জমির হেবার ঘোষণা বা হেবা দলিল শুধুমাত্র রক্তের সম্পর্ক রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য-ব্যতিক্রম বলতে শুধুমাত্র স্ত্রীকে হেবা করা যায় – হেবা দলিল করার নিয়ম ২০২৩

হেবা দলিল কি? মুসলিম আইন অনুযায়ী সম্পত্তি দান করা হলে তাকে দান বা হেবা বলে। পক্ষান্তরে সম্পত্তি হস্তান্তর আইন ১৮৮২-এর আওতায় যেকোনো ব্যক্তি ‌তাঁর সম্পত্তি দান করতে পারেন, যা রেভঃ বা দান হিসেবে পরিচিত। যেকোনো ধর্মের ব্যক্তি এই দান করতে পারে। আরো একধরনের দান আছে, যাকে বিনিময় দান বা হেবা বিল এওয়াজ বলে। মুসলিম আইন অনুযায়ী উইল বা ভবিষ্যৎ দানেরও বিধান রয়েছে। তা ছাড়া শর্তযুক্ত একধরনের দান আছে, যাকে হেবা বা শর্ত-উল এওয়াজ বলে।

স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে হেবা করার নিয়ম কী? দাতা ও গ্রহীতা দানকৃত সম্পত্তিতে বসবাস করলে কিভাবে দখল হস্তান্তর বোঝানো হয়, তা আগের অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে। স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে দান করলে একই নিয়মে দখল হস্তান্তর বোঝাতে হবে। যদি সম্পত্তি ভাড়া দেওয়া হয়ে থাকে, তাহলে ধরে নিতে হবে, দানের পর স্ত্রীর পক্ষে স্বামী ভাড়া আদায় করে থাকবেন। স্বামী যদি অস্থাবর সম্পত্তি অপ্রাপ্ত বয়স্ক স্ত্রীকে রেজিস্টার্ড দলিল-মূলে দান করে যে স্ত্রী ভালো-মন্দ বুঝতে পারে-এরূপ দান বৈধ।

হেবা/দান বৈধ হওয়ার শর্তবলী কি? দাতা কর্তৃক দানের (ইজাব) ঘোষণা প্রদান করবেন। গ্রহীতা বা তার পক্ষ হতে দান গ্রহন (কবৃল) করতে হবে। দাতা কর্তৃক গ্রহীতাকে দানকৃত সম্পত্তির দখল প্রদান করতে হবে। দান গ্রহণের পূবেই গ্রহীতা মারা গেলে দান বাতিল হয়ে যাবে।

হেবার ঘোষণাপত্র দলিল নমুনা ফরম / রক্তের সম্পর্ক ছাড়া কি হেবা করা যায় না? 

কোনো মুসলমান অন্য কোনো মুসলমানকে কোনো বিনিময় ব্যতিরেকে কোনো সম্পত্তি হস্তান্তর করলে তাকে হেবা বলে। হেবা সম্পন্ন করার জন্য তিনটি বিষয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ-হেবার প্রস্তাব, গ্রহীতার সম্মতি এবং দখল হস্তান্তর। স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তি হেবা করা যায়। একজন সুস্থ ও প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি তাঁর সমুদয় সম্পত্তি বা সম্পত্তির যেকোনো অংশ যে কাউকে হেবা করতে পারেন। সম্পত্তির আয় জীবনকালীন ভোগ করার অধিকার হেবা করা যায়। রক্তের সম্পর্ক ছাড়াও হেবা করা যায়- একজন মুসলিম তার সমগ্ব ভূ-সম্পত্তি যেকোনো ব্যক্তি হোক সে অমুসলিম বরাবরও দান করতে পারেন। অর্থাৎ গৃহীতার ক্ষেত্রে সাবালক, নাবালক, পুত্র, অপুত্র, স্বামী কিংবা স্ত্রী, ধনী-নির্ধন বালাই নেই, যে কাউকে দান করা যায় এবং তিনি বা তারা নির্বিবাদে দান গ্রহণ করতে পারেন।

হেবার ঘোষণা পূরণকৃত নমুনা

হেবার ঘোষণাপত্র দলিল নমুনা ফরম ডাউনলোড PDF  / Heba dolil word file download

হেবা রেজিস্ট্রেশন নিয়ম । হেবা দলিল রেজিস্ট্রি খরচ কত?

  1. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ৫০০ টাকা।
  2. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫ লাখ টাকার বেশি এবং ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ১ হাজার টাকা।
  3. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫০ লাখ টাকার বেশি হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ২ হাজার টাকা।
  4. তবে মুসলিম পারসোনাল ল অনুযায়ী স্বামী-স্ত্রী, পিতা- মাতা, সন্তান, দাদা-দাদি, নাতি- নাতনি, সহোদর ভাই-ভাই, সহোদর বোন-বোন, সহোদর ভাই-বোনের মধ্যে হেবা বা দান দলিলের রেজিস্ট্রি ফি মাত্র ১০০|=

জমি বা বাড়ির হেবা দলিল বাতিল করা যায় কি?

জমি বা বাড়ির দখল হস্তান্তরের আগে হেবা বাতিল করা যায়। দখল হস্তান্তরের পরও নিম্নলিখিত ক্ষেত্র ছাড়া হেবা বাতিল করা যায়। তবে এ ক্ষেত্রে কোর্টের ডিক্রি বা নির্দেশ প্রয়োজন হবে-স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে বা স্ত্রী কর্তৃক স্বামীকে দান হলে হবে না অথবা দাতা ও গ্রহীতার মধ্যে বিবাহের অযোগ্য সম্পর্ক বিদ্যমান থাকলে বাতিল করা যাবে না অথবা গ্রহীতা মৃত্যুবরণ করলে বাতিল করা যাবে না অথবা বিক্রয়, দান বা অন্য কোনো প্রকারে ওই সম্পত্তি গ্রহীতা কর্তৃক হস্তান্তরিত হয়ে থাকলে বাতিল করা যাবে না।

এছাড়াও

  • বিক্রয়, বস্তু হারিয়ে গেলে বা ধ্বংস হয়ে গেলে।
  • দানকৃত সম্পত্তির মূল্য বেড়ে থাকলে।
  • সম্পত্তির প্রকৃতি এমনভাবে পরিবর্তন করা, যা চেনা যায় না।
  • দাতা যদি কোনো বিনিময় গ্রহণ করে থাকেন।

দলিল সংশোধন করার নিয়ম । জমির দাগ, খতিয়ান, মৌজা, চৌহদ্দি বা নাম ভুল হলে কি তা সংশোধন করা যায়?

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2998 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *