ফত’ওয়া বিভাগের মতে জিপিএফ এ প্রদত্ত অতিরিক্ত অর্থ সুদ নয়।

ফত’ওয়া নং ৭০৫১, গত ২২/০৭/২০১৪ খ্রি: তারিখের ফত’ওয়া বিভাগ জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, সাত মসজিদ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭ এর পত্রের মাধ্যমে জিপিএফ এর অতিরিক্ত প্রদত্ত অর্থ সুদ কিনা তার উত্তরে জানানো হয় যে,

সরকারি বিধি মোতাবেক বাধ্যতামূলক/ আবশ্যিকভাবে জিপি ফান্ডে (জেনারেল প্রভিডেন্ট ফান্ড) বেতন কর্তন করে পরবর্তিতে তার সাথে যে অতিরিক্ত টাকা দেয়া হয় শরিয়তের দৃষ্টিতে তা সুদ নয়।

পত্রে আরও বলা হয়েছে, তাই তা গ্রহণ করা বৈধ। আর এ ফান্ডে চাকরিজীবীর স্বেচ্ছায় রাখা টাকার অতিরিক্ত অংশটা সদকা করে দেয়া চাই।

ফত’ওয়া বিভাগের মতে জিপিএফ এ প্রদত্ত অতিরিক্ত অর্থ সুদ নয় এ সংক্রান্ত অনুচ্ছেদ সংযুক্ত করা হলো: ডাউনলোড

ফতোয়া বিভাগ, জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, সাত মসজিদ মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭, ফতোয়া নং: ২৬৭৯/গ, তারিখ: ২৮/০৭/২০১৯, মোবাইল ০১৮১৬৩৬৭৯৭৫, www.rahmaniadhaka.com

উত্তর: বাধ্যতামূরক প্রভিডেন্ট ফান্ডে জমাকৃত মূল টাকার উপর প্রদেয় অতিরিক্ত অংশ সুদ নয়। সুতরাং তা গ্রহণ করা বৈধ হবে। আর প্রভিডেন্ট ফান্ডে বাধ্যতামূলক নয় বরং ঐচ্ছিক টাকা রাখা থেকে বিরত থাকা কর্তব্য, ঐচ্ছিক টাকা উপর অতিরিক্ত যা দেওয়া হবে তা গ্রহণ করা জায়েয নয়।

ফত’ওয়া বিভাগের মতে জিপিএফ এ প্রদত্ত অতিরিক্ত অর্থ সুদ নয় এ সংক্রান্ত ২০১৯ সালের আদেশ: ডাউনলোড

 

বিভিন্ন প্রকার আদেশ থেকে সুদ /ইনক্রিমেন্ট শব্দটি উঠিয়ে দেয়ার জন্য সরকার ১৭ জুন ২০২০ তারিখে জিপিএফ এ জমাকৃত অর্থের উপর ইনক্রিমেন্ট সুদ নয় মুনাফা হিসাবে গণ্য হবে: ডাউনলোড

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

One thought on “ফত’ওয়া বিভাগের মতে জিপিএফ এ প্রদত্ত অতিরিক্ত অর্থ সুদ নয়।

  • 16/08/2020 at 5:48 am
    Permalink

    ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.