সরকারি অফিসে মালামাল ও সার্ভিস সংগ্রহের ক্ষেত্রে ক্রয় পদ্ধতি।

পিপিআর ২০০৮ মােতাবেক সরকারি অফিসে মালামাল ও সার্ভিস সংগ্রহের ক্ষেত্রে যে সকল ক্রয় পদ্ধতি অনুসরণ করা হয় তা বিস্তারিত আলােচনা করা হলো।  সরকারী অফিসে কার্য পরিচালনা করিবার জন্য যন্ত্রপাতি, মালামাল, সেবা, বুদ্ধি বৃত্তিক ও পেশাগত সেবা ক্রয় করা প্রয়ােজন হয়। সরকারী কার্য সম্পাদনের জন্য উল্লিখিত বিষয় সংগ্রহ করিবার পদ্ধতি হইল সরকারী ক্রয়। 

পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন, ২০০৬ এবং বিধি, ২০০৮ মােতাবেক সরকারী কার্যালয়ে ক্রয় কার্য সম্পাদিত হয়। পদ্ধতিসমূহ নিম্নরূপ-

পণ্য ও সেবা ক্রয় পদ্ধতি 

১। উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতি

২। সীমিত দরপত্র পদ্ধতি

৩। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি

৪। প্রদানের অনুরােধ সমকাল পদ্ধতি

৫। এক পর্যায়বিশিষ্ট দুই খাম পদ্ধতি।

৬। দুই পর্যায় বিশিষ্ট পদ্ধতি।

বুদ্ধিবৃত্তিক ও পেশাগত সেবা ক্রয় পদ্ধতি

১। গুনগত মান ও ব্যয় ভিত্তিক নির্বাচন পদ্ধতি।

২। নির্দিষ্ট বাজেটের অধীন নির্বাচন পদ্ধতি

৩। সর্বনিম্ন ব্যয়ভিত্তিক নির্বাচন পদ্ধতি।

৪। সমাজ সেবামূলক সংগঠন নির্বাচন পদ্ধতি

৫। একক উৎস ভিত্তিক নির্বাচন পদ্ধতি

৬। ব্যক্তি ভিত্তিক পরামর্শক নির্বাচন পদ্ধতি

৭। পরামর্শকের যােগ্যতা ভিত্তিক নির্বাচন পদ্ধতি

৮। ডিজাইন প্রতিযােগিতা ভিত্তিক নির্বাচন পদ্ধতি।

পন্য, কার্য, ইত্যাদির ক্রয় পদ্ধতি এবং উহার প্রয়ােগ। অংশ -১, অভ্যন্তরীন ক্রয়। ধারা – ৩১ : পন্য, কার্য, ইত্যাদি ক্রয়ে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতির প্রয়ােগ। (১) ক্রয়কারী পন্য, সংশ্লিষ্ট সেবা, কার্য বা ভৌত সেবা ক্রয়ের ক্ষেত্রে অগ্রে বিবেচ্য হিসাবে নিম্নবর্নিত পরিচালন পূর্বক উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতি প্রয়ােগ করিবে। যথা :

(ক) প্রকাশ্য ক্ষেত্রে, প্রাক-যােগ্যতা নির্ধারন;

খ) দরপত্র বাস্তবায়নকে বৈষম্যহীন ও সম-শর্তাধীন প্রতিযােগিতায় সুযােগ প্রদান ।

গ) ধারা ৪০ এ বর্নিত বিধান অনুসরনে নিন প্রদানের মাধ্যমে দরপত্র আহবান; 

(ঘ) দরপত্র দাখিলের জন্য এবং পন্য সরবরাহ, কার্য সম্পাদনের জন্য নির্ধারিত ন্যূনতম সময় প্রদান ; 

(ঙ) সর্বনিম্ন মূল্যায়িত রেসপনসিভ দরপত্র দাতার সহিত চুক্তি সম্পাদন । 

ধারা – ৩২ পূন্য, কার্য, ইত্যাদি ক্রয়ে অন্যান্য ক্রয় পদ্ধতি প্রয়োগ (১) – নায়ী কার্যালয় প্রধান বা তৎকর্তৃক ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন কর্মকর্তার অনুমোদনক্রমে ধারা-৩১ এ উল্লিখিত পদ্ধতি ব্যতীত অন্য কোন পদ্ধতিতে পন্য, সংশ্লিষ্ট সেবা, কার্য না ভৌত সেবী ক্রয়ের ক্ষেত্রে, কারিগরী বা অর্থনৈতিক কারনে মুক্তিযুক্ত বিবেচিত হইলে ক্রয়কারী নিহবনিত যে কোন পদ্ধতি প্রয়োগ করিতে পারিবে । যথা :-

(ক) নিম্নবর্নিত ক্ষেত্রে সীমিত দরপত্র পদ্ধতি প্রয়োগ করা যাইবে । যথা : (খ) বিনােয়িত প্রকৃতির গন্য, সংশ্লিষ্ট সেবা, কার্য বা ভেত সেবা, যাহা সকল সীমিত সংখ্যক সরবরাহকারী বা ঠিকাদা গনের নিকট হইবে লক্ষ্য হয় ;

(অ) খুচরা যন্ত্রাংশের মত এবং রক্ষনাবেক্ষন বাস করি এ উদ্দেশ্যে কোন ব্রান্ডের নির্দিষ্ট মান এমিতন সংক্রান্ত সরকারী নীতি থাকিলে;

(ই) অধিক সংখ্যক দরপত্র গ্রহন ও মুল্যায়নের জন্য প্রয়োজনীয় সময় ও ব্যয় যুক্তি মূল্যের তুলনায় অসাম রস হর ।

তবে শর্ত থাকে যে, দফা (অ) এবং (আ) এর ক্ষেত্রে কোন মূল্যসীমা প্রযােজ্য হইবে না এবং সকল সরবরাহকারী বা ঠিকাদারকে দরপত্র দাখিলের জন্য আহবান জানাইতে হইবে এবং দফা (ই) এর ক্ষেত্রে তালিকাভুক্ত সরবরাহকারী বা ঠিকাদারদের মাধ্যমে নির্ধারিত মূল্যসীমা সাপেক্ষে প্রযােজ্য হইবে ।

সরকারি অফিসে মালামাল ও সার্ভিস সংগ্রহের ক্ষেত্রে ক্রয় পদ্ধতি : ডাউনলোড

Leave a Reply

Your email address will not be published.

close