সাময়িক বরখাস্ত আইন বিএসআর মোতাবেক নিষ্পত্তি হয়ে থাকে- তদন্ত কমিটি রিপোর্ট প্রদান করলে সাময়িক বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহার বা বহাল রাখা হয়- এটি ৬০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তির হাইকোর্টের নির্দেশনা রয়েছে – সাময়িক বরখাস্ত আইন ২০২৪

কত দিনের মধ্যে সাময়িক বরখাস্ত নিষ্পত্তি হয়? এটির কোন সুনির্দিষ্ট সময় বিএসআর এ উল্লেখ করা হয়নি। হাইকোর্ট ডিভিশন এর রিটপটিশন নং৩৬৫৭/২০১৫ এর রায়ে বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোন শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত রাখা হলে তিনি বেতন ও অন্যান্য ভাতা সমুদয় প্রাপ্য হবেন। সরকারি চাকরি থেকে বরখাস্ত । বরখাস্ত কালীন সময়ে অর্ধগড় বেতনসহ বাড়ি ভাড়াও প্রাপ্যতা

সাময়িক বরখাস্তকাল কি চাকরি কাল হিসেবে গন্য হয়? হ্যাঁ। যদি সাময়িক বরখাস্ত যেকারণে করা হয়েছে সেই অভিযোগটি মিথ্যা প্রমানিত হয় এবং সেই অভিযোগ থেকে রেহাই দেয়া হয় তবে সাময়িক বরখাস্তকাল চাকরিকাল হিসেবে গন্য হয়। যদি শাস্তি পায় তবে তো শাস্তিই কার্যকর হবে- তা লঘুদন্ড বা গুরুদন্ড যাই দেয়া হোক না কেন। অন্যদিকে যদি অভিযোগ মিথ্যা বা রেহাই দেয়া হয় তবে তিনি চাকরিকাল এবং মূল বেতন (খোরাকি ভাতা বাদে) বকেয়া হিসেবে উত্তোলন করতে পারবেন। বকেয়া উত্তোলনের বিষয়টি আদেশে উল্লেখ থাকতে হবে। যদি উল্লেখ না থাকে তবে আবেদন করে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের নিকট হতে মঞ্জুরী নিতে হয়।

সাময়িক বরখাস্ত বা Suspension আদেশ কি নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ জারি করেন? হ্যাঁ। নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ বরখাস্ত করতে পারেন না। সাময়িক বরখাস্তের অর্থ হইতেছে, কোন কর্মচারীকে সাময়িকভাবে কার্য সম্পাদনে, দায়িত্ব পালনে, ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব প্রয়োগে বিরত রাখা এবং কতিপয় সুবিধা প্রাপ্তির অধিকার হইতে বঞ্চিত রাখা। সাময়িক বরখাস্ত যখন যুক্তিযুক্ত ১। ফৌজদারী অভিযোগে অথবা দেনার দায়ে জেলে আটক সরকারী কর্মচারী গ্রেফতার হওয়ার তারিখ হইতে সাময়িক বরখাস্ত বলিয়া বিবেচিত হইবেন এবং বিচার কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত খোরপোষ ভাতা পাইবেন। বি এস আর পার্ট-১ এর ৭৩ নং বিধির নোট-(২) ২। কোন কর্মচারী গ্রেফতারের পর বা আত্মসমর্পনের পর জামিনে মুক্তি লাভ করিলেও সাময়িক বরখাস্ত হিসাবে বিবেচিত হইবেন। তবে এইক্ষেত্রে জটিলতা এড়াইবার জন্য কর্তৃপক্ষ সাময়িক বরখাস্তের ফরমাল আদেশ জারি করিবেন । (জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অফিস মেমোরেন্ডাম নং ED(Reg:-VI)S-123/78 / 115 (500), তারিখঃ ২১ নভেম্বর, ১৯৭৮)

সাময়িক বরখাস্ত কালে নাকি বেতন ভাতা পাওয়া যায় না? / কথাটি মিথ্যা, শুধু মূল বেতনের অর্ধেক কেটে রাখা হয় অন্যান্য ভাতাদি পূর্ণ হারে চলমান থাকে

সাময়িক বরাখাস্ত সংক্রান্ত বিধি বিধান দেখুন এখানে

সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে পুণ:বহার পূর্বক যোগদানের ব্যবস্থা গ্রহণ এবং বকেয়া বেতন প্রাপ্তির আবেদন।

সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে পুণ:বহার পূর্বক যোগদানের ব্যবস্থা গ্রহণ এবং বকেয়া বেতন প্রাপ্তির আবেদন অগ্রায়ন

সাময়িক বরখাস্ত আবশ্যক ২০২৪ । কখন সাময়িক বরখাস্ত ইচ্ছাধীন বা মর্জির উপর নির্ভরশীল?

  1. সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা, ১৯৮৫ এর বিধি-৩ এর অনুচ্ছেদ (বি), (সি) বা (ডি) এর অধীনে অর্থাৎ অসদাচরণ বা ডিজারসন বা দুর্নীতির অভিযোগে বিভাগীয় মামলা গ্রহণের প্রস্তাব করার ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ও যুক্তিযুক্ত মনে করিলে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে বিধি-১১ এর বিধানমতে সাময়িক বরখাস্ত করিতে পারেন। এইক্ষেত্রে সাময়িক বরখাস্তকরণ কর্তৃপক্ষের ইচ্ছাধীন। সাময়িক বরখাস্তের ভিত্তিসমূহ- স্মারক নং F.32/48-Ests(SE), তারিখঃ ২১ জুলাই, ১৯৪৯ অনুযায়ী নিম্নোক্ত বিষয়সমূহ সাময়িক বরখাস্তের আদেশদানের ভিত্তি হিসাবে গণ্য হইবে-
  2. (ক) অভিযুক্তের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগের বলিষ্ট প্রাথমিক তথ্য থাকিতে হইবে;
  3. (খ) অভিযোগ এইরূপ গুরুতর প্রকৃতির যে মামলা চলাকালীন তাহাকে দায়িত্ব পালন করিতে দেওয়া যুক্তিযুক্ত হইবে না, অথবা উক্ত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার ক্ষেত্রে সম্ভাব্য দন্ড হইবে চাকরি হইতে বরখাস্ত;
  4. (গ) মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কর্ম হইতে বিরত রাখার বলিষ্ট কারণ বিদ্যমান;
  5. (ঘ) শৃঙ্খলার সামান্য বিচ্যুতি বা ছোটখাট অপরাধের ক্ষেত্রে সাময়িক বরখাস্ত করা উচিত নয়;
  6. (ঙ) কোন কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা যুক্তিযুক্ত হইবে না, যদি না-
  7. (১) সে ইচ্ছাকৃতভাবে বা এক গুয়েমীভাবে আদেশ পালনে অস্বীকৃতি জানায়;
  8. (২) তদন্তকালে কর্মরত থাকার ক্ষেত্রে তদন্তকাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি বা তদন্তকে ব্যাহত করে;
  9. (৩) কর্মচারী পুলিশ হেফাজতে থাকে;
  10. (৪) এমন প্রকৃতির অপরাধে অভিযুক্ত যাহা প্রমাণিত হওয়ার ক্ষেত্রে চাকরি হইতে বরখাস্ত দন্ড প্রয়োগযোগ্য ।

সাময়িক বরখাস্তের ক্ষেত্রে মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি হয় কি?

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ১১ জুন, ১৯৭৪ তারিখের স্মারক নং DI-38/74- 413 (40) অনুযায়ী সাময়িক বরখাস্তের ফলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি যেমন অর্থকষ্টে পতিত হয়, ঠিক তেমনি সরকারকেও সময়, দক্ষতা এবং আর্থিক অপচয়ের সম্মুখীন হইতে হয়, তাই সাময়িক বরখাস্তের ক্ষেত্রে মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করা প্রয়োজন । সর্বক্ষেত্রে সাময়িক বরখাস্তকাল দ্রুত নিষ্পত্তিকরণের জন্য নির্দেশনা প্রদানের বিধান থাকলেও বাস্তবে এক্ষেত্রে বেশ সময় লাগে। তবে হাইকোর্ট সাময়িক বরখাস্ত নিষ্পত্তির জন্য ৬০দিন সময় বেধে দিয়েছে। যদি আপনার মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তি না হয় তবে আপনি কোর্টের দ্বারস্থ হতে পারেন। সাময়িক বরখাস্ত অবস্থায় কি কি সুবিধা ভেগা করা যায়? স্মারক নং ED (Reg. IV ) – 202 / 83-39 তারিখঃ ১০ মে, ১৯৮৩ অনুযায়ী একজন সরকারী কর্মচারী সাময়িক বরখাস্ত অবস্থায় নিম্নোক্ত সুবিধাদি প্রাপ্য- (১) বি এস আর-৭১ ও এফ আর-৫৩ (বি) বিধির অধীনে মূল বেতনের অর্ধ হারে খোরাকী ভাতা । (২) সাময়িক বরখাস্তের পূর্বের উত্তোলিত হারে পূর্ণ বাড়ী ভাড়া ভাতা । (৩) সাময়িক বরখাস্তের পূর্বের হারে বাড়ী ভাড়া পূর্বের হারে বাড়ী ভাড়া প্রদানের ভিত্তিতে সরকারী বাসভবনে বসবাস করিতে পারিবেন। (৪) সাময়িক বরখাস্তের পূর্বে উত্তোলিত হারে পূর্ণ চিকিৎসা ভাতা । (৫) সাময়িক বরখাস্তের পূর্বের প্রাপ্য মহার্ঘ ভাতার অর্ধেক পাওয়া যায়।

সাময়িক বরখাস্তের মেয়াদ ২০২৪ । শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষককে ৬০ দিনের বেশি সাময়িক বরখাস্ত না রাখার নির্দেশনা

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3002 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *