Reasons for not accepting resignation letter নিম্নোক্ত ক্ষেত্রে নিয়ােগকারী কর্তৃপক্ষ কোন সরকারি কর্মচারীর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করিতে অস্বীকার করিতে পারেন 

(১) কোন সরকারি কর্মচারী জরুরি ও গুরুত্বপূর্ণ চলমান সরকারি কাজের মাঝামাঝি সময়ে পদত্যাগ করিতে ইচ্ছা প্রকাশ করিয়া পদত্যাগপত্র দাখিল করিলে সেইক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ, উক্ত কর্ম সম্পাদনের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর উপস্থিতি বা অংশগ্রহণ জরুরি বিবেচনা করিলে, তাহার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করিতে অস্বীকার করিতে পারেন।

(২) কোন সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলামূলক তদন্ত অনিষ্পন্ন ও অপেক্ষামাণ থাকিলে সেইক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ তাহার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করিতে অস্বীকার করিতে পারেন।

(৩) অন্য কোন যুক্তিযুক্ত কারণেও কর্তৃপক্ষ কোন সরকারি কর্মচারীর পদত্যাগপত্র গ্রহণে অস্বীকৃতি জানাইতে পারেন।

কেশব রাম যােশী বনাম সচিব, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মামলার রায়ে [(১৯৮৬) ১ এ টিটি ১৯৪] বলা হইয়াছে যে, পদত্যাগ যখন ৪ বৎসর পর গৃহীত হয় এবং এই সময়ে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী চাকুরীরত থাকেন তখন পদত্যাগ আর কার্যকর থাকে না। (Where resignation is accepted after 4 years and the person has continued to work, the resignation does not come into effect)

কোন সরকারি কর্মচারী ভবিষ্যত কোন তারিখ হইতে পদত্যাগ করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করিয়া আবেদন করার পর উক্ত তারিখ অতিক্রান্ত হইবার পূর্বে তিনি পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন জানাইতে পারেন। ধরা যাক, একজন সরকারি কর্মচারী ৩০ জুন ১৯৯৪ সালে পদত্যাগের আবেদন জানান। উক্ত তারিখ অতিক্রান্ত হইবার পূর্বে অর্থাৎ ১৫ জুন ১৯৯৪ সালে উক্ত পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করিতে পারেন। যে তারিখে একজন সরকারি কর্মচারী পদত্যাগ করিতে চান সেই তারিখ অতিক্রান্ত হওয়ার পূর্বে তিনি তাহা প্রত্যাহারের আবেদন জানানাের অধিকারী। পদত্যাগপত্র গৃহীত হওয়ার পর ইহার প্রত্যাহার অনুমতিযােগ্য নয়। তাহাছাড়া পদত্যাগ কার্যকর হইবার পূর্বে ইহা কর্তৃপক্ষের দ্বারা তাৎক্ষণিকভাবে গৃহীত চূড়ান্ত হইলেও কার্যকর হইবার পূর্বের যে কোন তারিখে ইহা প্রত্যাহার করা যাইবে। পদত্যাগপত্র দাখিল করার পর কোন কর্মচারীর তাহা প্রত্যাহার করিবার স্বাধীনতা থাকে এবং এইরূপ প্রত্যাহারের আবেদন একবার দাখিল করার পর কর্তৃপক্ষ পরবর্তীতে উক্ত পদত্যাগপত্র গ্রহণ করিলে তাহা অকার্যকর হইয়া যাইবে। কারণ কর্মের অধিকার মানুষের মৌলিক ও সাংবিধানিক অধিকার বিধায় অন্যান্য সকল বিবেচনার উপর ইহার স্থান ঊর্ধ্বে। মুহুর্তের উত্তেজনায়

কোন পদত্যাগ গ্রহণ করিতে অস্বীকার করার কারণ ব্যক্তি চাকুরী হইতে পদত্যাগ করিয়া পরবর্তীতে উহা গৃহীত হওয়ার পূর্বে প্রত্যাহার আবেদন জানাইলে বিষয়টির সাথে উক্ত ব্যক্তির মৌলিক ও সাংবিধানিক আরের প্রশ্ন জড়িত বিধায় কর্তৃপক্ষের দ্বারা, উহা প্রত্যাহার পরবর্তী সময়ে, গৃহীত হইলে অকার্যকর বলিয়া গণ্য হইবে।

শম্ভুনাথ পাণ্ডা বনাম ভারত ইউনিয়ন মামলার গায়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হইয়াছে যে, An employee tendering resignation has the liberty to withdraw the same and once the application for withdrawal has been filed, acceptance of the resignation thereafter becomes ineffective. (Shambhu Nath Panda Vs Union of India (1987) 2ATC 846).

স্থায়ী কর্মচারীর পদত্যাগ 

স্থায়ী চাকরি হইতেছে দ্বিপাক্ষিক চুক্তির ফসল। স্থায়ী কর্মচারীর পদত্যাগের ক্ষেত্রে নিয়ােগকারী কর্তৃপক্ষ এবং কর্মচারী উভয়ের সম্মতির প্রয়ােজন। স্থায়ী কর্মচারী পদত্যাগপত্র দাখিল করিয়া গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত তাহার দায়িত্ব পালন অব্যাহত রাখিবেন। কেননা চুক্তির অবসানের জন্য নিয়ােগকারী কর্তৃপক্ষের সম্মতিরও প্রয়ােজন রহিয়াছে। পদত্যাগপত্র গৃহীত হওয়ার পূর্বে চাকরিতে অনুপস্থিত থাকিলে তাহা দণ্ডযােগ্য অপরাধ হইবে এবং এই কারণে চাকরি হইতে বরখাস্ত দণ্ডও আরােপ করা যাইবে।

অস্থায়ী কর্মচারীর পদত্যাগ

বিদ্যমান বিধান অনুযায়ী একজন অস্থায়ী কর্মচারীকে পদত্যাগের জন্য এক পক্ষকালের নােটিশ প্রদান করিতে হয়। যেইক্ষেত্রে পদত্যাগপত্র দাখিল ও গ্রহণের ধ্যবাধকতা রহিয়াছে, উক্ত ক্ষেত্রে নােটিশ প্রদান অপ্রয়ােজনীয়। যদি কোন অস্থায়ী কারা নােটিশ প্রদান ব্যতীত পদত্যাগপত্র দাখিল করে, তাহা হইলে বিভাগীয় প্রধান হাদি বিবেচনায় যুক্তিযুক্ত মনে করিলে বেতন বাজেয়াপ্তকরণ ব্যতীত পদত্যাগপত্র Rণ করিতে পারিবেন। বিভাগীয় প্রধানের এই ক্ষমতা স্বেচ্ছাধীন।

নোটিশ প্রদানপূর্বক পদত্যাগ

সংশ্লিষ্ট চাকরি বিধিমালায় বা নিয়োেগপত্রে নােটিশ প্রদানপূর্বক পদত্যাগের বিধান ক্ষেত্রে স্বেচ্ছায় চাকরি হইতে পদত্যাগের নােটিশ প্রদান করিলে এবং উক্ত * প্রেক্ষিতে চাকরি হইতে অব্যাহিত দেওয়া হইলে উক্ত ক্ষেত্রে পদত্যাগকৃত পদে যােগদান বা পুনর্বহালের সুযােগ নাই।

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3009 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *