সরকারি চাকরিতে নিজ দপ্তরে বিভাগী প্রার্থী হিসেবে বা অন্য কোন দপ্তরে চাকরির আবেদন, মৌখিক পরীক্ষার অনুমতি কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করে দিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

সহকারী শিক্ষকগণের অন্য চাকরিতে আবেদনের অনুমতি কার কাছে থেকে নিতে হবে? – সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের যেকোন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় আবেদন, লিখিত পরীক্ষার অনুমতি এবং মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ছাড়পত্র প্রদানের দায়িত্ব জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের নিকট ন্যস্ত থাকবে। এছাড়া প্রধান শিক্ষকদের চাকরি সংক্রান্ত যেকোন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় আবেদন এবং লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুমতির দায়িত্ব বিভাগীয় উপপরিচালকগণের নিকট ন্যস্ত করা হলো এবং চুড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ছাড়পত্র প্রদান করবে মহাপরিচালক, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

বিভাগীয় প্রার্থী বলতে বুঝায় যে দপ্তরে কর্মরত আছেন সেই দপ্তরের জব সার্কুলারে প্রার্থী হওয়া। বিভাগীয় প্রার্থী বলতে চট্টগ্রাম , রাজশাহী , খুলনা , বরিশাল , সিলেট , ঢাকা , রংপুর , ময়মনসিংহ এই ৮টি বিভাগের প্রার্থী নয়। বিভাগ বলতে সার্কুলার বা চাকরির বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠান বা যে দপ্তর বা অধিদপ্তরে চাকরি করেন সেই বিভাগ কে বুঝায়।

আমরা প্রায়ই চাকরির বিজ্ঞপ্তিতে দেখতে পাই যে, বিভাগীয় প্রার্থী হলে ৩৫ বছর পর্যন্ত চাকরির বয়স শিথীলযোগ্য বা বিভাগীয় প্রার্থী অগ্রাধিকার পাবেন। এই বিভাগীয় প্রার্থী বলতে বোঝানো হয়, সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যারা কর্মরত আছেন তাদের মধ্যে যদি কেউ চাকরির আবেদন করেন তবে তারা অগ্রাধিকার পাবেন বা বয়স শিথীলতা পাবেন।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের ২০১৯ সালের একটি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে চাকরির শর্তাবলীতে উল্লেখ রয়েছে যে, “বিভাগীয় প্রার্থীদের জন্য বয়সসীমা ৩৫ বছর পর্যন্ত শিথীলযোগ্য” । বিজ্ঞপ্তিতে একই সাথে ৩টি পদ অর্থাৎ অফিস সহায়ক, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক, সাঁটমুদ্রাক্ষরিক পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হয়েছে। এক্ষেত্রে উক্ত মন্ত্রণালয়ে অফিস সহায়ক পদে যদি কেউ নিয়োজিত বা কর্মরত থাকেন, তার ক্ষেত্রে বিভাগীয় প্রার্থী হিসাবে অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক বা সাঁটমুদ্রাক্ষরিক পদে চাকরির আবেদন করলে তিনি ৩৫ বছর পর্যন্ত বয়স শিথীলতা পাবেন। চাকুরি হলে তিনি ২০ তম গ্রেড হতে ১৬ তম গ্রেডে চাকরিতে যোগদান করতে পারবেন, এক্ষেত্রে তিনি চাকরির বয়স বা চাকরিকাল গননা এবং বেসিক বজায় রেখে যোগদান করতে পারবেন।

অন্য চাকরিতে আবেদনের অনুমতি ও ছাড়পত্র কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ / কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত অন্য চাকরিতে আবেদন করা দন্ডনীয় অপরাধ।

সরকারি চাকরি চাইলে আপনি যে কোন সময় ছেড়ে দিতে পারবেন কিন্তু আপনি অন্য চাকরিতে বর্তমান কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত বা ছাড়পত্র ছাড়া যোগদান করতে পারবেন না।

Caption: Permission for Job Application or Viva Voce 

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃপক্ষ । পর্যায়ক্রমে কর্তৃপক্ষ পরিবর্তিত হইবে

  1. সহকারী শিক্ষক
  2. প্রধান শিক্ষক
  3. জেলা শিক্ষা অফিসার
  4. উপ-পরিচালক
  5. পরিচালক
  6. মহাপরিচালক

বিভাগীয় প্রার্থী হয়ে আবেদন করলে কি সুবিধা?

বিভাগীয় প্রার্থী হলে বয়স শিথীলতা পাওয়া যায়। এতে করে যদি কেউ অফিস সহকারী হিসাবে ১৬ তম গ্রেডে চাকরিরত অবস্থায় থাকেন এবং সে চাকরি যদি ৭-১০ বছর করার পর তার বয়স ৩৩-৩৫ হয়ে থাকে তবুও তিনি নতুন সার্কুলারে আবেদন করতে পারেন। এতে করে তিনি ১৬ গ্রেডে এত বছর চাকরি করেও ১৩ গ্রেডের সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে চাকরি নিতে পারেন তাতে তার বর্তমান বেসিক নতুন সার্কুলারে ১৩ গ্রেডের স্কেল অতিক্রমে করলেও তিনি তার বর্তমান বেসিক নিয়েও নতুন গ্রেড বা পদে চাকরি উক্ত বেসিকেই গ্রহণ করতে পারেন। বেতন সংরক্ষণ কি? বেতন সংরক্ষণে কি কি কাগজপত্র লাগে?

বিভাগীয় প্রার্থী ২০২৩ । বিভাগীয় প্রার্থী কে এবং সুবিধা কি পাওয়া যায়?

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3002 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *