জিপি ফান্ডের টাকার উপর যাকাত দিতে হবে কিনা?

আর উত্তরটা আরো বেশি কমন থাকে – না, এখন যাকাত দিতে হবেনা, যখন পুরো টাকা হাতে পাবেন তখন যাকাত দিবেন!আসলে কি ব্যাপার টি তাই? না, উত্তর টি আম ভাবে এরুপে দিলে ১০০℅ ভুল হবে, যেটা শুভঙ্করের ফাঁকির- ই নামান্তর বটে? আর যাকাতের মত গুরুতর গরীবের হক্ব এর ব্যাপারে আপনি কাকে ফাঁকি দিচ্ছেন? (!)

আসুন খুব সহজেই ব্যাপারটা খোলাসা করা যাক ….

সকল আলেম এ বিষয়ে একমত যে সরকারি বেতন খাতে সরকার যে পরিমাণ টাকা আপনাকে প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা করতে বাধ্য করছে, শুধু মাত্র সে পরিমাণ টাকার উপর প্রতি বছর যাকাত দিতে হবেনা, প্রভিডেন্ট ফান্ভের টাকা সম্পূর্ণ যখন আপনার হাতে আসবে সে সময় আপনাকে উক্ত টাকার (যতটুকু রাখতে আপনি বাধ্য) উপর যাকাত দিতে হবে!

এখন প্রশ্ন হল আপনি কত পরিমাণ টাকা প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা রাখতে বাধ্য:

আমরা জানি যে একজন সরকারি চাকরিজীবিকে মূল বেতনের ন্যূনতম ৫℅ থেকে সর্বোচ্চ ২৫% পর্যন্ত টাকা প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা রাখার বিধান রয়েছে। সে হিসেবে আপনি মূল বেতন হতে কত পরিমাণ টাকা প্রভিডেন্ট ফান্ভে কাটতে বাধ্য?
স্পষ্টতই ৫%, কারণ এর কম পরিমাণ টাকা জমা রাখতে চাইলেও আপনি পারবেন না! যদিও এর বেশি পরিমাণ জমা করতে পারবেন।

সরকারি চাকুরি জীবিদের কেহ ৫%, কেহ ১০%, ১২%, ১৫℅. এমনকি অনেকে আছেন ২৫% পর্যন্ত টাকা প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা রাখেন। এ হিসাবে আমরা দেখতে পাই কমপক্ষে মূল বেতনের ৫% টাকা আপনি প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা করতে বাধ্য। এর বাহিরে ১০% ,১৫%, ২০% বা ২৫% আপনার জন্য অপশনাল, ইচ্ছা করলে রাখতে পারেন।

ধরা যাক আপনার মূল বেতন 💰৩০,০০০/- টাকা। আপনি ১০% হারে প্রতি মাসে প্রভিডেন্ট ফান্ভে মোট জমা রাখেন- ৩০,০০০×১০% = ৩০০০/-টাকা।

এর ৫% আসে ৩০,০০০×৫% = ১৫০০/- টাকা, এই ১৫০০/- টাকা আপনি প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা দিতে বাধ্য, তাই বছরে ১৫০০×১২ = ১৮০০০/- টাকার উপর যাকাত প্রতি বছর দিতে হবেনা। কিন্তু❓, আপনার অবশিষ্ট ৫% যাহা আপনি ইচ্ছাপূর্বক অতিরিক্ত জমা রাখেন, সেই অতিরিক্ত ৩০০০০×৫%= ১৫০০/- বছরে আসে ১৫০০×১২= ১৮০০০/- টাকা। এই অতিরিক্ত ১৮০০০/- টাকা ও পূর্ববর্তী বছরগুলোর অতিরিক্ত কাটানোর মোট জেরের উপর আপনাকে অবশ্যই প্রতি বছর যাকাত দিতে হবে এবং এ বিষয়ে সকল আলেম একমত।

অর্থাৎ, ৫% হারের পর যে যতটুকু বেশি পরিমাণ প্রভিডেন্ট ফান্ভে টাকা কাটাবেন, তত বেশি হারে প্রতি বছর -ই উক্ত টাকার উপর যাকাত প্রদান করতে হবে।

কারণ, ৫% হারের অতিরিক্ত টাকা সরকার আপনাকে প্রভিডেন্ট ফান্ভে জমা করতে বাধ্য করেন নাই, এ অতিরিক্ত টাকা আপনি ব্যাংকেও রাখতে পারতেন, সে হিসাবে (ব্যাংক আমানত)যেমন ডিপোজিট বা সঞ্চয় হিসাবে আপনাকে প্রতি বছর যাকাত দিতে হয়, ঠিক তেমনি প্রভিভেন্ট ফান্ভে ৫℅ এর উপরে কাটালেই সেই টাকার উপর প্রতি বছর যাকাত দিতে হবে। আর এ ব্যাপারে সারা বিশ্বের আলেমগণ একমত।

তাই, আম /ঢালাওভাবে বলা যাবেনা যে প্রভিভেন্ট ফান্ডের যাকাত শূধু মাত্র হাতে পাবার পর দিতে হবে। নচেৎ যাহারা এ মাসয়ালা জানেন না, চরম বিভ্রান্তি তে পড়বেন।

আশা করি দীর্ঘ আলোচনায় ব্যাপারটি সবার বোধগম্য হয়েছে। আর এ মাসয়ালা না জানার কারনে, আমাদের মধ্যে যাহারা ৫% এর বেশী জমা রাখি, সে অতিরিক্ত অংশের পূর্ববর্তী বছরগুলোর বকেয়া যাকাত আদায় করি। যাকাত ইসলামের দৃষ্টিতে গরীবের হক্ব, এটি আদায় করা ব্যতীত কোনভাবেই মাফ হয়না। মহান রব তৌফিক দান করুন।

পোস্ট ক্রেডিট: Mobarak Ali.

admin

এই ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন তথ্য যুক্ত করতে বা সংশোধন করতে চাইলে অথবা কোন আদেশ, গেজেট পেতে এই admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.