স্বাভাবিক কর্মঘন্টার অতিরিক্ত কাজের জন্য অধিকাল ভাতা প্রাপ্য হবেন।

অধিকাল ভাতা কি?

নির্ধারিত কর্তব্য ৬ ঘন্টা ৩০ মিনিট/৮ ঘন্টা পালনের পর অতিরিক্ত যে সময়কাল দায়িত্ব পালন করা হয় তাই অধিকাল হিসাবে গন্য।

কেন অধিকাল করানো হয়?

সাধারণত কাজের বলিয়ম হঠাৎ বেশি হলে বা গতানুগতিক কাজের চেয়ে বেশি পরিমান কাজের চাপ থাকলে বাড়তি বা নিয়মিত কর্মঘন্টার বাহিরে কাজ করিয়ে নিতে হয়। নির্ধারিত সময়ে কাজ বা প্রজেক্ট শেষ করতেই মূলত অধিকাল দায়িত্ব পালন করানো হয়।

কখন অধিকাল ভাতা পাওয়া যায় না?

সরকারি কর্মচারীগণ সাধারণত অধিকাল বরাদ্দ না থাকলে অধিকাল ভাতা প্রাপ্য হন না। সরকারি কর্মচারীগণ ২৪ ঘন্টার জন্য সরকারি কাজে নিয়োজিত তাই অতিরিক্ত কর্তব্য পালনে ড্রাইভার ব্যতিত কোন কর্মচারী অধিকাল সুবিধা পান না।

  • প্রথমতত অধিকাল ভাতার বরাদ্দ থাকতে হবে।
  • বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ মোতাবেক অতিরিক্ত কাজের জন্য দ্বিগুন হারে অধিকাল ভাতা প্রাপ্য হবেন।
  • এক্ষেত্রে অধিকাল ভাতার পূর্ব বা পরবর্তী মঞ্জুরী নিয়ে নিতে হয়।
  • বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ১০৮ ধারানুযায়ী ৮ (আট) ঘন্টার পর অতিরিক্ত কাজের জন্য অধিকাল ভাতা প্রদেয়।

ক্ষতিপূরন ছুটি কি?

সাধারণত বাজেটে অতিরিক্ত কাজের ভাতা বরাদ্দ না থাকলে অর্থাৎ ওভার টাইম খাতে বরাদ্দ না থাকলে অধিকাল দায়িত্ব পালন করলেও অধিকাল ভাতা পাওয়া যায় না। সে ক্ষেত্রে কর্মচারী তার অধিকাল দায়িত্ব পালিত ঘন্টার বিপরীতে ক্ষতিপূরণ ছুটি কাটাতে পারেন।

বিস্তারিত জানতে বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ দেখুন: ডাউনলোড

ইতি কথা:

অধিকাল খাতে বরাদ্দ থাকলে ২০-১১ তম গ্রেডের যে কোন কর্মচারী অতিরিক্ত কাজের ভাতা পাবেন।

Avatar

admin

আমি একজন সরকারি চাকরিজীবী। ভালবাসি চাকরি সংক্রান্ত বিধি বিধান জানতে ও অন্যকে জানাতে। আমার ব্লগের কোন কন্টেন্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বা জানাতে ইমেইল করতে পারেন alaminmia.tangail@gmail.com ঠিকানায়। ধন্যবাদ আপনাকে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.