সরকার ৯ম জাতীয় পে স্কেলের জন্য বাজেটে কোন অর্থ বরাদ্দ রাখে নি-নতুন পে স্কেল মানেই মূল্যস্ফিতি আরও বৃদ্ধি পাওয়া -তাছাড়া সরকারের সে আর্থিক সক্ষমতা নেই–৯ম পে স্কেল ২০২৪

নতুন পে স্কেল কি আসবে?–সোজা সাপটা উত্তর হচ্ছে “না”। নতুন পে স্কেল দিলে সেজন্য পর্যন্ত বাজেট বরাদ্দ রাখতে হয়। ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেটে সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাবদ ৪২ হাজার ১৬১ কোটি টাকা ব্যয় হবে। বেতন ভাতাদি প্রনোদনা সহ এ বরাদ্দ ৯ শতাংশ বাড়তে পারে। পেনশন ও গ্র্যাচুইটি ও অন্যান্য ব্যয় সহ এখাতে এক লাখ কোটি টাকার মতো ব্যয় হবে। এতে নতুন পে স্কেল  জারি করার চিন্তা সরকারের মাথায় থাকলে ১.৫ লাখ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ রাখা হতো তাই বাজেটের কথা চিন্তা করে পরিস্কার যে এ চলতি নতুন পে স্কেল নিয়ে সরকারের কোন মাথা ব্যাথা নেই।

কেন কর্মচারীরা পে স্কেল চাচ্ছে? পে-কমিশন গঠন পূর্বক বৈষম্য মুক্ত ৯ম পে স্কেল ঘোষনার মাধ্যমে বেতন বৈষম্য নিরসনসহ বেতন স্কেলের পার্থক্য সমহারে নির্ধারন ও গ্রেড সংখ্যা কমানো প্রয়োজন। পে-কমিশনে ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারি প্রতিনিধি না থাকলে পে স্কেলে ঠিক ঠাকমত কাঠামোগত করা হয় না। যে সকল কর্মচারি মূল বেতনের শেষ ধাপে পৌছে গেছে তাহাদের বাষরিক বেতন বৃদ্ধি নিয়মিত করা প্রয়োজন। এছাড়া টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড, বেতন জ্যৈষ্ঠতা পূর্ণবহাল, ব্লক পোষ্ট নিয়মিতকরণ সহ সকল পদে পদোন্নতি বা ৫ বছর পর পর উচ্চতর গ্রেড প্রদান জরুরি এবং বাজারমূল্যের উর্দ্ধগতি ও জীবন যাত্রার ব্যয় বৃদ্ধির সাথে সমন্বয় পূর্বক সকল ভাতাদি পুনঃনির্ধারণ ও ১১-২০ গ্রেডের চাকুরিজীবীদের রেশন ব্যবস্থা প্রবর্তন অথবা ন্যায্য মূল্যে সরকারি ভাবে পন্য সরবরাহ করা অত্যাবশ্যকীয় হয়ে পড়েছে।

পেনশন নাকি বাতিল হচ্ছে?  সকল সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত দপ্তর, অধিদপ্তরে কাজের ধরন অনুযায়ি পদনাম ও গ্রেড পরিবর্তনসহ এক ও অভিন্ন নিয়োগবিধি প্রনয়ণ করা প্রয়োজন। সকল স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে কর্মরত কর্মচারীদের গ্রাচ্যুয়িটির পরিবর্তে পেনশন প্রবর্তন সহ বিদ্যমান গ্রাচ্যুইটি/আনুতোষিকের হার ৯০% এর স্থলে ১০০% নির্ধারণ ও পেনশন গ্রাচ্যুইটি ১ টাকার সমান ৫০০ টাকা নির্ধারণের দাবী উঠেছে অন্যদিকে সরকার সর্বজনীন পেনশনে স্থানান্তরের ঘোষণা করছে। ফলে  গ্র্যাচুইটি, লাম্পগ্র্যান্ট ও জিপিএফ সুবিধা বাতিল হতে পারে। সরকার মূলত ব্যয় হ্রাসের জন্য এমন পদক্ষে নিচ্ছে বলে ধারা হয় হচ্ছে তাই নতুন পে স্কেল ঘোষনার সম্ভাবনা নেই।

মূল্যস্ফিতি নিয়ন্ত্রনের জন্য সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে এবং এজন্য খাদ্য দ্রব্যের উপর ২% ভ্যাট অব্যাহতি প্রদান করা হয়ে তাই সরকার কিছু প্রনোদনা বা বিশেষ সুবিধা ঘোষণা করলেও নতুন বেতন স্কেল জারি করবে না

সরকারি হিসেবেই গড় মূল্যস্ফিতি ১০% এর ঘরে ঘুড়ছে। শুধুমাত্র খাদ্যে মূল্যস্ফিতি ১৫% ছাড়িয়েছে। সেসরকারি হিসেবে মূল্যস্ফিতি ২০-২৫% ছাড়িয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে তাই নতুন পে স্কেল ঘোষনা করে সরকার মূল্যস্ফিতি বৃদ্ধি করতে চাইবে না।

Caption: Budget Allocation for Govt. Staff

সরকারি ঋণের পরিমাণ ২০২৫-২০২৭ । সরকার আগামী ৬ বছরে কি পরিমাণ বৈদেশিক ঋণ নিবে? 

  1. ২০২১-২২ —–১৬ লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকা।
  2. ২০২২-২৩—– ১৩ লাখ ৪৩ হাজার কোটি টাকা।
  3. ২০২৩-২৪—–১৮ লাখ ৪৩ হাজার কোটি টাকা।
  4. ২০২৪-২৫—– ২১ লাখ ৬২ হাজার কোটি টাকা।
  5. ২০২৫-২৬—- ২৪ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা
  6. ২০২৬-২৭—– ২৭ লাখ ৫৩ হাজার কোটি টাকা।

সরকারি বাজেটে কত টাকা ঘাটতি?

২০২৪-২৫ অর্থবছরের সামগ্রিক বাজেটে ২ লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা ঘাটতি ধরা হয়েছে । সরকার ঘাটতি অর্থ বৈদেশিক ঋণ ও দেশী ব্যাংক ঋনের মাধ্যমে পূরণ করবে। ১.৫ লক্ষ কোটি টাকা বৈদেশিক ঋণের মাধ্যমে সংগ্রহ করলেও অবশিষ্ট এক লক্ষ কোটি টাকা ব্যাংক ঋণের মাধ্যমে সংগ্রহ করতে হবে। বৈদেশিক ঋণ ও অনুদানের মাধ্যমে দের লক্ষ কোটি টাকা সংগ্রহ করা গেলেও ভঙ্গুর ব্যাংক ব্যবস্থা হতে কোন ভাবে ১ লক্ষ কোটি টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। দেশের বানিজ্যিক ব্যাংকগুলো প্রতিনিয়ত ৮.৫% রেপো রেটে কোটি কোটি টাকা ধার নিয়ে চলছে। সরকার ট্রেজারি বিলের মাধ্যমে ব্যাংক খাত থেকে ৩,১৯৮ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে। এছাড়াও সঞ্চয়পত্র ও ঋণ পত্র বিক্রি করেও সরকারকে অর্থের যোগান দিতে হচ্ছে তাই সরকার নতুন করে ব্যয় খাত বৃদ্ধি করবে না। নতুন পে স্কেল দিয়ে ব্যয় বৃদ্ধি ও মূল্যস্ফিতি বৃদ্ধি করবে না।

Next Pay Scale 2024 । ৯ম পে স্কেল কেন চাই

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3023 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *