ০৯ জানুয়ারি, ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত মোবাইল কোর্ট আইন ২০০৯ এর ৫ ধারা মোতাবেক উক্ত আইনের তফসিলভুক্ত আইনসমূহে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার ক্ষমতা অর্পণ করা হয়েছে।

ম্যাজিস্ট্রেট দের কি প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে? হ্যাঁ। এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণের মধ্যে ঢাকা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের জেলাসমূহে নিয়োগপ্রাপ্ত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণ আগামী ৩১/১২/২০২৩ তারিখ (প্রথম ব্যাচ) এবং সিলেট, খুলনা, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও চট্টগ্রাম বিভাগের জেলাসমূহে নিয়োগপ্রাপ্ত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণ ০২/০১/২০২৪ তারিখ (দ্বিতীয় ব্যাচ) সকাল ১০:০০ টা হতে বিকাল ৩:০০ টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র, শেরেবাংলা নগর, ঢাকা-তে আবশ্যিকভাবে উপস্থিত হয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন।

নির্বাচনের পর দিনও কি বলবৎ থাকবে? হ্যাঁ। বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডারের নিম্ন ছকে বর্ণিত কর্মকর্তাগণকে The Code of Criminal Procedure 1898 amended as The Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 2009 এর ১০(৫) ধারা অনুযায়ী এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগপূর্বক জেলা/অধিক্ষেত্রে আগামী ০৫ জানুয়ারি, ২০২৪ হতে ০৯ জানুয়ারি, ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত মোবাইল কোর্ট আইন ২০০৯ এর ৫ ধারা মোতাবেক উক্ত আইনের তফসিলভুক্ত আইনসমূহে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার ক্ষমতা অর্পণ করা হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৪ । ১২তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ম্যাজিস্ট্রেটি ক্ষমতা প্রাপ্ত ব্যক্তিদের তালিকা দেখুন

নিয়োগপ্রাপ্ত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণ আগামী ০৪/০১/২০২৪ তারিখে সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট/রিটার্নিং অফিসার-এর নিকট আবশ্যিকভাবে যোগদান/রিপোর্ট করবেন।

Caption: Full Order Download Link

এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট তাৎক্ষনিক শাস্তি দিবে । ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাজ কি?

  1. জনকল্যাণে দ্রুত বিচারের স্বার্থে আদালতের নির্ধারিত স্থানে না বসে অপরাধ সংঘটিত স্থানে তাৎক্ষণিক বিচারের উদ্দেশ্যে গঠিত সংক্ষিপ্ত আদালতই হলো ভ্রাম্যমাণ আদালত বা মোবাইল কোর্ট। জনস্বার্থে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও প্রতিরোধ কাজকে আরও দ্রুত ও অধিকতর দক্ষতার সঙ্গে কার্যকর করার জন্য মোবাইল কোর্ট আইন ২০০৯ অনুসারে আদালত বসানো হয়।
  2. ভ্রাম্যমাণ আদালত বা মোবাইল কোর্ট হলো ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক বিচারকার্য পরিচালনা এবং তাৎক্ষণিকভাবে বিচারাদেশ প্রদান। এই বিচার ব্যবস্থা বাংলাদেশে প্রজয্য। মোবাইল কোর্ট অধ্যাদেশ, ২০০৭ (বর্তমানে মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯) এর অধীনে ক্ষমতাপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তার বিচারিক এখতিয়ার অনুযায়ী অপরাধ তাৎক্ষণিকভাবে আমলে নিয়ে, উপস্থিত সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আদেশ দিয়ে থাকেন। এটি একটি সংক্ষিপ্ত বিচার পদ্ধতি। তবে ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক প্রদত্ব বিচারাদেশের বিরূদ্ধে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বা উচ্চতর আদালতে আপিল রুজু করা যায়।
  3. দণ্ড আরোপ করার ক্ষেত্রে, সংশ্লিষ্ট অপরাধের জন্য সংশ্লিষ্ট আইনে যে দণ্ডই নির্ধারিত থাকুক না কেন, দুই বছর এর অধিক কারাদণ্ড ভ্রাম্যমাণ আদালত আরোপ করতে পারে না।
  4. সাধারণত জেলা প্রশাসন থেকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এখানে চিরাচরিত আদালতের মত কোনও কাঠগড়া বা বিচারপতির আসন বা উকিল থাকে না। তবে আদালতের সকল কার্যক্রমই করা হয়। এই কোর্টে বিভিন্ন বিষয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যার জন্য আগে থেকে কোনও মামলা থাকার প্রয়োজন থাকে না। সরাসরি বিচার করে যে ধারার অপরাধ সে অনুযায়ী কারাদন্ড বা অর্থদণ্ড দেওয়া বা আইনের আয়তায় আনা হয়।
  5. কোনও নির্দিষ্ট যায়গায় নির্দিষ্ট অপরাধ দমনের জন্য অথবা নির্দিষ্ট এলাকায় আইন কতটুকু কার্যকর হচ্ছে তা পরিদর্শনের জন্য ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। ইভটিজিং, মাদক ও ভেজাল প্রতিরোধ, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ, ভোক্তা অধিকার প্রতিষ্ঠা, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, মানবাধিকার ও পরিবেশ সংরক্ষণসহ সমাজে আইন-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা মোবাইল কোর্টের মূল লক্ষ।
  6. এই কোর্টে এক বা একাধিক ম্যাজিস্ট্রেট প্রধান ও সহকারি বিচারপতির দায়িত্ব পালন করে। তাদের সার্বিক সাহাজ্যের জন্য এক বা একাধিক বাহিনীর কয়েকজন সদস্যেরা সাথে থাকে।

ম্যাজিস্ট্রেট কবে থেকে দায়িত্ব পালন করবেন?

জেলা ম্যাজিস্ট্রেট/রিটার্নিং অফিসার তার অধিক্ষেত্রে যোগদানকৃত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণের যোগদান সংক্রান্ত প্রতিবেদন ০৪/০১/২০২৪ তারিখ রাত ৮:০০ টার মধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ নিশ্চিত করবেন।  জেলা ম্যাজিস্ট্রেট/রিটার্নিং অফিসার প্রয়োজনীয়তার নিরীখে তার অধিক্ষেত্রে যোগদানকৃত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব বন্টন করবেন।

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3002 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *