সরকারি কর্মচারীদের বেতন ভাতা ইএফটি’র মাধ্যমে প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় সরকারি দপ্তরগুলো ইএফটি কার্যক্রম সম্পাদনের লক্ষ্যে কর্মচারীদের নিকট হতে ইএফটি ফরম পূরণের তাগিদ দেয়া হচ্ছে।

যে ভূলগুলো প্রায়ই হয়

সাধারণত ব্যাংক হিসাবের তথ্য অনেকেই রাউটিং নম্বর, ইংরেজীতে ব্যাংক হিসাবে নাম (নিজের নাম) দিতে ভুলে যান। এসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। কারণ ইংরেজীতে আপনার যেভাবে ভোটার আইডি কার্ডে লিখা আছে সেভাবে লিখতে হবে।

বিবাহিত হলে স্ত্রীর তথ্য ভালভাবে অবশ্যই দিবেন, স্ত্রীর এনআইডি, জন্মতারিখ সঠিক ভাবে লিখতে হবে। স্ত্রীর তথ্য ভুল হলে আইবাস++ সেটি ডিটেক্ট করতে পারে। তাই ভুল তথ্য কোনভাবেই আইবাস++ গ্রহণ করে না।

শিক্ষা ভাতা নিলে বা না নিলেও অবশ্যই সন্তানের জন্ম নিবন্ধন নম্বর, জন্ম তারিখ, ইংরেজী ও বাংলায় নাম সঠিকভাবে লিখবেন। একাধিক বা অধিক সন্তান থাকলে সকলের তথ্যই দিবেন।

প্রতিবন্ধী সন্তানের ক্ষেত্রে সাধারণ জন্ম নিবন্ধন নয়, অবশ্যই প্রতিবন্ধী সন্তানের পরিচিত নম্বর দিবেন, প্রতিবন্ধীর ধরণ, জন্ম তারিখ ইত্যাদি ঠিকঠাক লিখবেন।

চাকুরি সম্পর্কিত তথ্য প্রদানে প্রথম যোগদানের তারিখ প্রথম বেতন স্কেল, মূল বেতন ইত্যাদি সঠিক ভাবে দিবেন এসব অনেক ক্ষেত্রে হিসাব শাখায় সংরক্ষিত থাকে না, যদি বদলিকৃত কর্মস্থল হয় তবে অবশ্যই না থাকারই কথা।

পদোন্নতি পেয়ে থাকলে বা টাইমস্কেল সিলেকশন গ্রেড, উচ্চতর গ্রেডে যাই পেয়ে থাকুন না কেন তার তথ্য অবশ্যই সরবরাহ করবেন। এগুলো খুজে না পেলে পরবর্তীতে ঝামেলা পোহাতে হবে আপনাকেই।

অনেকেই দেখা যায় বেতন ভাতাদির তথ্য ঠিকঠাক জানেন না বলে তথ্যগুলো সরবরাহ করেন না। অবশ্যই হিসাব শাখা হতে সঠিক তথ্য জেনে নিয়ে আপনি তথ্যগুলো নিজ হাতে পূরণ করে দিবেন।

জিপিএফ সম্পর্কিত তথ্য জিপিএফ নম্বর, কর্তনের পরিমাণ দিলেও ভলিয়ম নম্বর ও পৃষ্ঠা নম্বর উল্লেখ করেন না বলে তথ্য ইনপুটে জটিলতা পোহাতে হয় তাই একটু সতর্ক হয়ে তথ্য দিন।

ভবিষ্য তহবিল হতে বা অন্য যে কোন অগ্রিম গ্রহন করে থাকলে তার মঞ্জুরী নম্বর, তারিখ, কর্তন শুরুর তারিখ, সুদের পরিমাণ, মোট কিস্তি ইত্যাদি বিস্তারিত লিখুন অন্যথায় ইএফটি বিলম্বিত হবে। আটকে যেতে পারে আপনার বেতন ভাতাদি।

স্ত্রীর বর্তমানে জিপিএফ নমিনি অন্য কাউকে দিলে সেটিও উল্লেখ করুন। স্ত্রীকে দিলে তার তথ্য সঠিক ভাবে দিয়ে দিন।

সর্বশেষ ছুটির হিসাবগুলো দিবেন, নৈমিত্তিক ছুটিগুলোর কোন হিসাব দিতে হবে না, শুধুমাত্র অর্জিত ছুটি, অসাধারণ ছুটি, শ্রান্তি বিনোদন ছুটি, মাতৃত্বকালিন ছুটি ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে লিখুন এবং প্রতিটির আদেশ সংযুক্ত করুন।

কেউ সংযুক্তিতে থাকলে সংযুক্তির তথ্যগুলো ভালভাবে লিখুন, সংযুক্তির আদেশ যুক্ত করে দিতে ভুলবেন না যেন।

 

যে সকল কাগজপত্রাদি সংযুক্ত হিসাবে দিবেন ফর্ম এর সাথে:

১। জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি;

২। এস.এস.সি এর ফটোকপি।

৩। শিক্ষকের ব্যাংক হিসাবে চেক বইয়ের ফটোকপি (রাউটিং নম্বর সহ)

৪। স্বামী/সন্ত্রীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি।

৫। সন্তানের জন্মনিবন্ধন সনদ/জাতীয় পরিচয়পত্র/প্রতিবন্ধী সন্তানের ক্ষেত্রে সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত পরিচয়পত্রের ফটোকপি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

৬। ঋণ সংক্রান্ত তথ্যঅদি (জিপিএফ/গৃহ নির্মাণ/কম্পিউটার/মোটর সাইকেল ইত্যাদি ) যদি থাকে)।

৭। উচ্চতর স্কেলের তথ্য (পেয়ে থাকলে)

৮। সর্বশেষ বার্ষিক বর্ধিত বেতন নির্ধারণের ফটোকপি।

৯। সাধারণ ভবিষ্য তহবিল (জিপিএফ) এর তথ্য।

১০। ব্যাংক সংক্রান্ত তথ্য: হিসাবের নাম (ইংরেজীতে), হিসাব নম্বর (ধরণসহ), ব্যাংকের নাম, শাখা।

১১। সংযুক্তিতে কর্মরত থাকলে সংযুক্তির আদেশের কপি।

১২। ছুটির সমস্ত আদেশের কপি।

পূরণকৃত একটি ইএফটি ফরমের নমুনা দেয়া হলো: ডাউনলোড

সরকারি কর্মচারীদের ইএফটির জন্য নতুন ফরম এর (৪ পৃষ্ঠা) PDF and Docx FORMAT

admin

আমি একজন সরকারী চাকরিজীবি। দীর্ঘ ৮ বছর যাবৎ চাকুরির সুবাদে সরকারি চাকরি বিধি বিধান নিয়ে পড়াশুনা করছি। বিএসআর ব্লগে সরকারি আদেশ, গেজেট, প্রজ্ঞাপন ও পরিপত্র পোস্ট করা হয়। এ ব্লগের কোন পোস্ট নিয়ে বিস্তারিত জানতে admin@bdservicerules.info ঠিকানায় মেইল করতে পারেন।

admin has 2959 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *