সরকারি চাকরিতে পদত্যাগ সংক্রান্ত বিধি বিধান।

অভিপ্রায়কৃত পদত্যাগের তারিখ হইতে পদত্যাগ কার্যকর হয় এবং ইহা অপ্রত্যাহারযোগ্য হয়। অভিপ্রায়কৃত পদত্যাগের তারিখের পূর্বে পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করা হইলে তিনি আদৌ পদত্যাগ করিয়াছেন মর্মে গন্য হইবে না।

হাইলাইটস:

  • অভিপ্রায় পদত্যাগ তারিখ অতিবাহিত হওয়ার পর পদত্যাগ প্রত্যাহারের আবেদন করিলে তাহা গ্রহণযোগ্য হইবে না।
  • পদত্যাগ একবার কার্যকর হইলে তাহা পূর্নবহাল করা যায় না।
  • একটি বিষয় লক্ষ্যনীয় যে, পদত্যাগ পত্র গ্রহীত না হওয়া পর্যন্ত কর্মস্থল ত্যাগ করা যাইবে না।

পদত্যাগ সংক্রান্ত বিধান:

পদত্যাগ অর্থ স্বত:স্ফূর্তভাবে অধিকার ত্যাগ করা এবং চাকরির ক্ষেত্রে কর্মত্যাগ করা বা ছাড়িয়া দেওয়া। পদত্যাগ সম্পূর্ণ ও কার্যকর হওয়ার জন্য অবশ্যই কর্মত্যাগ বা ছাড়িয়া দেওয়ার অভিপ্রায় থাকিতে হইবে এবং কর্মত্যাগের ঘটনা সংঘটিত হইতে হইবে। সংশ্লিষ্ট বিধিবিধানের প্রেক্ষিতে পদত্যাগ এক তরফা অথবা দুই তরফা অর্থাৎ দ্বিপাক্ষিক প্রকৃতির হইতে পারে। এক তরফা প্রকৃতির ক্ষেত্রে কর্মচারী যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট পদত্যাগপত্র দাখিলের পর তাহা গ্রহণের প্রশ্ন জড়িত এবং এই ক্ষেত্রে পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত তাহা কার্যকর হয় না। চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের ক্ষেত্রে পদত্যাগ দুই তরফা প্রকৃতির। এইক্ষেত্রে নিয়োগকর্তা কর্তৃক পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত তাহা কার্যকরা হয় না। সরকারী কর্মচারী কর্তৃক পদত্যাগপত্র দাখিলের পর তাহা গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত পদত্যাগ কার্যকর হয় না।

পদত্যাগ অর্থ স্বেচ্ছায় মুক্তভাবে এবং কোন চাপের ভিত্তিতে নয়, চাকরি ত্যাগ। পদত্যাগ দ্বারা দাবী, অধিকার ও পদ ত্যাগ করা হয়।

পদত্যাগ নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্যে লিখিত আবেদনের মাধ্যমে করিতে হয়। পদত্যাগের আবেদনে পদত্যাগের তারিখ অবশ্যই উল্লেখ করিতে হইবে।

অভিপ্রায়কৃত পদত্যাগের তারিখ হইতে পদত্যাগ কার্যকর হয় এবং ইহা অপ্রত্যাহার যোগ্য (irrevocable)  হয়। অভিপ্রায়কৃত পদত্যাগের তারিখের পূর্বে পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করা হইলে তিনি আদৌ পদত্যাগ করিয়াছেন মর্মে গণ্য হইবে না।

পদত্যাগকারী কর্মচারীকে যথাযথ কর্তৃপক্ষ আইনের কোন বিধান ভঙ্গ না করিয়া পুর্নবহাল করিতে পারে। পুর্নবহালের সুষ্পষ্ট কোন নিষেধাজ্ঞা না থাকিলে কোন পদত্যাগপত্র দাখিলকারী কর্মচারী আন্তরিকভাবে পুন:পুন: পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন জানানোর ক্ষেত্রে ইহা বলা যথাযথ হইবে না যে কর্তৃপক্ষ পুর্নবহালের ক্ষমতাবিহীন।

কর্মরত থাকাকালীন অন্য কোন চাকরিতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন করিতে হয়। কোন কর্মকর্তা/ কর্মচারী ইস্তফা প্রদান করিলে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ তাহার ইস্তফাপত্র গ্রহণ করা বা না করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করেন। ইস্তফাপত্র গৃহীন না হওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/ কর্মচারী কর্মস্থল হইতে অনুপস্থিত থাকেন সেইক্ষেত্রে তাহার বিরূদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়।

পদত্যাগ সংক্রান্ত বিধান অনুচ্ছেদটি JPEG কপি সংগ্রহ করতে পারেন: ডাউনলোড

Avatar

admin

আমি একজন সরকারি চাকরিজীবী। ভালবাসি চাকরি সংক্রান্ত বিধি বিধান জানতে ও অন্যকে জানাতে। আমার ব্লগের কোন কন্টেন্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বা জানাতে ইমেইল করতে পারেন alaminmia.tangail@gmail.com ঠিকানায়। ধন্যবাদ আপনাকে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.