সরকারি কর্মচারীগণের পেনশন সহজীকরণ আদেশ, ২০২০ এর ৪.১২ নং অনুচ্ছেদ মোতাবেক একজন সরকারি কর্মচারী বিরুদ্ধে যদি ফৌজদারি মামলা চলমান থাকে তবুও পেনশন প্রাপ্য হইবেন।

(ক) অবসরে গমনকারী কর্মচারীর বিরুদ্ধে কোনো বিভাগীয় মামলা থাকিলে কল্যাণ কর্মকর্তাকে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষের সহিত যোগাযোগক্রমে অবসরগমনের ০১ (এক) বৎসরের মধ্যে তাহা নিষ্পত্তির উদ্যোগ গ্রহণ করিতে হইবে। বিভাগীয় মামলা যথাসময়ে নিষ্পত্তির বিষয়টি কল্যাণ কর্মকর্তা নিয়মিত মনিটিরং করিবেন।

(খ) বিভাগীয় মামলা যখনই দায়ের করা হউক না কেন তাহা সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর চূড়ান্ত অবসরগ্রহণের ০১ (এক) বৎসর সময়ের মধ্যে নিষ্পিত্ত করিতে হইবে।

(গ) কোন সরকারি কর্মচারী চাকরি হইতে অপসারণ বা বরখাস্ত হইলে তিনি কোন অবসর সুবিধা প্রাপ্য হইবেন না। তবে সরকার বিশেষ বিবেচনায় অনুকম্পা হিসাবে তাহাকে অবসর সুবিধা প্রদান করিতে পারিবে।

(ঘ) কোন সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা বিচারাধীন থাকা সত্ত্বেও ঐ মামলায় সরকারের কোন আর্থিক সংশ্লেষ না থাকিলে তিনি অবসর সুবিধাদি প্রাপ্য হইবেন।

 

রেফারেন্স হিসাবে সরকারি কর্মচারীগণের পেনশন সহজীকরণ আদেশ, ২০২০ দেখে নিতে পারেন: ডাউনলোড

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3003 posts and counting. See all posts by admin

7 thoughts on “বিভাগীয়/বিচারিক কার্যক্রম চালু থাকিলে অবসরকালীন সুবিধাদি।

  • সরকারি কাজ করতে গিয়ে মামলায় জড়ালে চাকরি থাকাকালীন সরকারি সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে অবসরের পরে কোন সরকারি সুবিধা প্রাপ্য নয়। অন্যদিকে ব্যক্তিগত মামলায় জড়ালে সরকার মামলা চালাতে কোন আর্থিক সুবিধাই দিবে না বরাং গ্রেফতার বা কারাগারে নিতে সরকারের অনুমতি নিতে হবে না। তবে ১ বছরের বেশি সময়ের জন্য দন্ডিত হলে চাকরি হতে বরখাস্ত করা হবে। ব্যক্তিগত মামলায় কারাবাসে সাময়িক বরখাস্ত হবেন।

  • উপরোক্ত কথার স্বপক্ষে সুনির্দিষ্ট আইনের ধারা উল্লেখ করুন, অন্যথায় এ ধরনের মন্তব্যে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করবে।

  • মন্তব্য সঠিক আছে। আপনি সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ অনুসরণ করুন।

  • আপনি বলেছেন, ব্যাক্তিগত মামলায় জড়ালে সরকার কোন সুবিধাই দিবে না।
    সরকারি চাকরি আইন,২০১৮ এর ধারা ৫১(১) এ বলা হয়েছে, মামলার সাথে সরকারি অর্থের সংশ্লেষ থাকলে পিএফ নিজ জমার টাকা বাদে অন্য কোন অবসর সুবিধা দেয়া হবে না। অপরদিকে, পেনশন সহজীকরণ আদেশ-২০২০ এর ধারা ৪.১২(ঘ) এ সুনির্দিষ্টভাবে বলা হয়েছে, কোন সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা বিচারাধীন থাকা সত্বেও ঐ মামলায় সরকারি অর্থের সংশ্লেষ না থাকলে অবসর সুবিধা পাওয়া যাবে (এখানে ব্যক্তিগত কিম্বা বিভাগীয় কিছুই বলা হয়নি)। একমাত্র গুরুতর অপরাধে দন্ডিত/দোষী সাব্যস্থ হলে সরকার অবসর সুবিধা সম্পূর্ণ/আংশিক বাতিল করতে পারবে যা চাকরি আইন-২০১৮ এর ৫১(৪) এ বলা হয়েছে। আর গুরুদন্ডে দন্ডিত হয় বিচারকার্য পূর্ণ নিষ্পন্ন হওয়ার পর। কিন্তু বিচার চলাকালেও অবসর সুবিধা পাওয়া যাবে, যদি সরকারি অর্থের সংশ্লেষ না থাকে।

    আপর মন্তব্যটি করেছেন, সরকারি কাজ করতে গিয়ে মামলায় জড়ালে চাকরি থাকাকালীন সরকারি সুবিধা পাওয়া যাবে। চলমান চাকরিওতো একটি সরকারি কাজ। ধারা-৩৯(২) এ বলা আছে, কোন সরকারি কর্মচারি দেনার দায়ে কারাগারে গেলে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করতে হবে। অপরদিকে ধারা-৩৯(৩) এ বলা হয়েছে, মামলার দায় থেকে খালাস পেলে সাময়িক বরখাস্ত আদেশে প্রত্যাহার করতে হবে (এটা কি চাকরিতে বিদ্যমান থাকাবস্থায়?)। সাময়িক বরখাস্ত অবস্থায় খোরাকী ভাতা পাওয়া যায়।
    যেহেতু আপনার এই ওয়েবসাইটটি থেকে নিঃশ্বন্দেহে অনেকেই উপকৃত হচ্ছে, তাই ব্যাক্তিগত মামলায় জড়ালে সরকার কোন সুবিধা দিবে না কিম্বা সরকারি কাজ করতে গিয়ে মামলায় জড়ালে চাকরি থাকাকালীন সরকারি সুবিধা পাওয়া যাবে, বিষয়গুলো সরকারি চাকরি আইন-২০১৮ এর কোন্ ধারায় বলা আছে, দয়া করে আইনের সুনির্দিষ্ট ধারাগুলো উল্লেখ করলে সবাই উপকৃত হবে।

  • দু:খিত। আমি বিষয়টি ক্লিয়ার করতে পারিনি। কোন সুবিধাই দেবে না বলতে মামলার ব্যাপারে কোন আর্থিক সুবিধা দিবে না। এর মানে এই নয় যে, আপনি কোন পেনশন বা অন্য কোন সুবিধা পাবেন না।

  • Any government employee involved in any personal or departmental case while working will be suspended from service, then no other government benefits will be available except food allowance.
    Any Government servant, if he is acquitted of the charge or suit brought against him while in service, the order of suspension shall be set aside in order to continue his service. But if an employee attains retirement age while under suspension, in that case he will get all the retirement benefits, even if the individual or departmental criminal case is pending, but no government money can be involved in the case. Retirement benefits and other pay benefits for the period of suspension must wait until the case is fully resolved and proven innocent.

  • Yes You are right. Thank You for your valuable comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *