এলোটির মৃত্যু, বদলী বা ইস্তফার পর বাসস্থানে বসবাস সংক্রান্ত বিধি বিধান।

বাসার এলোটির মৃত্যু ঘটিলে সাধারণভাবে এলোটির বিধবা স্ত্রী উক্ত বাসা মৃত্যুর তারিখ হইতেও (ছয়) মাস পূর্তির পর বাসা খালি করিয়া দেবেন। মৃত এলোটির ছেলেমেয়েদের নিজস্ব বাসা না থাকিলে এবং পর্যাপ্ত আয়ের উৎস না থাকিলে তাহাদের আবেদনক্রমে তাহাদিগকে সরকার ইচ্ছা করিলে এলোটির মৃত্যুর তারিখ হইতে ২ (দুই) বছর পর্যন্ত বাসস্থানে বসবাস করিতে অনুমতি দিতে পারেন। তবে সরকার প্রয়োজনবোধে ঐ পরিবারকে অপেক্ষাকৃত নিম্নশ্রেণীর বাসায় স্থানান্তর করিবার অধিকার সংরক্ষণ করেন।

১। চাকুরী হইতে ডিসমিস, অপসারণ, চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল, চাকুরীতে ইস্তফা, বদলী, বিদেশে চাকুরীর জন্য প্রেষণ অথবা এলোটির অবসর গ্রহণের ক্ষেত্রে ঐরূপ ঘটনা সংঘটিতে হওয়ার তারিখ হইতে দুই মাসের মধ্যে বাসস্থান খালি করিয়া দিতে হইবে।

২। উপবিধি-২ এ যাহাই বলা হউক না কেন, চাকুরী হইতে ডিসমিস, অপসারণ, চাকুরী হতে ইস্তফা, অবসর গ্রহণ অথবা এলোটির বদলীর ক্ষেত্রে সরকার ইচ্ছা করিলে ৬ (ছয়) মাসের জন্য সংশ্লিষ্ট এলোটিকে উক্ত বাসস্থানে থাকিতে (Retain) অনুমতি প্রদান করিতে পারেন। যদি সরকার উহা এলোটির ছেলেমেয়ের পড়াশুনার জন্য প্রয়োজন মনে করেন।

৩। যখন কোন এলোটি বাংলাদেশের বাহিরে বদলী হন সেই ক্ষেত্রে যতদিন পর্যন্ত তিনি বিদেশে কর্মস্থলে বাসস্থান বরাদ্দপ্রাপ্ত না হন ততদিন পর্যন্ত অথবা ৬ (ছয়) মাস যাহাই কম হয়, ততদিন তিনি উক্ত সরকারি বাসা দখলে রাখিতে পারেন। তবে শর্ত থাকে যে, তিনি স্বাভাবিক ভাড়া প্রদান করিবেন।

৪। যখন কোনো এলোটি যাহাকে ডিসমিস, অপসারণ বা বাধ্যতামূলকভাবে চাকুরী হইতে অবসর গ্রহণ করানো হইয়াছে, তিনি এই আদেশের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট বিধিমালার অধীনে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট আপীল পেশ করিলে, আপীল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অথবা ৬ (ছয়) মাসকাল যাহাই কম হয় ঐ সময়ের জন্য স্বাভাবিক বাসা ভাড়া প্রদান সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট বাসস্থান দখলে রাখিতে পারিবেন।

৫। যখন একজন এলোটি নন ফেমিলি এলাকায় বদলী হন তখন তিনি স্বাভাবিক বাসা ভাড়া প্রদানসাপেক্ষে পরিচালক, আবাসন পরিদপ্তরের অনুমতিক্রমে ৬ (ছয়) মাসের জন্য বাসস্থান নিজ দখলে রাখিতে পারিবেন।

৬। যখন কোন একটি প্রশিক্ষণের জন্য তাহার কর্মস্থল ত্যাগ করেন তখন স্বাভাবিক বাসা ভাড়া প্রদানসাপেক্ষে পরিচালক, আবাসন পরিদপ্তরের অনুমতিক্রমে ৬ (ছয়) মাসের জন্য বাসস্থান নিজ দখলে রাখিতে পারিবেন। তবে এই সুবিধা ঐক্ষেত্রেই প্রাপ্য হইবে যদি তিনি উপযুক্ত কারণে তাহার পরিবার ঐ বাসস্থানে রাখিতে বাধ্য হন। যদি ৬ (ছয়) মাসের অতিরিক্ত ঐ বাসস্থান তাহার দখলে রাখিতে হয় সেই ক্ষেত্রে তাহাকে সরকারের নিকট হইতে অনুমতি গ্রহণ করিতে হইবে।

৭। যখন কোন সরকারি কর্মচারী ঐরূপ দপ্তরে বদলী হন, যে সমস্ত দপ্তর বাসস্থান পাওয়ার যোগ্য নহে, সেইক্ষেত্রে তাহাকে স্বাভাবিক ভাড়া প্রদানস্বাপেক্ষেতাহাকে তাহার বাসস্থান দখলে রাখিতে অনুমতি দেয়া যাইতে পারে।

৮। যখন একজন সরকারি কর্মচারী একটি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাতে বদলী হন, তিনি তাহার বাস্থান ততদিন পর্যন্ত দখলে রাখিতে পারিবেন যতদিন না ঐ বাসস্থান বরাদ্দ করিতে না পারে। ঐক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সংস্থা হইতে এই বাসস্থানের জন্য স্ট্যার্ডার্ড রেট আদায় করা হইবে।

৯। এলোটির মৃত্যু অথবা অবসর গ্রহণের ক্ষেত্রে তাহার বাসস্থান কেবলমাত্র তাহার পিতা অথবা পুত্র অথবা অবিবাহিত কন্যা অথবা স্বামী অথবা স্ত্রী এর নামে ট্রান্সফার করা যাইতে পারে, যদি তিনি (শেষোক্ত হন) ঐ শ্রেণীর অথবা উহার চেয়ে উচ্চতর শ্রেনীর বাসস্থান পাওয়ার যোগ্য হন।

১০। এলাটির মৃত্যুর ক্ষেত্রে আগামী এক বছরের মধ্যে এবং এলোটির অবসর গ্রহণের ক্ষেত্রে আগামী ছয় মাসের মধ্যে ঐরূপ বাসস্থান পাওয়ার যোগ্য হইলে এই সুবিধা প্রাপ্য হইবেন।

এই সুবিধা পাওয়ার আরো শর্ত হইল যে, যিনি বাসাটির নতুনভাবে বরাদ্দপ্রাপ্ত হইতে চাহেন তিনি মূল এলোটির সহিত সাধারণভাবে পূর্ব হইতে বসবাস করিতে ছিলেন। যদি তিনি নিম্নতর শ্রেণীর বাসস্থান পাওয়া যোগ্য হন তাহা হইলে তাহাকে নিম্নতর শ্রেণীর সর্বপ্রথম প্রাপ্য বাসস্থানটি বরাদ্দ করা যাইবে। বিকল্প বাসস্থানের ব্যবস্থা না হওয়া পর্যন্ত সর্বপ্রথম প্রাপ্য বাসস্থান রাখার অনুমতি প্রদান করা যাইতে পারে, তবে তাহাকে ঐ শ্রেণীর বাসস্থান পাওয়ার যোগ্য কর্মচারীর সর্বনিম্ন বেতনের ৭.৫% অথবা ৫% হারে বাসাভাড়া প্রদান করিতে সম্মত থাকিতে হইবে (বর্তমানে এটি বিলুপ্ত)।

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3024 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *