সরকারি কর্মচারীদের প্রতিবছরই বেতন বৃদ্ধি হয়। তবে এটি নির্ধারিত এবং ইনক্রিমেন্ট ধাপ অনুসারে হয়ে থাকে। কারও যদি ধাপ শেষ হয়ে থাকে বা সিলিং এ পৌছে যান তবে ইনক্রিমেন্ট আর হবে না । বেসরকারি কর্মচারীদের মত অসমহারে বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হয়। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে দক্ষ কর্মচারীদের বেতন ৫০০০ টাকা বাড়লে অদক্ষদের বাড়ে ২০০০ টাকা কিন্তু সরকারি চাকরিতে দক্ষ ও অদক্ষ সমান হারেই ইনক্রিমেন্ট পেয়ে থাকে।

বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি কখন হয়?

বেসরকারি কর্মচারিদের বেতন বৃদ্ধি যে কোন সময় হয়ে থাকে। কর্তৃপক্ষ চাইলে বছরে দু’বারও বেতন বৃদ্ধি হতে পারে। কিন্তু সরকারি কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি বছরে একবারই হয়ে থাকে তা হলো প্রতি বছর ১ জুলাই বেতন বৃদ্ধি বা ইনক্রিমেন্ট হয়। ১ জুলাই হতে ৩০ জুন কর্মকালের জন্য ১লা জুলাই প্রতি বছর বেতন বৃদ্ধি হয়ে থাকে। চলতি ২০২২ সালেও ১ জুলাই বেতন বৃদ্ধি তারিখ নির্ধারিত। অর্থাৎ আগামী ১ লা জুলাই সকল সরকারী কর্মচারীদের গড়ে ৫% বেতন বৃদ্ধি পাবে। তবে গ্রেড-১ এ কর্মরত কর্মকর্তার কোন বেতন বৃদ্ধি হবে না এক্ষেত্রে ৭৮ হাজার টাকা নির্ধারিত বেতন। অন্য দিকে কারও মূল বেতন গ্রেড ২ এ ৬৮৪৮০ টাকা হলে, এ বছর তার মূল বেতন দাঁড়াবে ৭১০৫০ টাকা।গ্রেড-২> ৬৬০০০ -৬৮৪৮০ -৭১০৫০ -৭৩৭২০ -৭৬৪৯০

নিম্ন গ্রেডের কর্মচারীদের বেতন কত বৃদ্ধি পায়?

১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীদের বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি মূল বেতনে ৫০০ টাকার মত হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে ৫০০-৮০০ টাকার কমও হয়। ধরি ১৯ নম্বর গ্রেডের একজন কর্মচারীর মূল বেতন ১২০০০ টাকা, তার চলতি বছরে বেতন বৃদ্ধি পেয়ে মূল বেতন দাড়াবে ১২৬০০ টাকা। গ্রেড-১৯> ৮৫০০ -৮৯৩০ – ৯৩৮০ – ৯৮৫০- ১০৩৫০ – ১০৮৭০ – ১১৪২০- ১২০০০- ১২৬০০ – ১৩২৩০ – ১৩৯০০ -১৪৬০০- ১৫৩৩০- ১৬১০০- ১৬৯১০ -১৭৭৬০ -১৮৬৫০-  ১৯৫৯০ -২০৫৭০।

সাময়িক বরখাস্তকালে কি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হয়?

একজন কর্মচারী বা কর্মকর্তা সাময়িক বরাখাস্ত হয় বিভিন্ন প্রকার অসদাচরণের কারণে। সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ লঙ্গন করলে একজন কর্মচারিকে সাময়িক বরাখাস্ত করা হয়। সাময়িক বরখাস্তকালে শুধুমাত্র খোরাকি ভাতা পাবেন। বাড়ি ভাড়া, শিক্ষা ভাতা অন্যান্য হারে সকল সুবিধা বহাল থাকবে। খোরাকি ভাতা বলতে অর্ধ হারে মূল বেতন প্রাপ্য হবে। এসময় কোন বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্র্রাপ্য হবেন না। ধরি কোন কর্মচারী ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে সাময়িক বরাখাস্ত হলেন তাহলে তিনি কি ১ জুলাই ২০২২ সালে বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি বা ইনক্রিমেন্ট পাবেন? না কোন ইনক্রিমেন্ট প্রাপ্য হবেনা না। তবে সাময়িক বরখাস্ত কাল যদি চাকরি কাল হিসাবে গণনা করা হয় তাকে যদি ইনক্রিমেন্ট স্থাগিতাদেশ না দেওয়া হয়। তবে সাসপেনশন প্রত্যাহার হলে তিনি বকেয়া হিসেবে ইনক্রিমেন্ট পাবেন। যখনই তার সাময়িক বরখাস্ত স্থগিত করা হবে পূর্ববর্তী সকল বকেয়া প্রাপ্য হবেন।

বিনা বেতনে ছুটি বা অসাধারণ ছুটি মঞ্জুরকালে কি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হয়?

কোন কর্মচারীর যদি ছুটি জমা না থাকে বা শাস্তি হিসাবে অনুপস্থিতকাল বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হয় তবে উক্ত সময় তিনি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন না। শুধু তাই নয়, যদি দিন তাকে বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হবে উক্ত দিন পরে তিনি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন। যেমন ধরি কোন কর্মচারি ২০২১ সালে দুই মাস বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছে। তিনি ২০২২ সালে জুলাই মাসে ইনক্রিমেন্ট পাবেন না। তিনি সেপ্টেম্বর মাসে গিয়ে ইনক্রিমেন্ট বা বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি পাবেন।

যদি কেউ অবসর উত্তর ছুটিতে থাকে তবে কি তিনি বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট পাবেন?

না। ৫৯ বছর চাকরি পূর্তিতে অথবা স্বেচ্ছায় যেভাবেই হোক না কেন তিনি যদি পিআরএল বা অবসর উত্তর ছুটি ভোগ করতে থাকেন উক্ত সময় তিনি কোন বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন না। বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি শুধুমাত্র চাকরি কালে পাবেন। তবে হ্যাঁ পিআরএল শেষে তার পেনশন নির্ধারণের জন্য তিনি একটি ইনক্রিমেন্ট পাবেন সেটি কিন্তু কোন ভাবেই বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট নয়।

মোট কথা বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি সুবিধা পেতে হলে সফল ভাবে এক বছর চাকরি সম্পন্ন করতে হবে তবেই তিনি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি সুবিধার জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি ২০২২

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2981 posts and counting. See all posts by admin

2 thoughts on “সরকারি কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি ২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *