জাতীয় ডিজিটাল কমার্স পলিসি ২০২০ (সংশোধিত) এর অনুচ্ছেদ ৩.৩.৬ অনুসারে এ “ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা নির্দেশিকা ২০২১” প্রণয়ন করা হয়েছে। এ নির্দেশিকা ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা নির্দেশিকা ২০২১ নামে অভিহিত হবে।

কি পয়েন্ট অব ই কমার্স নীতিমালা ২০২১

ওয়েবসাইট, মার্কেটপ্লেস বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পণ্য ও সেবা ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য উপস্থাপনের ক্ষেত্রে পণ্য ও সেবা সংশ্লিষ্ট সকল বিবরণ ও শর্তাবলী যেমন-পন্য ও মূল ফেরতের শর্তাবলি, পরিবর্তন, সরবরাহের সময়সীমা ইত্যাদি বিষয়ে সকল শর্তাবলী সুষ্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে।

সকল ধরনের ডিজিটাল ওয়ালেট, গিফট কার্ড, ক্যাশ ভাউচার বা অন্য কোন মাধ্যম যা অর্থের বিকল্প হিসাবে ব্যবহৃত হতে পারে তা বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদ্যমান নীতিমালা অনুসরণ এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি ব্যতিরেকে তৈরি issue, ব্যবহার বা ক্রয় বিক্রয় করা যাবে না।

মার্কেটপ্লেস এর স্বত্বাধিকারী তার তালিকাভূক্ত বিক্রেতার বিক্রয়কৃত পন্যের দাম বুঝে পাওয়ার সর্বোচ্চ ১০ (দশ) দিনের মধ্যে প্রযোজ্য কমিশন ও ডেলিভারি চার্জ কেটে রেখে সংশ্লিষ্ট তালিকাভূক্ত বিক্রেতাকে পুরো দাম পরিশোধ করতে হবে। তবে মার্কেটপ্লেসের স্বত্বাধিকারী ও বিক্রেতা বা মার্চেন্ট এর মধ্যে ভিন্নতর কোন চুক্তি থাকলে সে অনুযায়ী পাওনা পরিশোধ করা যাবে।

মার্কেটপ্লেস এর মালিক নয় এমন বিক্রেতা বা মার্চেন্ট এর পন্য বা সেবা বিক্রয়ের জন্য উপস্থাপনের পূর্বে মার্কেটপ্লেস কর্তৃপক্ষ ও বিক্রেতা বা মার্চেন্টের মধ্যে একটি চুক্তি সম্পাদন করতে হবে। চুক্তি সম্পাদনের সময় মার্কেটপ্লেস কর্তৃপক্ষ বিক্রতা বা তার যোগ্য প্রতিনিধির নাম, ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র, মোবাইল নম্বর, ঠিকানা ইত্যাদিসহ পূর্নাঙ্গ তথ্য সংরক্ষণন করার ব্যবস্থা নিবে।

ডিজিটাল কমার্স মার্কেটপ্লেস বা ফেইসবুক পেইজে ক্রয়-বিক্রয়, মূল্য ফেরত, পন্য ফেরত বা পন্য পরিবর্তন, ডেলিভারি পদ্ধতি, ডেলিভারির সময় এবং অন্যান্য শর্তাবলী বাংলায় লিপিবদ্ধ থাকতে হবে এবং স্পষ্টভাবে তা প্রদর্শন করতে হবে। শর্তাবলী বাংলা ভাষার পাশাপাশি প্রয়োজনে অন্য ভাষায়ও লিপিবদ্ধ করা যাবে। বাংলাদেশের প্রচলিত আইন বা বিধির সাথে সাংঘর্ষিক কোন শর্তাবলী মার্কেটপ্লেস বা সোস্যাল মিডিয়া পেইজে লিপিবদ্ধ করা যাবে না।

মার্কেটপ্লেসে পন্য বা সেবা বিক্রয়ের জন্য উপস্থাপন

বিক্রয়ের জন্য প্রদর্শিত পন্য বিক্রেতা বা তার সাথে চুক্তিবন্ধ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণে থাকতে হবে এবং বিজ্ঞপ্তিতে কী পরিমাণ পণ্য স্টকে রয়েছে তা উল্লেখ করতে হবে এবং প্রতিটি বিক্রয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার সাথে সার্থে উক্ত পণ্যের স্টক হালনাগাদ করতে হবে। বিক্রয়ের জন্য প্রদর্শিত পন্য বিক্রেতা বা তার সাথে চুক্তিবদ্ধ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণে না থাকলে “স্টকে নেই” বা “Out of Stock”  কথাটি স্পষ্টভাবে পন্যের পাশে লিপিবদ্ধ থাকতে হবে এবং এক্ষেত্রে অনুচ্ছেদ ৩.২.১০ এ বর্ণিত অবস্থা ব্যতিরেকে কোন ধরনের পেমেন্ট গ্রহণ করা যাবে না। নিত্যপণ্য ও খাদ্য সামগ্রীর বা সংখ্যায় প্রকাশ করা যায় না এমণ পন্য বা সেবার ক্ষেত্রে স্টকের পরিমানের পরিবর্তে “Available for Delivery” কথাটি লিখা থাকতে হবে।

অগ্রিম মূল আদায়ের ক্ষেত্রে প্রদর্শিত পন্য অবশ্যই দেশের ভেতরে “রেডি টু শিপ” (মার্কেটপ্লেসের নিজস্ব নিয়ন্ত্রণে বা মার্কেটপ্লেসে নিবন্ধিত থার্ড পার্টি বিক্রেতার নিয়ন্ত্রণে) পর্যায়ে থাকতে হবে। সম্পূর্ণ মূল্য গ্রহণের পরবর্তী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ডেলিভারি পারসন বা প্রতিষ্ঠানের নিকট হস্তান্তর করার মত অবস্থায় নেই এমন পন্যের ক্ষেত্রে পণ্যমূল্যের ১০% এর বেশি অগ্রিম গ্রহণ করা যাবে না। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক অনুমোদিত এসক্রো সার্ভিস এর মাধ্যমে ১০০% পর্যন্ত অগ্রিম গ্রহণ করা যাবে।

পন্য ডেলিভারি

বিক্রয়ের জন্য প্রদর্শিত পন্যের সম্পূর্ণ মূল্য পরিশোধের পরবর্তী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পন্য বা পন্য সামগ্রী ডেলিভারিম্যান বা ডেলিভারি সংস্থার নিকট হস্তান্তর করতে হবে এবং ক্রেতাকে তা টেলিফোন, ই-মেইল বা এসএমএস এর মাধ্যমে জানাতে হবে। এক্ষেত্রে ডেলিভারী সংস্থা বা মার্কেটপ্লেস ট্র্যাকিং সিস্টেম ব্যবহার করতে পারে।

পন্যের সম্পূর্ণ মূল্য পরিশোধ করা হয়ে থাকলে ক্রেতা ও বিক্রেতা একই শহরে অবস্থান করলে ক্রয়াদেশ গ্রহণের পরবর্তী সর্বোচ্চ ০৫ (পাঁচ) দিন এবং ভিন্ন শহরে বা গ্রামে অবস্থিত হলে সর্বোচ্চ ১০ (দশ) দিনের মধ্যে পন্য ডেলিভারী প্রদান করতে হবে।

অভিযোগ ও প্রতিকার

কোন পণ্যের বা সেবা প্রদান বিষয়ে ক্রেতার অভিযোগ রেকর্ডের যথাযথ ব্যবস্থা রাখতে হবে এবং যে কোন অভিযোগ প্রাপ্তির ৭২ ঘন্টার মধ্যে সমাধানের ব্যবস্থা করে ক্রেতাকে ফোন, ই-মেইল বা এসএমএস এর মাধ্যমে জানাতে হবে।

সম্পূর্ণ মূল্য পরিশোধের পর মানুষের নিয়ন্ত্রণ বর্হিভূত কোন কারণে ক্রেতার চাহিদামতো পন্য সরবরাহ করা সম্ভব না হলে, অর্ডার দেবার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ক্রেতাকে তা ফোন, এসএমএস, ই মেইল বা অন্যান্য মাধ্যমে জানাতে হবে। এক্ষেত্রে পরবর্তী ৭২ ঘন্টার মধ্যে সম্পূর্ণ অর্থ ফেরত প্রদান করতে হবে এবং অন্য কোন পন্য ক্রয় করার জন্য প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে বাধ্য করা যাবে না।

অগ্রিম পরিশোধিত মূল্য সমন্বয়

ক্রেতা কোন মাধ্যমে (ডেবিট, ক্রেডিট কার্ড, ব্যাংক ট্রান্সফার, মোবাইল ব্যাংকিং, অন্যান্য) অগ্রিম মূল্য পরিশোধ করলে এবং বিক্রেতা কোন কারণে নির্ধারিত সময়ে পন্য সরবরাহ করতে ব্যর্থ হলে মূল্য পরিশোধের সর্বোচ্চ ১০ দিন এর মধ্যে ক্রেতার পরিশোধিত সম্পূর্ণ অর্থ যে মাধ্যমে পরিশোধ করেছেন সেই একই মাধ্যমে ফেরত প্রদান করতে হবে।

ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা নির্দেশিকা ২০২১ : ডাউনলোড

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3011 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *