সাময়িক বরখাস্তের মেয়াদ ২০২৪ । শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা

সাময়িক বরখাস্তে মানেই চাকরি চলে যাওয়া নয় – তদন্ত শেষে দোষী প্রমানিত হলে লঘু বা গুরুদন্ড দুই রকম দন্ড হতে পারো – সাময়িক বরখাস্তকাল ২০২৪

কি কারনে সাময়িক বরখাস্ত হয়? – সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ পরিপন্থী কোন কাজ করলে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তদন্ত শেষে নির্দোষ প্রমানিত হলে সমস্ত বেতন ভাতাদি পূর্ণ হারে প্রদান করতে হয়। তাই সরকারি আর্থিক ক্ষতি হলেও মিথ্যা অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়।

হাইকোর্ট ডিভিশন এর রিটপটিশন নং৩৬৫৭/২০১৫ এর রায়ে বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোন শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত রাখা হলে তিনি বেতন ও অন্যান্য ভাতা সমুদয় প্রাপ্য হবেন। সরকারি চাকরি থেকে বরখাস্ত । বরখাস্ত কালীন সময়ে অর্ধগড় বেতনসহ বাড়ি ভাড়াও প্রাপ্যতা

সাময়িক বরখাস্তের অর্থ হইতেছে কোন কর্মচারীকে সাময়িকভাবে কিছুদিনের জন্য সরকারী কার্য সম্পাদনে, দায়িত্ব পালনে, সরকারী ক্ষমতা প্রয়ােগে বিরত রাখা এবং কতিপয় সরকারী সুবিধা প্রাপ্তির অধিকার হইতে বঞ্চিত রাখা। সাময়িক বরখাস্ত বেতন ভাতাদি প্রাপ্যতা । সাময়িক বরখাস্তকালীন প্রাপ্যও ও অপ্রাপ্যতা ২০২২

পিআরএল এর পূর্বে সাময়িক বরখাস্তাদের নিষ্পিত্ত নির্দেশনা রয়েছে / সাময়িক বরখাস্তের কি নির্ধারিত মেয়াদ রয়েছে।

সাময়িক বরখাস্ত নিষ্পিত্তির নির্ধারিত কোন মেয়াদ নেই। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দ্রুত নিষ্পত্তি করার কর এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

সাময়িক বরখাস্তের মেয়াদ । শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা ২০২২

Caption: Dismisal Deadline Announcement

সাময়িক বরখাস্ত হলে কি কি সুবিধা পাওয়া যায় না?

  1. ভ্রমণ ভাতা
  2. যাতায়াত ভাতা
  3. বাসায় টেলিফোন সুবিধা
  4. বাসায় অর্ডারলির সুবিধা
  5. বাসায় পত্রিকার সুবিধা
  6. অপ্যায়ন ভাতা বা আপ্যায়ন খরচ

সাময়িক বরখাস্তকালীন প্রাপ্য সুবিধাদি কি কি?

বরখাস্ত কালীন কোন বেতন বৃদ্ধি হবে না– বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস্, প্রথম খণ্ডের বিধি-৭১ এবং ফান্ডামেন্টার রুলস্ এর রুল-৫৩(বি) বিধির অধীনে মূল বেতনের অর্ধ হারে খােরাকী ভাতা প্রাপ্য। সাময়িক বরখাস্তের পূর্বে উত্তোলিত হারে পূর্ণ বাড়ীভাড়া ভাতা প্রাপ্য। সাময়িক বরখাস্তের পর্বের হারে বাড়ী ভাড়া প্রদানের ভিত্তিতে সরু বাসভবনে বসবাস করিতে পারিবেন। সাময়িক বরখাস্তের পূর্বে উত্তোলিত হারে পূর্ণ চিকিৎসা ভাতা প্রাপ্য। সাময়িক বরখাস্তের পূর্বে প্রাপ্য মহার্ঘ ভাতার অর্ধেক প্রাপ্য।

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2998 posts and counting. See all posts by admin

9 thoughts on “সাময়িক বরখাস্তের মেয়াদ ২০২৪ । শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা

  • আমার সাময়িক বরখাস্তের আদেশ থাকার পরেও বেতন-ভাতা পরিশোধ করছেন না কর্তৃপক্ষ। মামলা নম্বর ১৭৯/২০১৯ অন্য। রেজিষ্ট্রার বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড আমার বেতন-ভাতা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন। তথাপি বেতন-ভাতা প্রদান করিতেছেন না।

  • বরাদ্দ পেতে অনেক সময় বিলম্ব হয়। যদি উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে এমনটি করে থাকে তবে সেটি অন্যান্য আদেশকারী বরাবর লিখুন।

  • সাময়িক বরখাস্ত ২০২৪মন্ত্রনালয়ের প্রজ্ঞাপন বা নীতিমালা অনুযায়ী আমার সাময়িক বরখাস্তের সমুদয় বেতন-ভাতা পরিশোধ হওয়া অত্যন্ত জরুরি।

  • সংশ্লিষ্ট অফিস কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।

  • মহামান্য হাইকোর্টের রিট পিটিশন 3657/2015 এর সার্বজনীন আদেশ এবং মহামান্য হাইকোর্টের বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমান ও বিচারপতি মোঃ এম এনায়েতুর রহিমের 18616/2017 এর পূর্নাঙ্গ রায় ঘোষণা 24/02/2022-এ কোন শিক্ষককে ছয় মাসের বেশি সাময়িক বরখাস্ত রাখা যাবেনা মর্মে আদেশ দেন। সেই সাথে বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালত উলিপুর, কুড়িগ্রাম 179/2019 নং মামলার আদেশে 30 দিনের মধ্যে বাদীকে সমুদয় বেতন-ভাতা পরিশোধ করে আদালতকে অবহিত করতে বলেন। আদেশের তারিখ 15/05/2023। বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডও 2019 সালে বেতন-ভাতা প্রদানের নির্দেশ দেন।

  • পরিশোধ করে অবহিত করলে সর্বোচ্চ কমিটি পুন:গঠনের আদেশ দিতে পারেন কোর্ট।

  • মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর, মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড সব জায়গায় আমি আবেদন করেছি। মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড সুপারকে বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। আদালতের আদেশসহ যাবতীয় তথ্য প্রদান করেছি।

  • তাহলে তো আপনি আইনি নোটিশ দিয়ে আইনের আশ্রয় নিতে পারেন যদি বোর্ড কোর্টের রায় অনুসরণ না করে থাকে।

  • আদালত অবমাননার দায়ে সভাপতি ও সুপারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। এর মধ্যে সুপার জেলা জজ আদালতে মিছ আপিল ৫৮/২০২৩ নং মামলা দায়ের করেন। মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে জেলা জজ আদালতে মিছ আপিল করেন। আগামী ৩০/০৫/২০২৪ ইং তারিখ আপিল শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *