কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে বেতন বৈষম্য তীব্রতর।

বেতন বৈষম্য:

আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব সরকারি কর্মকর্তা বনাম কর্মচারীদের মধ্যে যে বৈষম্য বিরাজমান তা নিয়ে। ১৯৭৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত পে স্কেল পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে, ১৯৭৩ থেকে বর্তমান পে স্কেল পর্যন্ত গ্রেড ০১-২০ পর্যন্ত প্রতিটি পে স্কেলে বৈষম্য বাড়তে বাড়তে চরম পর্যায়ে এসে পৌছেছে।

পে স্কেল ২০১৫ তে কি বৈষম্য রয়েছে?

২০১৫ সালের পে স্কেলে সুক্ষ্ন কারচুপির মাধ্যমে ১১-২০তম গ্রেডের সকল কর্মচারীদের ঠকানো হয়েছে। কর্মকর্তাদের বেতন ১৬০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৭৮০০০ টাকা করা হয়েছে। যেখানে কর্মচারীদের বেতন ৮২৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১২৫০০ টাকা করা হয়েছে। ১০ম-১ম গ্রেডে বেতন বৃদ্ধি করা হয়েছে ৬২০০০ টাকা। অপর দিকে ১১তম-২০তম গ্রেডে বেতন বৃদ্ধি করা হয়েছে ৪২৫০ টাকা।

আমরা যারা সরকারি চাকরি করি তাদের মধ্যে ১০-২০ তম গ্রেডে কর্মচারীগণ কোন রকম চিন্তা ভাবনা ছাড়াই চাকরি করি।

  • বেতন বৈষম্য দেখলে আপনি আতকে উঠবেন।
  • সৈরাচারি বেতন ব্যবস্থা আমলা তান্ত্রিক জটিলতার কারণেই সৃষ্টি হয়েছে।
  • অন্যান্য দেশের সাথে একটি তুলনামূলক আলোচনা করবো।

শতাংশে দেখলে বুঝা যায় বৈষম্যটা:

কর্মকর্তাদের জন্য ১২৫০০ থেকে ৭৮ হাজার পর্যন্ত শুধুমাত্র মূল বেতনে ১০তম -১ম গ্রেডে প্রতি ধাপে প্রায় ২০.৪ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে। মূল বেতনে ২০.০৪% বেতন প্রতি প্রমোশন এ বৃদ্ধি পায়। গ্রেডে বেতন বৃদ্ধি ২০% এর অধিক হওয়ায় বার্ষিক ৫% ইনক্রিমেন্ট বা যে কোন প্রকার ফিক্সেশনের তাদের আর্থিক সুবিধা বেশি হয়ে থাকে ফলে তারা প্রমোশনে অনুপ্রাণিত হন।

কর্মচারীদের জন্য ৮২৫০ থেকে ১২০০০ হাজার পর্যন্ত শুধুমাত্র মূল বেতনে ১১তম -২০তম গ্রেডে প্রতি ধাপে প্রায় গড়ে ৪.২৮ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে। মূল বেতনে ৪.২৮% বেতন প্রতি প্রমোশন এ বৃদ্ধি পায়। গ্রেডে বেতন বৃদ্ধি ৪.২৮% এর অধিক হওয়ায় বার্ষিক ৫% ইনক্রিমেন্ট বা যে কোন প্রকার ফিক্সেশনের তাদের আর্থিক সুবিধা খুবই নগন্য ফলে তারা প্রমোশনে অনুপ্রাণিত হন না বরং বদলিজনিত বিরম্বনায় পড়ে।

এ সংক্রান্ত বৈষম্যের তালিকাটির JPG ফরমেট সংগ্রহে রাখতে পারেন: ডাউনলোড

admin

আমার ব্লগের কোন কন্টেন্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বা জানাতে ইমেইল করতে পারেন admin@bdservicerules.info ঠিকানায়।

One thought on “কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে বেতন বৈষম্য তীব্রতর।

  • 19/11/2019 at 3:35 pm
    Permalink

    এর প্রতিকার কি নেই কোন?

Leave a Reply

Your email address will not be published.