Home

বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস এমন একটি ডেডিকেটেড ওয়েবসাইট যেখান থেকে আপনি খুব সহজেই আপনার কাঙ্খিত তথ্য খুজে পেতে পারেন।

সরকারি পরিপত্র, আদেশ, গেজেট, অফিস আদেশ, চাকরির বিধানাবলী, সার্ভিস রুলস ইত্যাদি যে কোন তথ্য https://bdservicerules.info/ এই ওয়েবসাইট হতে সার্চ করে খুজে নিতে পারবে। সরকারি কর্মচারিদের চাকরি সংক্রান্ত বিধি, রুলস সুযোগ সুবিধা ইত্যাদি এই ওয়েব সাইটে পেতে পারেন।

সরকারি চাকরির সুযোগ সুবিধা বর্ণনাকরা হলো

একজন সরকারি চাকরি জীবী চাকরিকালীন যে সকল সরকারি সুবিধা পাবেন, কি পরিমাণ ভাতা, বেতন ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক সুবিধা পাবেন তা সঠিক ভাবে এ ওয়েব সাইটে বর্ণনা করা হয়েছে। প্রতিটির পোস্টের রেফারেন্স যুক্ত করা হয়েছে। আপনি প্রত্যেকটি সিদ্ধান্ত বা প্রশ্নের উত্তরে রেফারেন্স খুজে পাবেন। একটি বই হতে কোন তথ্য খুজে পেতে সময় লাগতে পারেন কিন্তু আপনি গুগল বা বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস ওয়েব সাইটে সার্চ করে খুব সহজে যে কোন তথ্য বা প্রশ্নের উত্তর খুজে পেতে পারেন।

যে বিষয়গুলো আলোচনা করা হয়েছে তার একটি তালিকা বা সংক্ষিপ্ত সূচী তুলে ধরা হলো। 

বাড়ি ভাড়া

মূল বেতনের ৬০-৫০ শতাংশ হারে চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, সিলেট, বরিশাল, রংপুর, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, কক্সবাজার ও সাভার এলাকার জন্য। উপজেলা লেভেল এ মূল বেতনের ৪০-৪৫%।

চিকিৎসা ভাতা
মাসে কমপক্ষে ১ হাজার ৫০০ টাকা। অবসরভোগীদের ক্ষেত্রে ৬৫ বছরের কম বয়স্কদের জন্য মাসিক ভাতা ১ হাজার ৫০০ টাকা। ৬৫ বছরের বেশি বয়স্কদের জন্য ২ হাজার ৫০০ টাকা।

যাতায়াত ভাতা
দেশের সকল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কর্মরত চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে ১০ নম্বর থেকে ২০ গ্রেডে চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে যাতায়াত ভাতা মাসে ৩০০ টাকা।

গাড়ির সুবিধা
সার্বক্ষণিক গাড়ির সেবার জন্য প্রাধিকারভুক্ত কর্মকর্তাদের জন্য নগদায়নের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। রাখা হয়েছে সুদ বিহীন গাড়ি কেনার জন্য সুবিধা।

শিক্ষা সহায়ক ভাতা
সকল শ্রেণীর চাকরিজীবীদের সন্তান প্রতি মাসে ৫০০ টাকা, ২ সন্তানের জন্য ১ হাজার টাকা শিক্ষা সহায়ক ভাতা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড হতে বৃত্তি সুবিধা গ্রহনের ব্যবস্থা রয়েছে ১১-২০ তম গ্রেডের কর্মচারীদের জন্য।

টিফিন ভাতা
মাসে টিফিন ভাতা ২০০ টাকা। তবে যে সব চাকরিজীবী তাদের প্রতিষ্ঠান দুপুরের খাবার পান কিংবা দুপুরের খাবারের ভাতা পান তাদের জন্য এ টিফিন ভাতা প্রযোজ্য হবে না।

উৎসব ভাতা
সকল চাকরিজীবীদের জন্য প্রতি বছরে ২ মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ উৎসব ভাতা দেয়া হয়। একই সঙ্গে একজন অবসরভোগীর জন্য তার মাসিক নিট পেনশনের দ্বিগুণ হারে বছরে ২টি উৎসব ভাতা দেয়ার বিধান রাখা হয়েছে।

শ্রান্তি ও বিনোদন ভাতা
সকল শ্রেণীর চাকরিজীবীকে বর্তমান প্রচলিত প্রতি তিন বছর অন্তর ১৫ দিনের গড় বেতনে অর্জিত ছুটিসহ ১ মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ শ্রান্তি ও বিনোদন ভাতা হিসাবে মঞ্জুরের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ধোলাই ভাতা
৪র্থ শ্রেণীর চাকরিজীবীদের জন্য ধোলাই ভাতা মাসে ১০০ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এক্ষেত্রে ড্রাইভারসহ দাপ্তরিক পোশাক সরবরাহ করা হয়।

কার্যভার ভাতা
কার্যভার ভাতার শতকরা হার অপরিবর্তিত রেখে সর্বোচ্চ সীমা মাসে ১ হাজার ৫০০ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।

পোশাক পরিচ্ছদ সুবিধা
প্রচলিত নিয়মে পোশাক পরিচ্ছদ প্রদানের সুবিধা চালু রাখা হয়েছে।

পাহাড়ি ও দুর্গম ভাতা
পার্বত্য এলাকায় কর্মরত সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য মূল বেতনের ২০ শতাংশ হারে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা পাহাড়ি ভাতা পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে হাওড়-বাওড়, দুর্গম দ্বীপ অঞ্চলে উপকূলীয় ভাতাও চালু করা হয়েছে।

আপ্যায়ন ভাতা
মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও মূখ্য সচিব ৩ হাজার টাকা, সচিব ও সমপর্যায়ের কর্মকর্তা ২ হাজার ৫০০ টাকা, অতিরিক্ত সচিব ও সমপর্যায়ের কর্মকর্তা ২ হাজার টাকা, যুগ্ম সচিব ও সমপর্যায়ের কর্মকর্তাদের ১ হাজার ৫০০ টাকা সুপারিশ করা হয়েছে।

ভ্রমণ ভাতা
বদলিজনিত ভ্রমণ ভাতা ২০১৬ সালের প্রজ্ঞাপন মোতাবেক পুন: নির্ধারণ করা হয়েছে। বদলিজনিত কারণে প্রতি ১০০ কেজির জন্য প্রতি কি:মি: ২ টাকা হারে এবং ডিএ নির্ধারণে মূল বেতনকে ভিত্তি ধরা হয়েছে।

বিশেষ ভাতা
বাংলাদেশ পুলিশ, র‌্যাব, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা এসএসএফ ইত্যাদি বিভিন্ন সার্ভিসের জন্য বিশেষভাতা বেতন কাঠামোর নির্ধারিত রয়েছে।

অবসর ভাতা ও অন্যান্য সুবিধা
পেনশনযোগ্য চাকরিকাল প্রথম গ্রেড থেকে ২০ গ্রেড পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে পেনশনযোগ্য চাকুরিকাল ৫ বছর থেকে শুরু করে ২৫ বছর পর্যন্ত ৯০ শতাংশ করা হয়েছে। সাধারণত ২৫ বছরের আগে স্বেচ্ছায় পেনশনে যাওয়ার সুযোগ নাই।

বাধ্যতামূলক সমর্পিত ৫০ শতাংশ পেনশনের ক্ষেত্রে আনুতোষিকের হার ৫ বছর থেকে শুরু করে ২০ বছর পর্যন্ত প্রতি ১ টাকায় ২৭৫ টাকা থেকে শুরু করে ২৩০ টাকা করা হয়েছে।