যে সকল উদ্দেশ্যে ভবিষ্য তহবিল হতে অগ্রিম গ্রহণ করা যায়।

সাধারণ ভবিষ্য তহবিল বিধিমালা, ১৯৭৯ এর ১৩ (২) বিধিতে এই সম্পর্কিত বিধান লিপিবদ্ধ আছে তাহা নিম্নে বর্ণিত হইল: বিধি-১৩(২)-অগ্রিমের উদ্দেশ্য-আবেদনকারীর বিশেষ আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় অগ্রিম মঞ্জুরীর যৌক্তিকতা সম্পর্কে মঞ্জুরকারী কর্তৃপক্ষ না হইলে কোনো অগ্রিম মঞ্জুর করা যাইবে না। তবে বিশেষ অবস্থা বিবেচনায় মঞ্জুরকৃত অগ্রিম অবশ্যই নিম্নোক্ত উদ্দেশ্যে ব্যয়িত হইতে হইবে-

এ) আবেদনকারী নিজের বা তাহার উপর প্রকৃতপক্ষে নির্ভরশীল কোন ব্যক্তিকে দীর্ঘ ও ব্যয়বহুল চিকিৎসার জন্য;

বি) আবেদনকারীর নিজের অথবা তাহার উপর প্রকৃতপক্ষে নির্ভরশীল কোনো ব্যক্তির চিকিৎসা বা শিক্ষার উদ্দেশ্যে বিদেশ ভ্রমণের ব্যয় নির্বাহের জন্য;

সি) বিবাহ, অন্তেষ্টিক্রিয়া অথবা ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠানাদিতে তাহার মর্যাদার সহিত সামঞ্জস্যপূর্ণ অনুসারে অবশ্য পালনীয় ব্যয় নির্বাহের উদ্দেশ্যে;

ডি) জীবন বিমার কিস্তি পরিশোধের জন্য;

ই) বাসগৃহ নির্মানের জন্য জমি ক্রয় বা বাসগৃহ নির্মাণ বা বাসগৃহ ক্রয় বা মেরামত অথবা এই অনুচ্ছেদে নিট উদ্দেশ্যে গৃহীত ব্যক্তিগত ঋণ পরিশোধের উদ্দেশ্যে;

এফ) কোন মুসলমান চাঁদাদাতা কর্তৃক প্রথমবারের মত হ্জ্জ পালনের জন্য ব্যয়ভার বহনের উদ্দেশ্যে;

জি) নিম্নোক্ত শর্তাবলী সাপেক্ষে কোন মুসলমান চাঁদা দাতা কর্তৃক স্ত্রীর দাবী অনুযায়ী দেনমোহরের মুলতবী দায় পরিশোধের উদ্দেশ্যে যথা:

১। চাঁদাদা বিবাহের ব্যয়ের জন্য একবার অগ্রিম গ্রহণ করিয়াথাকেন, তাহা হইলে পরবর্তীতে পুনরায় দেন মোহরানা পরিশোধের অনুমতি দেওয়া যাইবে না;

২। অগ্রিমের পরিমাণ উপ-বিধি এতে বর্ণিত পরিমাণের বা দেন মোহরানার প্রকৃত পরিমাণ, এই দুইয়ের মধ্যে যাহা কম, তাহার অধিক হইবে না। তবে মোহরানার প্রকৃত পরিমাণের প্রমাণ চাঁদাদাতাকে দাখিল করতে হইবে;

৩। অগ্রিম উত্তোলনের এক মাসের মাধ্য প্রকৃত পক্ষে মোহরানার অর্থ পরিশোধ করিয়াছে কিনা তাহা দাখিল করিতে হইবে। অন্যথায় প্রদত্ত অগ্রিমের সমুদয় অর্থ এককালীন আদায়যোগ্য হইবে।

সাধারণ ভবিষ্য তহবিল বিধিমালা, ১৯৭৯ [বাংলা ও ইংলিশ ভার্সন)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

close