স্নাতক, এইচ.এসসি, এসএসসি, পিএসসি এবং জেএসসি ছাত্র/ছাত্রীর নম্বরপত্র বা সনদ সত্যায়িত সহ আপলোড করে আবেদন দাখিল করতে হবে। অন্যথায় আপত্তি আসতে পারে- সরকারি শিক্ষাবৃত্তি/ শিক্ষা সহায়তা ২০২৪

শিক্ষাবৃত্তির আবেদনে ত্রুটি থাকলে কি মেসেজ দেয়? হ্যাঁ। ০৪/০৪/২০২৪ তারিখের মধ্যে আপনার আবেদনের বিপরীতে আপত্তির জবাব অনলাইনেই প্রেরণ করতে হবে। যদি কেউ মেসেজ পেয়ে না থাকেন তবে অনলাইনে লগিন করে আবেদনের অবস্থা চেক করতে পারবেন। তাই আপনার আবেদনটি গৃহীত হয়েছে কিনা তা যাচাই করুন এবং কোন আপত্তি থাকলে মিটআপ করুন।

কবে শিক্ষা বৃত্তির টাকা পাওয়া যাবে? সিডিউল মোতাবেক শিক্ষা বৃত্তির টাকা আগামী জুন/২০২৪ মাসে পাওয়া যাবে।

শিক্ষাবৃত্তি/শিক্ষা সহায়তার কার্যক্রমের ক্যালেন্ডার ২০২৩-২০২৪ । সিডিউল মোতাবেক কার্যক্রম সম্পন্ন হবে

 

 

শিক্ষাবৃত্তি/শিক্ষা সহায়তার আবেদন ২০২৪ । আবেদন প্রক্রিয়া যেভাবে সম্পন্ন করবেন

  1. ১৩-২০ গ্রেডের কর্মরত সরকারি এবং তালিকাভূক্ত স্বায়ত্তশাসিত সংস্থায় কর্মরত কর্মচারীর ৬ষ্ঠ থেকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে অধ্যায়নরত অনধিক ২ (দুই) সন্তানের জন্য শিক্ষা বৃত্তি/শিক্ষা সহায়তা এবং সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার সকল গ্রেডের অক্ষম, অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত কর্মচারীদের ৯ম শ্রেণী থেকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে অধ্যায়নরত ২ সন্তানের জন্য শিক্ষা বৃত্তির আবেদন করতে পারবেন।
  2. ঢাকা মহানগরীতে কর্মরত কর্মচারীদের ক্ষেত্রে মহানগর ও অন্য বিভাগের কর্মচারীদের ক্ষেত্রে নিজ নিজ বিভাগীয় কার্যালয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
  3. বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যান বোর্ডের ওয়েব সাইট www.bkkb.gov.bd এর শিক্ষাবৃত্তির অনলাইন আবেদন লিংকটিতে ক্লিক করে অথবা ব্রাউজারের এড্রেস বারে eservice.bkkb.gov.bd টাইপ করে Enter চাপুন;
  4. নতুন ব্যবহারকারী হলে প্রথমে হোম পেজ থেকে রেজিস্ট্রেশন বাটনে ক্লিক করে রেজিষ্ট্রেশন করুন এবং পূর্বে যারা রেজিষ্ট্রেশন করেছেন, তারা মোবাইল নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে তথ্য সংশোধণপূর্বক আবেদন করুন।
  5. এভাবে রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন নিচের লিংক থেকে নির্দেশনা অনুসরণ করে।

অনলাইনে প্রাপ্ত শিক্ষাবৃত্তি আবেদনে কি কি যাচাই-বাছাই করা হয়?

আবেদনসমূহ বাছাই করার জন্য প্রত্যেক ইউজার তার ড্যাশবোর্ডের “কর্মরত (১৩-২০ গ্রেড_ এ গিয়ে ডাইরি নম্বর সাজিয়ে দেখুন” অপশন থেকে যে কোন ডাইরি  বা নির্দিষ্ট সংখ্যা…..হতে…..নম্বর পর্যন্ত অনুসন্ধান করা বা বাছাই করার সুযোগ পাবেন। নির্দিষ্ট সংখ্যক আবেদন অনুসন্ধান এর ব্যবস্থা রয়েছে যেখানে আবেদনগুলো নতুন ডাইরি অনুযায়ী ক্রমান্বয়ে আসবে। পিএসসি এবং জেএসসি ছাত্র/ছাত্রীর নম্বরপত্রের ক্ষেত্রে Online Copy সত্যায়িত ছাড়া দাখিল করলে সে ক্ষেত্রে আপত্তি দেওযা হয়। যে সকল ছাত্র/ছাত্রী এইচএসসি পাশ করেছে তাদের ক্ষেত্রে অনলাইন মার্কশীট গ্রহণযোগ্য হবে এবং সত্যায়িত কিনা দেখা হয়। যেহেতু উক্ত সালে ছাত্র/ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন নি তাই তাদের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের বা বিভাগীয় প্রধানের সুপারিশ থাকতে হবে।

গরমিল থাকলে কোথায় দেখতে হবে? তথ্যের গরমিলের কারণে যদি শিক্ষা বৃত্তি প্রাপ্তি সংগত হয় তবে ভুল তথ্য প্রদানের জন্য ঐ আবেদন বাতিল না হয়ে বিবেচনা যোগ্য হবে।। কোন তথ্য ভুল প্রদানের কারণে যদি শিক্ষাবৃত্তি/ শিক্ষাসহায়তা প্রাপ্তির জন্য যোগ্য বলে বিবেচনার সুযোগ থাকে, তবে ভুল তথ্যের কারণে ঐ আবেদন বাতিল হবে। ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছরের জন্য শিক্ষা বৃত্তির আবেদনসমূহ যাচাই-বাছাই এবং প্রাপ্ত আপত্তি (যদি থাকে) নিষ্পত্তির জন্য অনুরোধ অনলাইনে পাঠানো হয় এবং মোবাইলে মেসেজ দেওয়া হয়।

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 3010 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *