জাতীয় সঞ্চয় পত্র কিনতে গিয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উদ্ভব হয় নিজের মনেই। আজ আপনার মনে জমে থাকা কিছু প্রশ্নের উত্তর তুলে ধরা হবে। কিভাবে কিনতে হয়, কোথা হতে কিনতে হয়, মুনাফা কত শতাংশ, ভেঙ্গে ফেলা যাবে কি? ইত্যাদি ইত্যাদি।

প্রশ্ন: জাতীয় সঞ্চয় অধিপ্তর কর্তৃক পরিচালিত বর্তমানে কতটি সঞ্চয় স্কিম রয়েছে ও কী কী?

উত্তর: জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত বর্তমানে ১১টি সঞ্চয় স্কিমে রয়েছে। এগুলো হচ্ছে-

  • ৫ মাস মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র
  • ৩-মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্র
  • পরিবার সঞ্চয়পত্র
  • পেনশনার সঞ্চয়পত্র
  • ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড
  • ইউ,এস,ডলার ইনভেস্টমেন্ট বন্ড
  • ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড
  • ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক (মেয়াদী হিসাব)
  • ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক (সাধারণ হিসাব)
  • ডাক জীবন বীমা এবং অ্যানুইটি
  • বাংলাদেশ প্রাইজ বন্ড

প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

উত্তর: জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত জেলা সঞ্চয় অফিস/ব্যুরোসমূহ, জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, ডাক অধিদপ্তরের আওতাধীন সকল পোস্ট অফিস, বাংলাদেশ ব্যাংক এবং তফসিলী ব্যাংক হতে সঞ্চয়পত্র ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়।

প্রশ্ন: সঞ্চয় হতে আহরিত মুনাফার উপর উৎসে আয়কর কর্তন প্রযোজ্য কি না?

উত্তর: সঞ্চয়পত্র হতে আহরিত মুনাফার উপর উৎসে আয়কর কর্তন প্রযোজ্য।

প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র হতে আহরিত মুনাফার উপর কি হারে উৎসে আয়কর কর্তন প্রযোজ্য?

উত্তর: পেনশনার সঞ্চয়পত্র ব্যতীত সকল প্রকার সঞ্চয়পত্রে, ক্রয়কাল নির্বিশেষে পুঞ্জিভূত বিনিয়োগের পরিমাণ ৫ লক্ষ টাকা অতিক্রম না করলে, এরুপ বিনিয়োগ হতে অর্জিত সুদের উপর (Income Tax Ordinance, 1984 এর Section 52D তে উল্লিখিত উৎসে কর কর্তনের হার ১০% হতে হ্রাস করে ৫% নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে পেনশনার সঞ্চয়পত্র ব্যতীত সকল ধরনের সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে হলে Income-tax Ordinance, 1984 এর Section 52D অনুযায়ী উৎসে কর কর্তনের হার ১০% প্রযোজ্য হবে।

প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্রের মুনাফার উপর উৎসে কর্তিত কর চূড়ান্ত করদায় হিসেবে বিবেচিত হবে কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, সঞ্চয়পত্রের মুনাফার উপর উৎসে কর্তিত কর চূড়ান্ত করদায় হিসেবে বিবেচিত হবে।

প্রশ্ন: উৎসে কর কর্তনের প্রত্যয়নপত্র কিভাবে পাওয়া যাবে?

উত্তর: সংশ্লিষ্ট অফিসে আবেদন করলে উৎসে কর কর্তনের প্রত্যয়ণপত্র পাওয়া যায়। 

প্রশ্ন: উৎসে কর কর্তনের প্রত্যয়নপত্রটি কত দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে?

উত্তর: উৎসে কর্তনের প্রত্যয়নপত্রটি এক দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে। 

প্রশ্ন: ৫-বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র কয় মেয়াদের জন্য স্বয়ংক্রিয় পুন: বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যায়?

উত্তর: ১ মেয়াদের জন্য। অর্থাৎ পরবর্তী ৫ বছরের জন্য স্বয়ংক্রিয় পুন: বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যাবে।

প্রশ্ন: কোন কোন সঞ্চয়পত্রে মাসিক ভিত্তিককে মুনাফা পাওয়া যাবে?

উত্তর: শুধুমাত্র পরিবার সঞ্চয়পত্রে মাসিক ভিত্তিকে মুনাফা প্রদান করা যায়।

প্রশ্ন: মেয়াদ পূর্তির আগে সঞ্চয়পত্র নগদায়ন করা যায় কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, মেয়াদ পূর্তির আগেও সঞ্চয়পত্র নগদায়ন করা যায়।

প্রশ্ন: কোন কোন সঞ্চয়পত্রে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে?

উত্তর: শুধুমাত্র ৫ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্রে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে।

প্রশ্ন: কোন কোন প্রতিষ্ঠান ৫ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র ক্রয় করতে পারবে?

উত্তর: আয়কর বিদিমালা, ১৯৮৪ (অংশ-২) এর বিধি-৪৯ এর উপবিধি (২) এ সংজ্ঞায়িত স্বীকৃত ভবিষ্য তহবিল এবং ভবিষ্য তহবিল আইন, ১৯২৫ (১৯২৫ এর ১৯ নং) অনুযায়ী পরিচালিত ভবিষ্য তহবিল; এবং আয়কর অধ্যাদেশ -১৯৮৪ এর ৬ষ্ঠ তফসিল এর পার্ট এ এর অনুচ্ছেদ-৩৪ অনুযায়ী মৎস খামার, হাসমুরগির খামার, পলিট্রেড পল্ট্রি ফিডস উৎপাদন, বীজ উৎপাদন, স্থানীয় উৎপাদিত বীজ বিপণন, গবাদি পশুর খামার দুদ্ধ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যের খামার, ব্যাঙ উৎপাদন খামার, উদ্যান খামার প্রকল্প, রেশন গুটি পোকা পালনের খামার, ছত্রাক উৎপাদন এবং ফল ও লতা পাতার চাষ হতে অর্জিত আয়-যা সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনার কর্তৃক প্রত্যয়নকৃত।

প্রশ্ন: একজন ব্যক্তি একাধিক সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করতে পারবেন কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, ক্রয়ের যোগ্যতা থাকলে একজন ব্যক্তি একাধিক সঞ্চয় স্কিমে বিনিয়োগ করতে পারবেন। তবে ৫ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র, পরিবার সঞ্চয়পত্র, ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক সাধারণ হিসাব এবং ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক-মেয়াদী হিসাব এ একত্রে একক নামে সর্বোচ্চ ৫০ লক্ষ অথবা যুগ্ন নামে সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা বিনিযোগ করা যায়।

প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের উর্ধ্বসীমা কত?

উত্তর: পেনশনার সঞ্চয়পত্রে একক নামে সর্বোচ্চ ৫০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করা যায়।

প্রশ্ন: নমিনি কি যে কোন সময় পরিবর্তন করা যায়?

উত্তর: গ্রাহকের চাহিদার ভিত্তিতে যে কোন সময় নমিনী পরিবর্তন করা যায়।

প্রশ্ন: স্বয়ংক্রিয় পুন: বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এবং মুনাফার অর্থ কি পুরোটাই বিনিয়োগযোগ্য?

উত্তর: হ্যাঁ, তবে মূল এবং মুনাফার মোট অর্থ উর্ধ্বসীমার অতিরিক্ত হতে পারবে না।

প্রশ্ন: তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মেয়াদ কত বছর?

উত্তর: ৩ (তিন) বছর।

প্রশ্ন: তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মুনাফা কত দিন পর পাওয়া যাবে?

উত্তর: ক্রয়ের তারিখ হতে প্রতি তিনমাস পর পর গ্রাহক মুনাফা প্রাপ্ত হবেন।

প্রশ্ন: তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্র কারা ক্রয় করতে পারেন?

উত্তর: ১৮ বা তদুর্ধ্ব বয়সের সকল শ্রেণী/পেশার বাংলাদেশী নাগরিক (জাতীয় পরিচয়পত্রধারী) একক বা যুগ্ন নামে এ সঞ্চয়পত্র কিনতে পারবেন।

প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্র কাদের জন্য প্রযোজ্য?

উত্তর: অবসরপ্রাপ্ত সরকারী, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা / কর্মচারীগণ, সুপ্রীম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত মাননীয় বিচারপতিগণ, সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য এবং উল্লিখিত ক্যাটাগরিতে মৃত চাকুরীজীবীর পারিবারিক পেনশন সুবিধাভোগী স্বামী/স্ত্রী/সন্তানগণের জন্য প্রযোজ্য।

প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্রের মুনাফা কত দিন পাওয়া যাবে?

উত্তর: ক্রয়ের তারিখ হতে প্রতি তিনমাস অন্তর ৫ বছর যাবৎ পাওয়া যাবে।

 প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্র ক্রয় করতে কি কি লাগবে?

উত্তর: (ক) ক্রেতার ২ কপি (পিপি সাইজ) সত্যায়িত ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি; টিআইএন সনদ এর কপি (খ) পেনশনধারীর প্রাপ্ত আনুতোষিক ও ভবিষ্য তহবিলের মঞ্জুরীপত্র এবং পেনশন বই এর ফটোকপি।

প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্রে কত টাকা বিনিয়োগ করা যাবে?

উত্তর: পেনশনধারীর প্রাপ্ত আনুতোষিক ও ভবিষ্য তহবিলের অর্থ মিলিয়ে একক নামে সর্বোচ্চ ৫০ লক্ষ টাকা।

 প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্র যোগ্য নামে ক্রয় করা যাবে কিনা এবং এ সঞ্চয়পত্রে মুনাফার হার কত?

উত্তর: পেনশনার সঞ্চয়পত্র যৌথ নামে ক্রয় করা যায় না এবং এ সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার ১১.৭৬%।

 প্রশ্ন: পরিবার সঞ্চয়পত্র কারা ক্রয় করতে পারবে?

উত্তর: ১৮ (আঠা) বা তদুর্ধ্ব বয়সের যে কোন বাংলাদেশী মহিলা, যে কোন বাংলাদেশী প্রাপ্ত বয়স্ক শারীরিক প্রতিবন্ধী (পুরুষ ও মহিলা) এবং ৬৫ (পয়ষট্টি) ও তদুর্ধ্ব বয়সের যে কোন বাংলাদেশী পুরুষ।

 প্রশ্ন: শারীরিক প্রতিবন্ধী পরিবার সঞ্চয়পত্র ক্রয় করার জন্য কোন প্রমাণপত্র লাগবে কি?

উত্তর: হ্যাঁ, প্রমাণপত্র লাগবে।

 প্রশ্ন: পরিবার সঞ্চয়পত্র কি যৌথভাবে ক্রয়ের সুযোগ আছে ?

উত্তর: না, শুধুমাত্র একক নামে এই সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা যায়।

 প্রশ্ন: পরিবার সঞ্চয়পত্র্রের মুনাফা কত?

উত্তর: মেয়াদান্তে মুনাফা ১১.৫২%।

 প্রশ্ন: পরিবার সঞ্চয়পত্রের উর্ধ্বসীমা কত?

উত্তর: পরিবার সঞ্চয়পত্রের উর্ধ্ব সীমা ৪৫ (পঁতাল্লিশ) লক্ষ টাকা।

 প্রশ্ন: পরিবার সঞ্চয়পত্রের মুনাফা কিভাবে প্রদেয়?

উত্তর: ক্রয়ের তারিখ হতে প্রতি মাসে গ্রাহক মুনাফা প্রাপ্য হবেন।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র কোথায় ভাঙ্গানো বা নগদায় করা যায়?

উত্তর: সঞ্চয়পত্র যে ইস্যু অফিস হতে ক্রয় করা হয়েছে সে ইস্যু অফিস হতে ভাঙ্গানো / নগদায়ণ করা যায়্

 প্রশ্ন: জন্ম নিবন্ধন/পাসপোর্ট দিয়ে সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা যাবে কিনা?

উত্তর: না।

 প্রশ্ন: নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর কি বাধ্যতামূলক?

উত্তর: হ্যাঁ।

 প্রশ্ন: একাধিক নমিনি যুক্ত করা যাবে কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, করা যাবে।

 প্রশ্ন: নাবালককে নমিনি করা যাবে কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, করা যাবে। তবে নাবালকের পক্ষে প্রাপ্ত বয়স্ক একজনের জাতীয় পরিচয়পত্রের কপিসহ সনাক্তকারী হিসেবে দেখাতে হবে।

 প্রশ্ন: চেকের মাধ্যমে কত লক্ষ টাকা পর্যন্ত সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা যাবে?

উত্তর: একজন গ্রাহক সঞ্চয়পত্রের উর্ধ্বসীমা পর্যন্ত চেকের মাধ্যমে ক্রয় করতে পারবে।

 প্রশ্ন: মূল ও মুনাফার টাকা কি স্বয়ংক্রিয়ভাবে জমা হবে?

উত্তর: বর্তমানে অনলাইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে ক্রেতার প্রদানকৃত চেকের হিসাব নম্বরেই সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও আসল EFT এর মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে জমা হবে।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র কিনতে ফরম পূরণ করতে হবে কি?

উত্তর: হ্যাঁ, সঞ্চয়পত্র ক্রয় করার জন্য নির্দিষ্ট ক্রয় ফরম পূরণ করতে হবে।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র ক্রয় ফরমের সাথে কি কি কাগজপত্র প্রদান করতে হয়?

উত্তর: ক) ক্রেতা ও নমিনি প্রত্যেকের ২ (দুই) কপি পাসপোর্ট আকারের সত্যায়িত ছবি (ক্রেতার ছবি ১ম শ্রেণীর কর্মকর্তা কর্তৃক ও নমিনির ছুটি ক্রেতা কর্তৃক সত্যায়িত) খ) ক্রেতা ও নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি (নমিনি নাবালক হলে তার জন্মনিবন্ধন এবং প্রত্যয়নকারীর জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি) গ) ক্রেতাগণ এর ETIN সার্ফিফিকেটের কপি; ঘ) গ্রাহকের নিজ ব্যাংক হিসাবের MICR চেকের কপি।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রে ই-টিন নম্বর বাধ্যতামূলক কি?

উত্তর: অর্থ বছরে এক লক্ষ টাকার অধিক সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রে ই-টিন বাধ্যতামূলক।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্রে নমিনি মনোনয় বাধ্যতামূলক কি?

উত্তর: না।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্রে শতকরা হারে নমিনী মনোনয়ন করা আবশ্যকতা কি?

উত্তর: সঞ্চয়পত্রে শতকরা হারে নমিনি মনোনয়ন করা হলে ক্রেতার মৃত্যুর পর নমিনিগণের মাঝে প্রাপ্ত অর্থ নিয়ে কোনরূপ বিবাদ ঘটার আশংকা থাকে না।

 প্রশ্ন: নমিনী মনোনীত না থাকলে ক্রেতা মারা গেলে সঞ্চয়পত্র কে নগদায়ন করবে?

উত্তর: সঞ্চয়পত্রের ক্রেতা মারা গেলে ক্রেতার উত্তরাধিকারীগণ আদালত প্রদত্ত উত্তরাধিকার সনদপত্র অনুযায়ী সঞ্চয়পত্র নগদায়ন করতে পারবেন।

 প্রশ্ন: বিনিয়োগকারী ও নমিনি উভয়ে মারা গেলে সঞ্চয়পত্র কে নগদায়ন করবে?

উত্তর: ক্রেতার আইনানুগ উত্তরাধিকারীগণ আদালত প্রদত্ত উত্তরাধিকার সনদপত্র অনুযায়ী নগদায়ন করতে পারবেন।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্র কখন ভাঙ্গালে মুনাফা পাওয়া যায় না?

উত্তর: সকল প্রকার সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের তারিখ হতে ১ (এক) বছর পূর্তির পূর্বে নগদায়ন/ ভাঙ্গালে কোন মুনাফা পাওয়া যায় না।

 প্রশ্ন: পেনশনার সঞ্চয়পত্রের মুনাফার উপর উৎসে আয়কর কর্তন করা হয় কি?

উত্তর: পেনশনার সঞ্চয়পত্রের ক্ষেত্রে মোট বিনিয়োগ ৫ লক্ষ টাকা অতিক্রম না করলে প্রাপ্য মুনাফা হতে উৎসে আয়কর কর্তন প্রযোজ্য হবে না এবং ৫ লক্ষ টাকার অতিরিক্ত সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা হলে সম্পূর্ণ ক্রয়ের বিপরীতে প্রাপ্য মুনাফা হতে নির্ধারিত হারে উৎসে আয়কর কর্তন করা হবে।

 প্রশ্ন: ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে ক্রয়কৃত সঞ্চয়পত্র হারিয়ে গেলে কি করতে হবে?

উত্তর: প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার পর “ডুপ্লিকেট” সঞ্চয়পত্র পাওয়া যাবে।

 প্রশ্ন:সঞ্চয়পত্র লিয়েন করে বা জামানত রেখে ব্যাংক ঋণ নেয়া যায় কিনা?

উত্তর: না, সঞ্চয়পত্র লিয়েন করে বা জামানত রেখে ব্যাংক ঋণ নেয়া যায় না।

 প্রশ্ন: নমিনীর ব্যাংক হিসাব নম্বর ও E-TIN নম্বর ব্যতীত সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা যায় কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, যাবে।

 প্রশ্ন: ০১/০১/২০১৯ তারিখের পূর্বে ক্রয়কৃত সঞ্চয়পত্রের মুনাফা কি হারে উৎসে আয়কর কর্তন করা হবে?

উত্তর: যখনই ক্রয় করা হোক না কেন সকল প্রকার সঞ্চয়পত্রের মুনাফা প্রদানকালে বিদ্যমান সরকারী নির্দেশানুযায়ী প্রযোজ্য হারে মুনাফা হতে উৎসে আয়কর কর্তন করতে হবে।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্রের ক্রয় ফরম কোথায় পাওয়া যায়?

উত্তর: সঞ্চয়পত্র বিক্রয়কারী অফিস থেকে সঞ্চয় অধিদপ্তরের ওয়েব সাইট থেকে সঞ্চয়পত্রের ক্রয় ফরম Download করে তা ব্যবহার করা যাবে।

 প্রশ্ন: সঞ্চয়পত্রের ক্রয়সীমার অতিরিক্ত সঞ্চয়পত্র ক্রয় করলে কোন মুনাফা পাওয়া যাবে কি?

উত্তর: ক্রয়সীমার অতিরিক্ত সঞ্চয়পত্রের উপর কোন মুনাফা পাওয়া যাবে না।

 প্রশ্ন:বিনিয়োগকারী মনোনীত ব্যক্তি সঞ্চয়পত্রের মূল অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন কি?

উত্তর: না।

 আরও আসছে………………..

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3024 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *