বাংলাদেশ সরকার প্রতি বছরই জুন মাসে জুলাই-জুন অর্থ বছরের জন্য বাজেট পেশ করে থাকে। তারই ফলশ্রুতিতে ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট করছেন অর্থ মন্ত্রী। ১লা জুন সাধারণ বাজেট পেশ করা হয়, আলোচনা ও যুক্তিকতার ভিত্তিতে চূড়ান্ত বাজেট পাশ করা হয় – বাজেট ২০২৩-২০২৪

চলতি বছরে কত টাকা বাজেট? –বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আজ ১ জুন তারিখে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জন্য ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেন। প্রতি বছরই বাংলাদেশ সরকার ঘাটতি বাজেট পেশ করে থাকে যা বাংলাদেশের কালচার বা রীতি। ২০২৩-২৪ বাজেট ৭.৬১ যা জিডিপির ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। গতবছর অর্থমন্ত্রী চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছিলেন। তবে সংশোধিত হয়ে এই বাজেটের আকার কমে দাঁড়ায় ৬ লাখ ৬০ হাজার ৫০৭ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১৪ দশমিক ৯ শতাংশ। সংশোধিত বাজেটের তুলনায় প্রস্তাবিত বাজেটের আকার বাড়ছে ১ লাখ ১ হাজার ২৭৮ কোটি টাকা।

কোন কোন খাতে দাম বৃদ্ধি পাবে? বলপয়েন্ট কলম, সফটওয়্যার, পলিপ্রপাইলিং ফিল্ম, এলপিজি সিলিন্ডার, মোবাইল ফোন, প্লাস্টিকের সব ধরনের গৃহস্থালি পণ্য (টিফিন বক্স ও পানির বোতল ছাড়া), টিস্যু পেপার, অ্যালুমিনিয়ামের বাসনপত্র, সানগ্লাস, রেফ্রিজারেটর, ওয়াশিং মেশিন, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, ইলেকট্রিক ওভেন, ব্লেন্ডার, জুসার, রাইস কুকার ও প্রেসার কুকার।এছাড়াও প্রিন্টার, স্ক্যানার, রাউটার, ইয়ার ফোন, পেনড্রাইভ, এসএসডি কার্ড, সিসিটিভি মনিটর, প্রজেক্টর, ডিজিটাল ওয়াচ, ইলেকট্রিক প্যানেল, খেজুর, বাদাম, কাজুবাদাম, প্রসেসড ফ্রুটস, স্বর্ণের বার, বাসমতি চাল, সিমেন্ট, সিগারেট, বাইসাইকেলের যন্ত্রাংশ, গ্লাস, ই-সিগারেট, লিফট ও এসক্যালেটর, ফেসওয়াশ, টাইটেনিয়াম ডাই-অক্সাইড, টুনা-স্যালমন জাতীয় আমদানি করা মাছ ও আমদানি করা মোটরসাইকেলের ওপর মূল্য সংযোজন কর (মূসক/ভ্যাট) ও শুল্ক বাড়ানোর সুপারিশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

মোট বাজেটের কত শতাংশ সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি বাবদ ব্যয় হয়? ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জন্য বেতন এবং ভাতাদি বাবদ ব্যয় মোট বাজেটের ১০ দশমিক ৬ শতাংশ প্রক্ষেপণ করা হয়েছে। বেতন ভাতাদি পরিশোধের জন্য মোট বাজেটের ৮০ হাজার ৭৪৯ কোটি টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে। ২০২২-২৩ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে বেতন-ভাতার জন্য মোট বরাদ্দ ছিল ৭৩,১৭৩ কোটি টাকা। তবে আসন্ন অর্থবছরে বেতন-ভাতাখাতে ৭৭,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রাক্কলন করেছে অর্থবিভাগ।

করমুক্ত আয় সীমা-যে পরিমাণ আয় করলে আয়কর দিতে হবে না / সাধারণ পুরুষ পাবলিকের জন্য ৩ লক্ষ পঞ্চাশ এবং নারী ও বৃদ্ধাদের জন্য ৪ লক্ষ টাকা হয়েছে

অর্থমন্ত্রী জাতীয় সংসদে তার বাজেট বক্তৃতায় বলেন, ‘স্মার্ট বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় হবে কমপক্ষে ১২ হাজার ৫০০ মার্কিন ডলার।’

Caption: Income Tax Ceiling

জিরো রিটার্ণ দালিলেও ২০০০ টাকা কর পরিশোধ করতে হবে । যেসব ক্ষেত্রে আয়কর রিটার্নের প্রমাণ জমা দিতে হবে

  1. ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ৫ লাখ টাকার বেশি ঋণের আবেদন।

  2. কোনো কোম্পানির পরিচালক কিংবা স্পনসর শেয়ারহোল্ডার ।

  3. আমদানি ও রপ্তানি নিবন্ধন সনদ ।

  4. সিটি করপোরেশন বা পৌর এলাকায় ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্তি বা নবায়ন।

  5. সমবায় সমিতির নিবন্ধন প্রাপ্তি।

  6. বীমা বা সার্ভেয়ার হিসেবে তালিকাভুক্তি বা লাইসেন্স প্রাপ্তি ও নবায়ন ।

  7. সিটি করপোরেশন, জেলা সদরের পৌর এলাকা বা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকায় জমি, ভবন বা অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রি, রেজিস্ট্রেশন, দলিল হস্তান্তর, বায়না বা পাওয়ার অফ অ্যাটর্নি দেওয়ার ক্ষেত্রে চুক্তিমূল্য ১০ লাখ টাকার বেশি।

  8. ব্যাংক থেকে ক্রেডিট কার্ড ।

  9. চিকিৎসক, ডেন্টিস্ট, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট, খরচ ও ব্যবস্থাপনা হিসাবরক্ষক, প্রকৌশলী, স্থপতি বা সার্ভেয়ার বা যে কোনো পেশাদার সংগঠনের সদস্যপদ।

  10.  মুসলিম বিবাহ ও তালাক আইনের অধীনে বিবাহ নিবন্ধক হিসেবে লাইসেন্স ।

  11. কোনো ব্যবসায়ী বা পেশাজীবী সংগঠনের সদস্যপদ।

  12. ড্রাগ লাইসেন্স, অগ্নিনিরাপত্তা লাইসেন্স, পরিবেশ ছাড়পত্র, বিএসটিআই লাইসেন্স ।

  13. আবাসিক, বাণিজ্যিক ও শিল্পের জন্য গ্যাস সংযোগ।

  14. ভাড়ায় চালিত লঞ্চ, স্টিমার, মাছ ধরা জলযান, ট্রলার, কার্গো, কোস্টার এবং বার্জের জন্য সার্ভে সার্টিফিকেট।

  15. জেলা প্রশাসন বা পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে ইট তৈরির অনুমতি ।

  16. সিটি করপোরেশন বা জেলা সদর পৌরসভায় সন্তান বা পোষ্যকে আন্তর্জাতিক পাঠ্যক্রমের ইংরেজি মিডিয়াম স্কুলেবা  জাতীয় পাঠ্যক্রমের অধীনে ইংরেজি ভার্সনে ভর্তি ।

  17. সিটি করপোরেশন বা সেনানিবাস এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে১৮. কোনো কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটরশিপ বা এজেন্টশিপ ।
  18. অস্ত্রের লাইসেন্স ।
  19. আমদানির উদ্দেশ্যে ঋণপত্র ।
  20. ৫ লাখ টাকার বেশি পোস্টাল সেভিংস অ্যাকাউন্ট ।
  21. ১০ লাখ টাকার বেশি ক্রেডিট ব্যালেন্সসহ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট।
  22. ৫ লাখ টাকার বেশি সঞ্চয়পত্র।
  23. পৌরসভা, উপজেলা, জেলা পরিষদ, সিটি করপোরেশন বা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ।
  24.  মোটরগাড়ি, জমি, বাসস্থান বা যে কোনো স্থাবর সম্পদ সংশ্লিষ্ট অংশিদারত্ব ব্যবসা ।
  25. কোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে বেতন নেওয়া।
  26. সরকার বা সরকারি কোনো সংস্থা, করপোরেশন থেকে ‘বেতন’ শিরোনামে মূল বেতন হিসেবে ১৬ হাজার বা তার বেশি টাকা পাওয়া।
  27. মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বা অন্যান্য ইলেকট্রনিক উপায়ে অর্থ স্থানান্তরে কোনো কমিশন, ফি জাতীয় অর্থ ।
  28. পরামর্শক, ক্যাটারিং, ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট, জনবল সরবরাহ বা নিরাপত্তা সেবা দিয়ে অর্থ গ্রহণ।
  29. সরকারের কাছ থেকে মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার (এমপিও) হিসেবে প্রতি মাসে ১৬ হাজার বা তার বেশি টাকা ।
  30. বীমা কোম্পানির এজেন্সি হিসেব নিবন্ধন বা পুনর্নবীকরণ।
  31. দুই  তিন চাকা ছাড়া যে কোনো ধরনের মোটরগাড়ি নিবন্ধন, মালিকানা পরিবর্তন বা ফিটনেস নবায়ন।
  32. কোনো এনজিওকে বা মাইক্রো ক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির অধীনে কোনো মাইক্রো ক্রেডিট সংস্থার কাছে বিদেশি অনুদান ছাড় দেওয়া।
  33. ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোনো পণ্য বা সেবা বিক্রি ।
  34. কোনো ক্লাবের সদস্যপদ।
  35. পণ্য সরবরাহ, চুক্তি সম্পাদন বা সেবা প্রদানের জন্য টেন্ডারের কাগজপত্র জমা।
  36. আমদানি বা রপ্তানির জন্য বাংলাদেশ থেকে বিল অফ এন্ট্রি জমা।
  37. ভবন নির্মাণের জন্য রাজউকসহ চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বা সংশ্লিষ্ট সিটি করপোরেশন ও পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জমা ।
  38. নাগরিকের আয় না থাকলেও, রিটার্ন দাখিল করে ওইসব সরকারি সেবা পেতে আগামী অর্থবছর থেকে করদাতাদের ন্যূনতম ২ হাজার টাকা আয়কর দিতে হবে।

স্বাস্থ্য খাতে কত টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে? 

আগামী ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের জন্য ৩৮ হাজার ৫২ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট উপস্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ প্রস্তাব করেন। চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৩৬ হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা। এই বছরের তুলনায় ১ হাজার ১৮৯ কোটি টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী জানান, স্বাস্থ্য খাতে সহস্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে সাফল্যের ধারাবাহিকতায় টেকসই উন্নয়ন অভীষ্টগুলো অর্জনের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য খাতে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনের মূল বৈশিষ্ট্য হলো- অগ্রাধিকারভিত্তিক সেবাসমূহ সম্প্রসারণ, অধিক সংখ্যায় জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্তকরণ ও সেবাগ্রহীতার ব্যক্তিগত ব্যয় হ্রাস করা।

সূত্র: ডাউনলোড

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3002 posts and counting. See all posts by admin