সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা চালু থাকবে: বাংলাদেশ ব্যাংক

আগামী ০৫ এপ্রিল ২০২১ হতে ১১ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত ব্যাংকিং ব্যবস্থা সীমিত পরিসরে চালু রাখার বিষয়ে নিম্নোক্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক

সেন্ট্রাল ব্যাংক অব বাংলাদেশ

প্রধান কার্যালয়

মতিঝিল, ঢাকা-১০০০

বাংলাদেশ

ডিওএস সার্কুলার লেটার নং-১১; তারিখ: ০৪ এপ্রিল ২০২১

ব্যবস্থাপনা পরিচালক/প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা

বাংলাদেশ কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংক

প্রিয় মহোদয়,

করোনা ভাইরাস সংক্রমনের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা চালু রাখা প্রসঙ্গে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ০৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখের ০৪.০০.০০০০.৫১৪.১৬.০০৩.২০.১১১ নং স্মারকে প্রদত্ত নির্দেশনার প্রেক্ষিতে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের বিদ্যমান পরিস্থিতি পর্যালোচনায় আগামী ০৫ এপ্রিল ২০২১ হতে ১১ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত ব্যাংকিং ব্যবস্থা সীমিত পরিসরে চালু রাখার বিষয়ে নিম্নোক্ত নির্দেশনা জারি করা হলো:

০১। ০৫ এপ্রিল ২০২১ হতে ১১ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিনে ব্যতীত দৈনিক ব্যাংকিং লেনদেনের সময়সূচি সকাল ১০.০০ ঘটিকা হতে দুপুর ১২.৩০ ঘটিকা পর্যন্ত নির্ধারণ করা হলো। এক্ষেত্রে লেনদেন পরবর্তী আনুষাঙ্গিক কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংক শাখা এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ প্রয়োজনে অপরাহ্নে ২.০০ ঘটিকা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

০২। ০৫ এপ্রিল ২০২১ হতে ১১ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত উক্ত সময়ে লেনদেন চলাকালীন সময়ে:

ক) ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ও শাখাসমূহে জরুরি ব্যাংকিং সেবা অব্যাহত /নির্বিঘ্নে রাখার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় জনবলের বিন্যাস ও উপস্থিতির বিষয়টি ব্যাংক স্বীয় বিবেচনায় সম্পন্ন করবে। এক্ষেত্রে শাখার নিকটবর্তী স্থানে বসবাসরত  কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের উপস্থিতির বিষয়টি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনা করা যেতে পারে। জনস্বার্থে ব্যাংকিং সেবা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি কর্মকর্তা / কর্মচারীদের উপস্থিতি ও অফিসের কর্মপরিবেশে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ সংক্রান্ত সরকার ও বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা যথাযথভাবে পরিপালনের বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে।

খ) গ্রাহকদের হিসাবে সর্বপ্রকার জমা এবং উত্তোলন, ডিমান্ড ড্রাফট/ পে অর্ডার ইস্যু ও জমা গ্রহণ, ট্রেজারি চালান গ্রহণ, সরকারের বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমের আওতায় প্রদত্ত ভাতা/ অনুদান বিতরণ, বৈদেশিক রেমিট্যান্সের মেয়াদপূর্তিতে নগদায়ন ও কুপনের অর্থ পরিশোধ, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ইউটিলিটি (যথা: গ্যাস/ পানি/ বিদ্যুৎ/ টেলিফোন) বিল গ্রহণসহ বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক চালু রাখা বিভিন্ন পেমেন্ট সিস্টেমের /ক্লিয়ারিং ব্যবস্থার আওতাধীন অন্যান্য লেনদেন সুবিধান প্রদান নিশ্চিত করতে হবে।

গ) নগদ জমা ও উত্তোলন এর জন্য অনলাইনে সুবিধা সম্বলিত ব্যাংকসমূহের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের লেনদেনের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করে সিটি কর্পোরেশন ও জেলা সদরে কার্যরত যে সকল ব্যাংকের ২ (দুই)কিলোমিটারের মধ্যে একাধিক শাখা রয়েছে, সেক্ষেত্রে সুবিধাজনক একটি শাখা (অথরাইজড ডিলার শাখা ব্যতীত) হতে গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করার শর্তে অভ্যন্তুরীন সমন্বয়ের মাধ্যমে ব্যাংকিং সেবা পরিচালনা করা যাবে।

০৩। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের লেনদেন সময়সূচি ও কার্যক্রম বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকসমূহ স্বীয় বিবেচনায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হলো।

আপনাদের বিশ্বস্ত,

মো: আনোয়ারুল ইসলাম

মহাব্যবস্থাপক

সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা চালু থাকবে: বাংলাদেশ ব্যাংক পরিপত্র: ডাউনলোড

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.