সাময়িক বরখাস্ত থাকার সময়ে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে ছুটি প্রদান করা যাইবে না। (বিএসআর, পার্ট-১ এর বিধি-৭৪)

সাময়িক বরখাস্ত সংক্রান্ত অন্যান্য বিধান।

(ক) সাময়িক বরখাস্ত থাকার সময়ে ছুটি প্রদান: (ক) সাময়িক বরখাস্ত থাকার সময়ে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে ছুটি প্রদান করা যাইবে না। (বিএসআর, পার্ট-১ এর বিধি-৭৪)

(খ) ছুটি ভোগরত অবস্থায় সাময়িক বরখাস্ত: ছুটি ভোগরত অবস্থায় কোন কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হইলে, সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দানের তারিখ হইতে ছুটি বাতিল হইবে। (বিএসআর, পার্ট-১ এর বিধি-৭৪ এর ১ নং নোট)।

(গ) সাময়িক বরখাস্ত থাকার সময়ে এসিআর লিখন: সাময়িক বরখাস্ত থাকা কালে কোন সরকারী কর্মচারীর বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন প্রয়োজন হইবে না। ইহার স্থলে সংশ্লিষ্ট অফিস আদেশ বা বিজ্ঞপ্তি ডোসিয়ারে রাখা হইবে। (স্মারক নং-০৫.১০২.২২.০১.০০.০০১.২০১২-৫৮, তারিখ: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১২ দ্বারা জারিকৃত গোপনীয় অনুবেদন ফরম পূরণ, অনুস্বাক্ষরসহ লিখন, প্রতিস্বাক্ষর ও সংরক্ষণ সংক্রান্ত অনুশাসনমালা এর অনুচ্ছেদ-২.৭.৪)

(ঘ) সাময়িক বরখাস্ত কর্মচারীর পদ পূরন: সাময়িক বরখাস্তকালে সংশ্লিষ্ট ব্যীক্ত নিজস্ব পদটি দখল করিয়া রাখেন। ফলে উক্ত পদটি পদশুন্য হিসাবে বিবেচিত হয় না বিধায় ঐ পদে নিয়োগ করা যায় না। তবে বিশেষ কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার স্বার্থে অত্যাবশ্যকীয় হইলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে এই উদ্দেশ্যে সুপারনিউমারি পদ সৃষ্টি করা যাইবে। কিস্তু সাময়িক বরখাস্তকৃত ব্যক্তি সাময়িক বরখাস্তের মেয়া শেষ হওয়ার বা চাকরিতে পুনর্বহাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সুপারনিউমারি পদটি বিলপ্ত হইবে। (জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের স্বারক R-III/IS-128/69/50 তারিখ: ১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭০)

(ঙ) সাময়িক বরখাস্তকাল কর্মস্থলে অবস্থান: সাময়িক বরখাস্তকালে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী কর্মস্থলেই অবস্থান করিবেন। তবে যথাযথ কর্তৃপক্ষের পূর্বানুমতিক্রমে অন্য গমণ করিতে পারিবেন। (স্মারক নং (ED(Reg-VI)/S-93/79-87(500), তারিখ: ২ সেপ্টেম্বর, ১৯৮০)

(চ) চাকরি হইতে বরখাস্ত, অপসারণ বা বাধ্যতামূলক অবসরদানের আদেশ আদালত কর্তৃক বাতিল হওয়ার পর পুন: তদন্তের ক্ষেত্রে সাময়িক বরখাস্তকরণ:

সরকারী কর্মচারী (শৃংখলা ও আপীল) বিধিমালা, ১৯৮৫ এর ১১ বিধির (৩) উপবিধির বিধান অনুযায়ী চাকরি হইতে বরখাস্ত, অপসারণ বা বাধ্যতামূলক অবসরদানের আদেশ কোন আদালত বা প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল কর্তৃক বাতিল হইলে কর্তৃপক্ষ মামলার অবস্থাদি বিবেচনাপূর্বক বিষয়টি পুন: তদন্ত করিতে পারিবেন। কর্তৃপক্ষ যদি পুন: তদন্তের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন, তাহা হইলে প্রথম যে তারিখ হইতে চাকরি হইতে বরখাস্ত বা অপসারণ বা বাধ্যতামূলক অবসরদানের দন্ড আরোপ করা হইয়াছিল, ঐ তারিখ হইতে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী সাময়িকভাবে বরখাস্ত আছেন বলিয়া গণ্য হইবে এবং পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত ইহা চলিতে থাকিবে। এই ক্ষেত্রে সাময়িক বরখাস্তকরণ বাধ্যতামূলক।

(ছ) সাময়িক বরখাস্তের পর পুর্নবহাল: সরকারী কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালা, ১৯৮৫ এর বিধি-১৩ এর উপবিধি (২) এর বিধান অনুযায়ী সাময়িক বরখাস্তের পর পুর্নবহাল বাংলাদেশ সার্ভিস রুলের বিধান দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হইবে। এই সম্পর্কে বিএসআর, পার্ট-১, এর ৭২ নং বিধিতে বলা হয়েছে যে, সাময়িক বরখাস্তকৃত কোন কর্মচারীর সাময়িক বরখাস্ত অন্যায্য হইলে বা সম্পূর্ণ ন্যায় সংগত না হইলে দন্ড আরোপকারী কর্তৃপক্ষ, আপিল কর্তৃপক্ষ বা আদেশ সংশোধনকারী কর্তৃপক্ষ উক্ত কর্মচারীকে নিম্নোক্ত সুবিধাদি মঞ্জুর করিতে পারিবেন-

(ক) অভিযোগ হইতে সসম্মানে অব্যাহতি পাইলে পূর্ণ বেতন ও ভাতাদি মঞ্জুর করিতে পারিবেন। এই ক্ষেত্রে অনুপস্থিতকাল কর্মকাল হিসাবে গণ্য হইবে।

(খ) সসম্মানে অব্যাহতি ব্যতীত অন্যান্য ক্ষেত্রে বেতন ও ভাতাদির কি পরিমাণ প্রদান করা হইবে, সে সম্পর্কে আদেশ দিতে হইবে। ইহাছাড়া অনুপস্থিতকাল কর্মকাল হিসাবে না কি ছুটি হিসাবে গণ্য হইবে, সে সম্পর্কে আদেশ দিতে হইবে। ছুটি হিসাবে গণ্য করা হইলে, উক্ত ছুটির হিসাব হইতে বাদ যাইবে। প্রদত্ত খোরাকী ভাতা ছুটিকালীন বেতনের সহিত সমন্বয় করিতে হইবে। তবে এই সময়কে অসাধারণ ছুটি হিসাবে গণ্য করা হইলে ইতিমধ্যে প্রদানকৃত খোরাকী ভাতা সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর নিকট হইতে আদায় করা যাইবে না।

প্রশ্নোত্তর পর্ব:

  • প্রশ্ন: কোন ছুটিই কি নেয়া যাবে না?
  • উত্তর: না। কোন প্রকার ছুটি নেয়া যাবে না।

সরকারি চাকরি আইন-২০১৮ এর ৩৯ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুসারে সাময়িক বরখাস্ত।-(১) কোনো কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় কার্যধারা গ্রহণের প্রস্তাব বা বিভাগীয় কার্যধারা রুজু করা হইলে, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ অভিযোগের মাত্রা ও প্রকৃতি, অভিযুক্ত কর্মচারীকে তাহার দায়িত্ব হইতে বিরত রাখিবার আবশ্যকতা, তৎকর্তৃক তদন্তকার্যে প্রভাব বিস্তারের আশঙ্কা, ইত্যাদি বিবেচনা করিয়া তাহাকে সাময়িক বরখাস্ত করিতে পারিবে:

তবে শর্ত থাকে যে, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ অধিকতর সমীচীন মনে করিলে, এইরূপ কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করিবার পরিবর্তে, লিখিত আদেশ দ্বারা, তাহার ছুটির প্রাপ্যতা সাপেক্ষে, উক্ত আদেশে উল্লিখিত তারিখ হইতে ছুটিতে গমনের নির্দেশ প্রদান করিতে পারিবে।

(২) কোনো কর্মচারী দেনার দায়ে কারাগারে আটক থাকিলে, অথবা কোনো ফৌজদারি মামলায় গ্রেফতার হইলে বা তাহার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গৃহীত হইলে, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ উক্তরূপ আটক, গ্রেফতার বা অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন হইতে তাহাকে সাময়িক বরখাস্ত করিতে পারিবে।

(৩) কোনো সরকারি কর্মচারী তাহার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ হইতে অব্যাহতি বা খালাসপ্রাপ্ত হইলে, তাহার সাময়িক বরখাস্ত আদেশ, যদি থাকে, প্রত্যাহার করিতে হইবে।

বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব গ্রহণ করিবার কারণে চাকরির অবসান

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2958 posts and counting. See all posts by admin

2 thoughts on “সাময়িক বরখাস্ত কালে ছুটি নেয়া যাবে না?

  • পিআরএল ছুটি সাময়িক বরখাস্ত কালে মঞ্জুর করা যাবে কি? এবং সাময়িক বরখাস্ত কালে ইএলপিসি ইস্যু করা যাবে?

  • না। নিষ্পত্তি হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *