ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ৩৫ লক্ষ টাকার চূড়ান্ত মঞ্জুরি আদেশ।

সরকার কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকি ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋণ প্রদানের লক্ষ্যে অর্থ বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত ০৬/০৩/২০১৯ খ্রি: তারিখের ০৭.০০.০০০০. ২০৬.৯৯ .০০৭.১৯.৪৭ নম্বর পরিপত্র অনুযায়ী ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান রুপালী ব্যাংক লি: তাদের ১১/০৬/২০২০ খ্রি: তারিখের এলওডি /সাজ/২০২০/৭৫০ নং স্মারকে ঋণগ্রহীতা মো: কাওছার আহম্মেদ-এর অনুকুলে শর্ত সাপেক্ষে ৩৫,০০,০০০/- (পয়ত্রিশ রক্ষ) টাকা ঋণ প্রদানের জন্য চূড়ান্ত মঞ্জুরি জ্ঞাপন করেছে।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

অর্থ মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ-১

বাজেট অনুবিভাগ-১, গৃহ নির্মাণ ঋণ কোষ

www.mof.gov.bd

স্মারক নং-০৭.০০.০০০০.২০৬.০২.০২৪.২০.৪০২; তারিখ: ১২ আগস্ট ২০২০ খ্রি:

প্রাপক: প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, অর্থ বিভাগ, সেগুনবাগিচা, ঢাকা।

বিষয়: সরকারি কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋণ প্রদান নীতিমালার আওতায় মো: কাওছার আহমেদ, পুলিশ পরির্দশক (নি:), এসবি অফিস, ঢাকা-এর অনুকূলে পরিশোধসূচী মোতাবেক গৃহ নির্মাণ ঋণে প্রদানে অর্থ বিভাগের সম্মতি এবং সরকার প্রদত্ত সুদ ভর্তুকির চূড়ান্ত মঞ্জুরি আদেশ।

 

সরকার কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকি ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋণ প্রদানের লক্ষ্যে অর্থ বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত ০৬/০৩/২০১৯ খ্রি: তারিখের ০৭.০০.০০০০.২০৬.৯৯.০০৭.১৯.৪৭ নম্বর পরিপত্র অনুযায়ী ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান রুপালী ব্যাংক লি: তাদের ১১/০৬/২০২০ খ্রি: তারিখের এলওডি/সাজ/২০২০/৭৫০ নং স্মারকে ঋণগ্রহীতা মো: কাওছার আহম্মেদ-এর অনুকুলে শর্ত সাপেক্ষে ৩৫,০০,০০০/- (পয়ত্রিশ রক্ষ) টাকা ঋণ প্রদানের জন্য চূড়ান্ত মঞ্জুরি জ্ঞাপন করেছে।

২। বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রেরিত তফসিল চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হল এবং পরিপত্রের ৮নং অনুচ্ছেদ মোতাবেক ঋণগ্রহীতার অনুকুলে ছকে বর্ণিত তথ্য অনুযায়ী সুদ ভর্তুকি প্রদানের চূড়ান্ত মঞ্জুরি জ্ঞাপন করা হলো:

ঋণগ্রহীতার নাম (এনআইডিসহ): মো: কাওছার আহমেদ NID নং ১৯৬৭৮৫৭৪৮৫৭৫৫

ঋণ প্রদান কারী প্রতিষ্ঠান: রুপালি ব্যাংক লি:, স্থানীয় অফিস, ঢাকা। হিসাব নম্বর: ০০৯৪৮৫৭৫৫

গৃহীত ঋনের পরিমাণ: ৩৫,০০,০০০০/- (পঁয়ত্রিশ লক্ষ) টাকা মাত্র।

গৃহীত বিতরণের তারিখ ও পরিমাণ: ০৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০; পরিমাণ: ৩৫ লক্ষ টাকা মাত্র।

ঋণ গ্রহনের কারণ: ফ্ল্যাট ক্রয়।

ঋণের ধরণ: একক

কিস্তি শুরুর তারিখ: ০৫ আগস্ট, ২০২০ খ্রি:

সুদ ভর্তুকি প্রদানের মাস: জুলাই, ২০২০ খ্রি:

মাসিক সুদ ভর্তুকির পরিমাণ: ১০,২০৫ (দশ হাজার দুইশত পাঁচ) টাকা মাত্র।

মোট সুদ ভর্তুকির পরিমাণ: ৯,৯৮,০১৩/- (আট লক্ষ আটানব্বই হাজার তের) টাকা।

সুদ ভর্তুকি সমাপ্তির তারিখ: ঋণের মেয়া পূর্তি পর্যন্ত। পিআরএল সমাপ্তির তারিখ: ২৭ নভেম্বর, ২০২৭ খ্রি:

 

তবে শর্ত থাকে যে,

ক) অর্থ বিভাগের সম্মতির পর এ বিভাগের পূর্বসম্মতি ব্যতীত এই তফসিল পরিবর্তন করা যাবে না।

খ) ঋণগ্রহীতা তাঁর মাসিক বেতন বিলের সাথে চূড়ান্ত তফসিল মোতাবেক সুদ ভর্তুকির টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। তবে পরিশোধিত ভর্তুকির পরিমাণ নীতিমালা অনুযায়ী প্রাপ্য অর্থের বেশি হতে ঋণগ্রহীতা এবং ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত অর্থ সরকারি কোষাগারে ফেরত দিতে বাধ্য থাকবেন।

গ) সুদ ভর্তুকি বাবদ প্রদেয় অর্থ এ বিভাগের পরিচালন বাজেটের আওতায় “১০৯০১০১১০১৪৩৫-১২০০০০৬০৩-৩৫১২১০৩” সরকারি কর্মচারীদের গৃহ নির্মাণ ঋণের সুদের উপর ভর্তুকি” কোড হতে পরিশোধ করা হবে।

ঘ) নীতিমালার ৪(গ) অনুচ্ছেদ অনুসারে প্রস্তাবিত ঋণগ্রহীতার নামীয় ব্যাংক হিসাব নম্বর এর মাধ্যমে ঋণ বিতরণ ও ঋনের মাসিক কিস্তির টাকা আদায়সহ তাঁর বেতন/ভাতা/পেনশন সংক্রান্ত সমুদয় কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

ঙ) ঋণগ্রহীতাকে এই মর্মে বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান/ব্যাংকের নির্ধারিত ফরমে ঋণ প্রদান করতে হবে যে, “তার ব্যাংক হিসাবে জমাকৃত মাসিক বেতন থেকে তফসিলে বর্ণিত ঋণের কিস্তির সমপরিমান (সুদ+আসল) টাকা কিস্তি হিসেবে কর্তনের পর অবশিষ্ট অর্থ তিনি উত্তোলন করবেন”।

(চ) ঋণ গ্রহীতা ঋণের মেয়াদ পূর্তি পর্যন্ত অথবা অবসর গ্রহণের ক্ষেত্রে পিআরএল সমাপ্তির তারিখ পর্যন্ত যেটি আগে সেই পর্যন্ত সরকার প্রদত্ত সুদ বাবদ ভর্তুকি সুবিধা প্রাপ্য হবে। অবসর গ্রহণের পর ঋণের কিস্তি অপরিশোধিত সুদের হার অপরিবর্তন রেখে প্রতিষ্ঠান গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে অবশিষ্ট ঋণ পুন:তফসিলীকরণ (Re-Schedule) করে নিতে পারবেন।

ছ) ঋণগ্রহীতা স্বেচ্ছায় চাকুরি ত্যাগ করলে অথবা সরকার কর্তৃক তাঁকে বাধ্যতামূলক অবসর প্রদান/চাকুরি হতে বরখাস্ত/চাকুরিচ্যূত করা হলে আদেশ জারির তারিখ হতে ঋণের অবশিষ্ট মেয়াদের জন্য সুদ বাবদ ভর্তুকি সুবিধা প্রত্যাহার করা হবে।

জ) কোন কারণবশত: Pay Point পরিবর্তন হলে ঋণগ্রহীতা অনতিবিলম্বে বিষয়টি বাস্তবায়নকারী সংস্থা এবং এ কার্যালয়েকে অবহিত করবেন এবং এ পরিবর্তনজনিত কারণে কিস্তি প্রদানের কোন জটিলতা দেখে দিলে তা নিরসনে উদ্যোগী হবে।

ঝ) কোন কর্মচারী বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজু এবং দুর্ণীতি মামলার ক্ষেত্রে চার্জশীট দাখিল হলে সাথে সাথে বিষয়টি এ কার্যালয়কে এবং সংশ্লিষ্ট বাস্তবায়নকারী সংস্থাকে অবহিত করতে হবে।

ঞ) ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে বাস্তবায়ণকারী প্রতিষ্ঠান “সরকারি কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ প্রদান নীতিমালা এবং অর্থ বিভাগের বিগত ২৪/০৯/২০১৯ খ্রি: তারিখে অনুষ্ঠিত সরকারি কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋন প্রদান সংক্রান্ত বিষয়ে গঠিত “ওয়ার্কিং (Working Committe)” -এর সভার সিদ্ধান্ত সমূহ যথাযথভাবে অনুসরণ করবে।

ট) এই মঞ্জুরীপত্রে কোন অস্পষ্টতা বা কোন অসামঞ্জস্যতা পরিলক্ষিত হলে অর্থ বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত ০৬/০৩/২০১৯ খ্রি তারিখের ০৭.০০.০০০০.২০৬.৯৯.০০৭.১৯.৪৭ নম্বর পরিপত্রের বিধানাবলী পরিপালনযোগ্য হবে।

 

(দিল আফরোজা)

উপসচিব

ফোন: ৯৫৪৬১২০

 

সরকারী কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ৩৫ লক্ষ টাকার চূড়ান্ত মঞ্জুরি আদেশ: ডাউনলোড

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.