তদন্তের সূচনা ও নাশকতামূলক কার্যকলাপের ক্ষেত্রে তদন্তের পদ্ধতি।

কোনাে সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে কোনাে লিষিত ভিযােগ পাওয়া গেলে কর্তৃপক্ষের যদি ধারণা হয় যে, অভিযােগের সত্যতা রয়েছে সেক্ষেত্রে সরাসরি বিভাগীয় মামলার কার্যধারা সূচনা হয়ে থাকে এবং যদি ধারণা হয় যে, আভিযােগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়ােজন হবে সেক্ষেত্রে অভিযােগের প্রাথমিক সত্যতা নিরূপণের জন্য প্রশাসনিক তদন্ত করা হয়।

প্রশাসনিক তদন্তের ক্ষেত্রে এক বা একাধিক কর্মকর্তার সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে যে কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযােগ উত্থাপিত হয়েছে তার উনি কিংবা নূনপক্ষে সমপর্যায়ের ১ বা ৩ (তিন) জন কর্মকর্তার সম হয়ে কমিটি গঠন করা হয়। প্রশাসনিক তদন্তে তাভিযােগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেলে কর্তৃপক্ষ যদি বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্তে উপনীত হয় তবে বিভাগীয় মামলা রুনু করা হয়ে থাকে। বিভাগীয় মামলা রুনুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলে কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযােগ, প্রশাসনিক তদন্ত প্রতিবেদন ও আনুষঙ্গিক বিষয়াদি বিবেচনায় নিয়ে অভিযােগনামা ও অভিযােগবিবরণী প্রণয়ন করে।

নাশকতামূলক কার্যকলাপের ক্ষেত্রে তদন্তের পদ্ধতি (বিধি-৫);

(১) কোনাে সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিধি ৩-এর দফা (ঙ) তে উল্লিখিত কার্যকলাপের জন্য কার্যধারা সূচনা করার ক্ষেত্রে, কর্তৃপক্ষ

(ক) সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মচারীকে, লিখিত আদেশ দ্বারা, উক্ত আদেশে উল্লিখিত তারিখ হতে প্রাপ্যতা অনুযায়ী ছুটিতে যাবার জন্য নির্দেশ প্রদান করতে পারবে।

(খ) তাঁর বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তাব করবে, সেই ব্যবস্থার ভিত্তি সম্পর্কে তাঁকে
লিখিতড়াবে অবহিত করবে; এবং

(গ) আড়িযােগ তদন্তের জন্য উপবিধি (২)-এর অধীন ডিযােগ তদন্তের জন্য গঠিত তদন্ত কমিটির নিকট তীর বিরুদ্ধে প্রতাবিত ব্যবস্থার বিপক্ষে কারণ দর্শাবার জন্য তাঁকে যুক্তিসংগত সুযােগ প্রদান করবে। তবে, শর্ত থাকে যে, যে ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতি মনে করবেন যে, বাংলাদেশের নিরাপত্তার স্বার্থে এরূপ সুযােগ প্রদান করা সমীচীন নয়, সেই ক্ষেত্রে তাঁকে এরূপ সুযােগ প্রদান করা হবে না।

(২) যে ক্ষেত্রে উপবিধি (১)-এর দফা (গ) অনুসারে তদন্ত কমিটি গঠন করা প্রয়ােজন হয়, সেই ক্ষেত্রে নিয়ােগকারী কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত সরকারি কর্মচারীর পদমর্যাদা নিম্নে নন এমন ৩ (তিন) জন গেজেটেড কর্মচারী সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করবে।

(৩) উপবিধি (২)-এর অধীনে গঠিত তদন্ত কমিটি অভিযােগের তদন্ত করবে এবং নিয়ােগকারী কর্তৃপক্ষের নিকট তদন্তে প্রাপ্ত তথ্যাদি প্রতিবেদন আকারে পেশ করবে এবং নিয়ােগকারী কতৃপক্ষ উক্ত তথ্যাদির ভিত্তিতে যেরূপ উপযুক্ত বলে মনে করবে সেরূপ আদেশ প্রদান করবে।

তদন্তের সূচনা ও নাশকতামূলক কার্যকলাপের ক্ষেত্রে তদন্তের পদ্ধতি: ডাউনলোড

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2981 posts and counting. See all posts by admin

2 thoughts on “তদন্তের সূচনা ও নাশকতামূলক কার্যকলাপের ক্ষেত্রে তদন্তের পদ্ধতি।

  • প্রাথমিক বা প্রশাসনিক তদন্ত কমিটির সদস্যদের আনুষ্টানিকভাবে পত্র দিয়ে বিভাগীয় তদন্ত কমিটি ডাকতে পারেন কিনা ????

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *