১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীদের ৮ দফা দাবি প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে তুলে ধরলেন রওশন এরশাদ।

জাতীয় সংসদ অধিবেশন চলাকালীন দেশনেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সংসদে উপস্থিত থাকা কালে বিরোধী দলীয় নেত্রী সংসদ সদস্য জনাব রওশন এরশাদ ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীদের ৮ দফা দাবী তুলে ধরলেন। তুলে ধরলেন কর্মচারীদের দৈন্য দশার কথা। কিভাবে তারা মানবেতন জীবন যাপন করছে তাও তিনি তুলে ধরেছেন। টিফিন ভাতা, যাতায়াত ভাতা, ও চিকিৎসা ভাতা যে খুবই অল্প টাকা তা তিনি তুলে ধরেছেন। নিচে ভিডিও সংযুক্ত করা হলো।

১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরামের দাবী সমূহ:

১। ২০১৫ সালে প্রদত্ত ৮ম পে-স্কেল সংশোধন সহ বেতন বৈষম্য নিরসন করে গ্রেড অনুযায়ী বেতন স্কেলের পার্থক্য সমহারে নির্ধারণ ও গ্রেড সংখ্যা কমাতে হবে(ILO অনুযায়ী বেতন নির্ধারণ)।

২। এক ও অভিন্ন নিয়োগ বিধি বাস্তবায়ন করতে হবে।

৩। সকল পদে পদোন্নতি বা ০৫(পাঁচ) বছর পর পর উচ্চতর গ্রেড প্রদান করতে হবে(ব্লক পোষ্ট নিয়মিতকরণ করতে হবে)।

৪। টাইমস্কেল সিলেকশন গ্রেড পুণঃবহাল সহ জেষ্ঠতা বজায় রাখতে হবে।

৫। সচিবালয়ে ন্যায় পদবী ও গ্রেড পরিবর্তন করতে হবে। ৬. সকল ভাতা বাজার চাহিদা অনুযায়ী সমন্বয় করতে হবে।

৭। নিম্ন বেতন ভোগীদের জন্য রেশন ও ১০০% পেনশন চালু সহ পেনশন গ্রাচুইটি হার ১টাকা = ৫০০ টাকা করতে হবে। ৱ

৮। কাজের ধরণ অনুযায়ী পদ, নাম ও গ্রেড একিভূত করতে হবে।

admin

আমার ব্লগের কোন কন্টেন্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বা জানাতে ইমেইল করতে পারেন admin@bdservicerules.info ঠিকানায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.