মাসিক কল্যাণ ভাতা মঞ্জুরীতে যে সকল কাগজ যুক্ত করতে হয়।

সরকারি কর্মচারী কর্মরত অবস্থায় বা অবসরের পর মৃত্যুবরণ বা অক্ষম হয়ে পড়লে বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড হতে মাসিক কল্যাণ ভাতা গ্রহণ করতে পারে। এ মাসিক কল্যাণ ভাতা গ্রহণের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। আবেদনের সাথে যে সব কাগজপত্র সংযুক্ হিসাবে দিতে হবে তা নিচে উল্লেখ করা হলো। 

১। মূল আবেদন পত্র।

২। পূরণকৃত নির্ধারিত ফরম ও ছবি।

৩। পেনশন মঞ্জুরীর প্রজ্ঞাপন সত্যায়িত কপি (যদি থাকে)।

৪। প্রত্যাশিত শেষ বেতনের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

৫। নমুনা স্বাক্ষর ও পাঁচ আঙ্গুলের ছাপ।

৬। মাসিক কল্যাণ ভাতা উত্তোলনের ক্ষমতা অর্পনপত্র।  (কর্মচারী মৃত্যুবরণ করিলে)

৭। উত্তরাধিকারী সনদপত্র ও নন-ম্যারিজ সার্টিফিকেট ঘোষণাপত্র (কর্মচারী মৃত্যুবরণ করিলে)

৮। মৃত্যুসনদপত্রের সত্যায়িত কপি (মৃত্যু হইলে)।

৯। রাজস্বখাতভূক্ত নিয়মিত কর্মচারী সংক্রান্ত প্রত্যায়ন পত্র।

১০। এস এস সি সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি।

১১। পিপিও বইয়ের সত্যায়িত কপি।

১২। আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্রের সত্যায়িত কপি।

১৩। মরহুমের জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপি।

মাসিক কল্যাণ ভাতা মঞ্জুরীর আবেদনপত্রের যে সকল কাগজ যুক্ত করতে হয় তার নমুনা দেখে নিতে পারেন: ডাউনলোড

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

2 thoughts on “মাসিক কল্যাণ ভাতা মঞ্জুরীতে যে সকল কাগজ যুক্ত করতে হয়।

  • 14/09/2020 at 6:45 pm
    Permalink

    নির্ধারিত ফরমে যাযা চেয়েছে এখানে তার চেয়ে অতিরিক্ত পেপারস কেন সংযুক্ত করা হয়েছে? দয়াকরে জানাবেন।

  • 14/09/2020 at 7:24 pm
    Permalink

    রিকুয়ারমেন্ট ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.