বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবী মেনে নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তি!

গত ১৮/১১/২০২০ খ্রি: তারিখের কেনিপ-৯০/২০২০/প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম চলমান আন্দোলনের সাথে সমর্থন ও দাবিসমূহ মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিম্নোক্ত বিষয়গুলো সরকারের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করা হয়েছে।

“১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম” সরকারের কর্মরত ১১-২০ গ্রেডের সকল সরকারি চাকুরিজীবীদের বিদ্যমান বেতন বৈষম্য, পদ-পদবী, টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড, বিদ্যমান বিভিন্ন ভাতা বাজার ব্যবস্থার সাথে অসঙ্গতি সহ কর্মচারীদের ন্যায্য সকল দাবি নিয়ে গত প্রায় দুই বছর ধরে মাঠ পর্যায়ে কাজ করে আছে।

আমরা আমাদের দাবিসমূহ বাস্তবায়নের জন্য মহান জাতীয় সংসদের একশরও বেশি সংসদ সদস্য, বেতন বৈষম্য দূরীকরণ কমিটি, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী মহোদয়, জনপ্রশান সচিব, অর্থ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব ছাড়াও ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপির মাধ্যমে আবেদন নিবেদন করে আসছি। এমনকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে জাতীয় সংসদে আমাদের দাবিসমূহ উত্থাপিত হয়েছে।

আমাদের দাবি সমূহের মধ্যে সচিবালয়ের বাইরের সকল দপ্তরে সচিবালয়ের মত পদ -পদবী ও সুযোগ সুবিধা প্রদান অন্যতম।

বর্তমানে “বাংলাদেশে কলেক্টরেট সহকারী সমিতি” সচিবালয়ের ন্যায় পদ পদবির জন্য আন্দোলন করছে, ” বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েশন” পেশাগত মান উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন দাবি নিয়ে আন্দোলন করছে। এছাড়া অচিরেই আন্দোলনে নামার ঘোষণা দিয়েছে ” বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সহকারি এসোসিলেশন” (ইতোমধ্যে কর্ম বিরতি চলছে)”।

মাঠ পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের একল আন্দোলনের কারণ একটি সুন্দর প্রশাসনিক অবকাঠামোর অভাব। সচিবালয়ের সাথে মাঠ পর্যায়ের কর্মচারীদের চরম বৈষম্য। একটি দপ্তর এর সাথে আরেকটি দপ্তরের একই ধরনের কর্মচারীদের মধ্যে বেতন গ্রেড এর পার্থক্য। বর্তমান বাজার ব্যবস্থার সাথে কর্মচারীদের বেতন ও ভাতার অসঙ্গতি।

সরকার একটি দপ্তরের দাবি মেনে নেন তো আরেকটি দপ্তরের কর্মচারীরা আন্দোলনে নামেন, এসকল আন্দোলনের অবসান হতে পারে শুধুমাত্র বেতন বৈষম্য দূরীকরণ ও একটি সুন্দর প্রশাসনিক সংস্কার এর মাধ্যমে, যেখানে একই পদবীর সকল কর্মচারী বেতন স্কেলে একই গ্রেড ভূক্ত হবে। একই ধরনের কাজ যারা করেন বিভিন্ন দপ্তর হলেও তাদের বেতন স্কেল একই ধরনের হবে। সচিবালয়ের সাথে বাইরের দপ্তরের কর্মচারীদের পদোন্নতি ও বেতনে কোন পার্থক্য থাকবে না। বাজার ব্যবস্থার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ বেতন ও ভাতা প্রদান করতে হবে।

উল্লেখিত বিষয়সমূহ বিবেচনাপূর্বক আন্দোলরত ১১ থেকে ২০ গ্রেডের সকল কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি সমূহ মেনে নেওয়ার জন্য ” ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায়ের ফোরাম: এর পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সূত্র: ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম এর ফেসবুক পেইজ

বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবী মেনে নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তি: ডাউনলোড

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2960 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *