স্বামী ও স্ত্রী উভয়ই চাকরিজীবী হলে শিক্ষা সহায়ক ভাতা নির্ধারণ!

স্বামী ও স্ত্রী উভয়ই চাকরিজীবী হলে সন্তান সংখ্যা যে কোন একজনের ক্ষেত্রেই গণনা করে ভাতার পরিমাণ নির্ধারণ করতে হবে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

অর্থ মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ

প্রবিধি অনুবিভাগ

প্রবিধি-৩ অধিশাখা

Website: www.mof.gov.bd

নং-০৭.১৭৩.০৩১.০২.০০.০৩০.২০১০.৭৯; তারিখ: ১৪/১০/২০১৫

প্রজ্ঞাপন

সরকার সকল কর্মচারীর জন্য জাতীয় বেতন স্কেল, মোতাবেক “শিক্ষা সহায়ক ভাতা” নিম্নোক্ত হারে প্রদানে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে;

ক) সকল কর্মচারীর জন্য সন্তান প্রতি মাসিক ৫০০/- (পাঁচশত) টাকা হারে এবং অনধিক ০২ (দুই) সন্তানের জন্য সর্বোচ্চ ১০০০/- (এক হাজার) টাকা “শিক্ষা সহায়ক ভাতা” প্রদেয় হবে।

খ) স্বামী ও স্ত্রী উভয়ই চাকরিজীবী হলে সন্তান সংখ্যা যে কোন একজনের ক্ষেত্রেই গণনা করে ভাতার পরিমাণ নির্ধারণ করতে হবে।

গ) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের প্রত্যয়নপত্র (Enrolment Certificate from the Head of the institute) এবং জন্ম নিবন্ধন সনদ এর কপি (copy of birth Certificate) দাখিল সাপেক্ষে এ ভাতা প্রদেয় হবে। জন্ম নিবন্ধন সনদ মোতাবেক এ ভাতা ২১ বছর পর্যন্ত বয়সী সন্তান /সন্তানেরা প্রাপ্য হবেন।

এ আদেশ ০১/০৭/২০১৬ তারিখ হতে কার্যকর হবে।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে

স্বাক্ষরিত/-

(কাজী মাহবুব হাসান)

যুগ্ন সচিব

স্বামী ও স্ত্রী উভয়ই চাকরিজীবী হলে একজনের ক্ষেত্রেই সন্তান সংখ্যা গণনা করে শিক্ষা সহায়ক ভাতা নির্ধারণ এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন: ডাউনলোড

শিক্ষা সহায়ক ভাতা কত বছর বয়স পর্যন্ত পাওয়া যাবে?

শিক্ষা ভাতা প্রাপ্তির সর্বনিম্ন বয়সসীমা জেনে নিন।

শিক্ষা সহায়ক ভাতা প্রজ্ঞাপন-২০১৫

শিক্ষা সহায়ক ভাতা পেতে কি কি কাগজপত্র লাগে।

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.